kabul ambulance bombing

কাবুল: আত্মঘাতী বোমা বিস্ফোরণে কাবুলে মৃত্যু হল ৯৫ জনের, জখম ১৫৮ জন। শনিবার একটি বিস্ফোরক বোঝাই অ্যাম্বুল্যান্স আফগান রাজধানীতে এই বিস্ফোরণ ঘটায়। তালিবানরা এই বিস্ফোরণের দায় স্বীকার করেছে।

কিছু দিন ধরেই তালিবান ও আইএস আফগানিস্তানে তাদের আক্রমণ জোরদার করেছে। গত সপ্তাহেই শহরের এক আন্তর্জাতিক হোটেলের কাছে এক বিস্ফোরণে অন্তত পক্ষে ২২ জন প্রাণ হারাম। তবে শনিবারের বিস্ফোরণের মতো এত বড়ো মাপের বিস্ফোরণ গৃহযুদ্ধ-বিধ্বস্ত কাবুলে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে হয়নি।

আফগান স্বরাষ্ট্র দফতরের উপ মুখপাত্র নসরত রহিমি বলেন, বিস্ফোরণের জন্য আক্রমণকারী একটি অ্যাম্বুল্যান্স ব্যবহার করেছি। মরণাপন্ন রোগীকে কাছাকাছি একটি হাসপাতালে নিয়ে যাচ্ছে বলে ওই আক্রমণকারী মধ্য কাবুলের একটি নিরাপত্তা চেকপোস্ট পেরিয়ে গিয়েছিল। কিন্তু দ্বিতীয় চেকপোস্টে সে ধরা পড়ে যাওয়ায় সেখানেই বিস্ফোরণ ঘটায়। নিহতের মধ্যে বেশির ভাগই অসামরিক ব্যক্তি। তবে কিছু সামরিক ব্যক্তিও আছেন বলে রহিমি জানান।

বিস্ফোরণ ঘটার সঙ্গে সঙ্গে গোটা এলাকাটি একটি যুদ্ধ-বিধ্বস্ত এলাকার চেহারা নেয়। বেশ কয়েকটা গাড়ি গুঁড়িয়ে যায়। ধ্বংস হয়ে যায় বেশ কিছু দোকানপাট। কাটা পাঁঠার মতো ছটফট করতে করতে মানুষজন মৃত্যুর কোলে ঢোলে পড়ে। চারি দিকে ধ্বংসস্তূপ। সর্বত্র ছড়িয়েছিটিয়ে ছিন্নভিন্ন মৃতদেহ। আর সেই ছিন্নভিন্ন দেহ মাড়িয়েই আতঙ্কিত মানুষজন ছুটে চলেন নিরাপদ আশ্রয়ের সন্ধানে। কাছেই ভারতীয় ও ইউরোপীয় ইউনিয়নের দূতাবাস এবং স্বরাষ্ট্র দফতরের পুরোনো অফিসভবন। বিস্ফোরণের পর গোটা এলাকাটা কালো ধোঁয়ায় ঢেকে যায়।

বিস্ফোরণের দায় স্বীকার করেছেন তালিবানের মুখপাত্র জবিহুল্লাহ মুজাহিদ। রাষ্ট্রপুঞ্জের সেক্রেটারি জেনারেলের মুখপাত্র-সহ বিশ্বের রাষ্ট্রনেতারা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন।

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here