বিশ্বকাপ ২০১৮: মরক্কো

0

ওয়েবডেস্ক: বহুদিন বাদে বিশ্বকাপের মঞ্চে আফ্রিকার মরক্কো। একসময় বিশ্ব ফুটবলে দাপুটে দল ছিল তারা। ২০ বছর বাদে বিশ্বকাপের মঞ্চে তাদের আবির্ভাব হতে চলেছে। এর আগে বিশ্বকাপের ইতিহাসে অনেক কৃতিত্বও রয়েছে তাদের। আসন্ন বিশ্বকাপ নিয়ে পঞ্চমবার এই শিখরে তারা। শুধু তাই নয়, ইতিহাস বলছে প্রথম আফ্রিকার দল হিসাবে বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্যায়ের ম্যাচ জিতেছিল তারা। প্রথম আফ্রিকার দল হিসাবে বিশ্বকাপের দ্বিতীয় রাউন্ডে খেলার ইতিহাসও তাদের পকেটে। ১৯৮৬ বিশ্বকাপে এই কৃতিত্ব অর্জন করে তাঁরা। এখানেই শেষ নয়, ১৯৭৬ সালে আফ্রিকার সেরা দলের শিরোপাও উঠেছিল তাদের মুকুটে। ২০০৪ সালেও সেই সুযোগ এসেছিল কিন্তু ফাইনালে হেরে যায় মরক্কো।

moroccoteam

তবে নতুন ভাবে কোচ হারভি রেনার্ডের নেতৃত্বে বিশ্ব মঞ্চে ছাপ রাখতে মরিয়া তারা। প্রথম দলের বেশিরভাগ খেলোয়াড়ই ইউরোপের সেরা লিগগুলিতে পেশাদারি ফুটবল খেলেন। তবে সবথেকে বেশি যার দিকে নজর থাকবে, তিনি দলের অধিনায়ক এবং নির্ভরযোগ্য ডিফেন্ডার মেধি বেনেতিয়া। যিনি এই মুহূর্তে ইতালির সেরা দল জুভেন্তাসের অন্যতম স্তম্ভ। এ ছাড়াও নজর রাখতে হবে মিডফিল্ডের অন্যতম আকর্ষণীয় খেলোয়াড় নরদিন অম্রাবাটের ওপর, ইনিও লা লিগার লেগানেজ দলের খেলোয়াড়। এছাড়াও ইউনুস বেলহান্দা। আক্রমণে খালিদ বউটাইব ও আয়ুদ এল কাবিরের ওপর দায়িত্ব বিপক্ষের জালে বল ঢোকানোর।

নেদারল্যান্ডস-জাত করিম এল আহমাদি দলের মূল চালিকাশক্তি। সব ঠিক মতো চললে বি গ্রুপের দুই বড়ো দল স্পেন ও পর্তুগানের ঘুম কেড়ে নিতে পারে মরক্কো। কারণ বরাবরই প্চুর প্রতিভাবান ফুটবলারের জন্ম দিলেও দল হিসেবে নিজেদের মেলে ধরতে পারেনি তাঁরা। এবার সেই সীমাবদ্ধতা কাটিয়ে উঠতে বদ্ধপরিকর কোচ হার্ভে রেনার্ড।

Shyamsundar

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন