smith marsh

ইংল্যান্ড ৩০২ (ভিঞ্চ ৮৩, মালান ৫৬, স্টার্ক ৩-৭৭)

অস্ট্রেলিয়া ১৬৫-৪ (স্মিথ ৬৪ অপরাজিত, মার্শ ৪৪ অপরাজিত, ব্রড ১-১৮)

ব্রিসবেন একটা সময়ে স্কোর হয়ে গিয়েছিল চার উইকেটে ৭৬। বাড়তি জোশ পেয়ে টগবগ করছে ইংল্যান্ড। আর এক-দু’টো উইকেট ফেলে দিতে পারলেই টেস্টে পুরোপুরি জাঁকিয়ে বসবে ইংল্যান্ড। কিন্তু সেটাই হতে দিলেন না অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ এবং শন মার্শ। দু’জনের অপরাজিত ৮৯ রানের জুটিতে ভর করে ঘুরে দাঁড়িয়েছে অস্ট্রেলিয়া।

শুক্রবার দিনের প্রথম সেশনটা অস্ট্রেলিয়ার পক্ষেই ছিল। আগের দিনের অপরাজিত মঈন আলি এবং ডেউইড মালানের জুটি ভালোই শুরু করছিল। তবে দলের স্কোর যখন ২৪৬, মালানকে ফিরিয়ে প্রত্যাঘাত করেন স্টার্ক। এর চার রানের মধ্যেই আরও দু’টি উইকেট হারিয়ে আরও চাপে পড়ে যায় ইংল্যান্ড।

তবে স্টুয়ার্ট ব্রডের সৌজন্যে প্রথম ইনিংসে তিনশো পেরিয়ে যায় ইংল্যান্ড। তবে প্রথম ইনিংসে ৩০২ আদৌ খারাপ স্কোর নয় এবং প্রথম দিকে যদি উইকেট তুলে নেওয়া যায়, তা হলে পালটা প্রত্যাঘাত করা যাবে, এই আশাতেই ফিল্ডিং-এ নামে ইংল্যান্ড। শুরুতেই বাজিমাত।

প্রথম আঘাতটি ব্রড। তার পর একে একে মঈন আলি, জেক বল এবং অ্যান্ডারসনের দাপটে ত্রাহি ত্রাহি অবস্থায় পড়ে যায় অজিরা। এখান থেকেই দলকে টেনে তোলার দায়িত্ব নেন স্মিথ এবং মার্শ। কোনো তাড়াহুড়ো নয়, বরং খুব সন্তর্পণেই ইনিংস টেনে নিয়ে যাচ্ছেন দু’জনে। অবাক করা ব্যাপার হল ৬২ ওভার ব্যাট করেও অস্ট্রেলিয়ার রান রেট এখনও তিনের অনেকটাই নীচে।

এই পরিস্থিতিতে ক্রমশ জমে উঠছে টেস্টটি। তৃতীয় দিনটিই সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে প্রমাণিত হতে পারে। অস্ট্রেলিয়া লিড নিতে পারলে চাপে পড়বে ইংল্যান্ড, এবং উলটোটা হলে প্রথম টেস্ট জিতে ইতিহাস সৃষ্টি করার দরজা খুলে যাবে ইংল্যান্ডের কাছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here