আকুই সংস্কৃতি সমিতির ষোড়শ বর্ষের নাট্যোৎসবে মঞ্চস্থ হল ছ’টি নাটক

0
indrani sen
ইন্দ্রাণী সেন

বাঁকুড়াঃ সম্প্রতি শেষ হল বাঁকুড়ার ইন্দাসের আকুই সংস্কৃতি সমিতির ষোড়শ বর্ষের নাট্যোৎসব। স্থানীয় হাইস্কুল মাঠ-সংলগ্ন প্রয়াত হরিসাধন ঘোষাল ও সুনীতিদেবী স্মৃতি মঞ্চে নাট্যোৎসবের উদ্বোধন করেন বিশিষ্ট নাট্যব্যক্তিত্ব ললিত কোনার। মঞ্চটি উৎসর্গ করা হয় প্রয়াত শিক্ষাবিদ বিজয় কুমার গড়াইয়ের নামে।  তিন দিনে মোট ছ’টি নাটক মঞ্চস্থ হয়। একই সঙ্গে নাট্যোৎসবের প্রথম দিনে ইন্দাস ব্লক ছাত্র-যুব উৎসবে নাটকে অংশগ্রহণকারী কৃতীদের পুরস্কৃত করা হয় ও অতিথিদের স্মারক দিয়ে সম্মান জানানো হয়। উপস্থিত ছিলেন আকুই ইউনিয়ন হাইস্কুলের প্রাক্তন প্রধান শিক্ষক মৃণাল ঘোষাল, নাট্যব্যক্তিত্ব রমাপতি হাজরা, শ্যামাপ্রসাদ চৌধুরী প্রমুখ।

a scene from 'swapno enterprise'
‘স্বপ্ন এন্টারপ্রাইজ’-এর একটি মুহূর্ত।

নাট্যোৎসবের প্রথম দিনে জঙ্গলমহল ও নৈহাটি দলের যৌথ উদ্যোগে ‘আজকের প্রমিথিউস’  নাটকটি মঞ্চস্থ হয়। দ্বিতীয় দিনে আকুই সংস্কৃতি সমিতির ‘স্বপ্ন এন্টারপ্রাইজ’  ও নদিয়ার গয়েশপুর সংলাপ-এর  ‘আমি এই অন্ধকার’ মঞ্চস্থ হয়। তৃতীয় অর্থাৎ শেষ দিনে আকুই সংস্কৃতি সমিতির ‘খাঁচা’ ও ‘শতাব্দীর ফসিল’ ও মহিষাদলের একটি নাট্য সংস্থার ‘জৈবতী কন্যা’ নাটকটি মঞ্চস্থ হয়।

lalit konar felicitated by ramaprasad sen
বিশিষ্ট নাট্যব্যক্তিত্ব ললিত কোনারকে স্মারক দিয়ে সংবর্ধনা জানাচ্ছেন আয়োজক সংস্থার সভাপতি রমাপ্রসাদ সেন।

আয়োজক সংস্থার সভাপতি রমাপ্রসাদ সেন বলেন, “ষোলো বছর আগে এলাকার কিছু নাট্যপ্রেমী মানুষকে নিয়ে আকুই সংস্কৃতি সমিতির সূচনা হয়। নাটকের সাথে সাথে আমরা এলাকার মানুষকে নিয়ে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করি।” সংস্থার সম্পাদক তুহিন দলুই বলেন, প্রতি বছরই নাটকের মাধ্যমে এলাকার মানুষের কাছে বিভিন্ন বার্তা দেওয়ার চেষ্টা করা হয়। এ বছরও তাই নাটকগুলির মধ্য দিয়ে কখনও স্বপ্ন দেখার প্রয়োজনীয়তা আবার কখনও বাঙালির ট্রাজিক হিরো নেতাজির জীবনী আবার সমাজের নারীদের উপর হয়ে চলা অত্যাচারের কথা তুলে ধরা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.