ansar bangla

কলকাতা: বাংলাদেশের মুক্তমনা ব্লগারদের মারার পরিকল্পনা কথা জানতে পেরেছেন গোয়েন্দারা৷ এই কারণেই তাদের অস্ত্রের প্রয়োজন ছিল বলে জেরায় জানিয়েছেন আনসার বাংলার ধৃত সদস্যরা৷ ব্লগারদের পাশাপাশি বিদেশি নাগরিকরাও তাদের লক্ষ্য ছিল বলে জানা গিয়েছে৷ কোন দেশের কোন কোন নাগরিক তাদের হিটলিস্টে ছিল সে বিষয়ে খোঁজ শুরু করেছে পুলিশ৷

কলকাতা পুলিশ সুত্রে জানা গিয়েছে, ধৃতদের জেরা করে যে সব চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসছে তা সঙ্গে সঙ্গেই রিপোর্ট করা হচ্ছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রককে৷ ধৄতদের জেরা করে পুলিশ এ-ও জানতে পেরেছে, আনসার বাংলা টিমের প্রধান মেজর জিয়া গত বছর বাংলাদেশে আসেন পরিচয় লুকিয়ে৷ ভুয়ো পাসপোর্ট ব্যবহার করে তিনি মীরপুরে সেনা নিবাসে ছিলেন বলে জানা গিয়েছে৷ সেখানে সদস্যদের সঙ্গে বৈঠকে বাংলাদেশে জেহাদি কাজকর্ম আরও বাড়ানোর নির্দেশ দেন তিনি৷ বিশেষ করে বাংলাদেশের উত্তর অংশে জেহাদি কাজকর্ম বাড়ানোর বিষয়ে জোর দিতে বলেন তিনি৷

ধৄতদের জিজ্ঞাসাবাদ করে পুলিশ জানতে পেরেছে, আনসার বাংলা টিমে সরাসরি হিংসাত্মক কাজকর্ম করার জন্য তৈরি করা হয়েছিল গোরিলা বাহিনী৷ এদের কাজ হল যে কোনো জায়গায় হামলা করা৷ প্রশিক্ষণ নেওয়ার পর রীতিমতো পরীক্ষা দিয়ে তাবেই এই স্কোয়াডের সদস্য হওয়া যেত৷ কলকাতা পুলিশের হাতে ধৄত সামসেদ মিঞা এই প্রশিক্ষণ নিয়েছেন বলে জানতে পেরেছে পুলিশ৷ সামসেদ কতটা দক্ষ ইতিমধ্যে তার প্রমাণ পেয়েছে পুলিশ৷ লালবাজারেই গোয়েন্দাদের সামনে তিনি বানিয়েছেন আইডি, হ্যাণ্ড গ্রেনেড৷ এই শাখাকে আরও শক্তিশালী করতেই অস্ত্রের প্রয়োজন হয়ে পড়েছিল৷ তাই বিভিন্ন জায়গা থেকে উন্নত মানের অস্ত্র আমদানির উপরেও জোর দেওয়া হয় ৷

সামসেদকে জেরা করে পুলিশ জানতে পেরেছে, আনসার বাংলা টিমকে আরও শক্তিশালী করতে সংগঠনের প্রধান মেজর জিয়া সবার উপর নজরদারির জন্য তৈরি করেছিলেন একটি স্বাধীন শাখা৷ তিনি নিজেই পুরো কাজ তদারকি করতেন৷ এই শাখার সদস্যদের কাজ ছিল এই সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত সকল সদস্যের উপর গোপনে নজরদারি চালানো৷ তারা সংগঠনের আদর্শে মেনে কাজ করছে কিনা সে বিষয়ে সমস্ত রিপোর্ট তৈরি করা হয়৷

এ দিকে আজ বসিরহাটে মনোতষের দু’টি বাড়িতে তল্লাশি চালায় স্পেশাল টাস্ক ফোর্স৷ তার বাড়ি থেকে উদ্ধার করা হয়েছে কয়েক রাউণ্ড কার্তুজ, ম্যাপ ও ডায়েরি৷ এই বাড়ি দু’টি আগেই সিল করে দেওয়া হয়৷ এ দিন সিল ভেঙে বাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে এই সব উদ্ধার করে পুলিশ৷

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here