মুম্বই: গত মাসে মুম্বইয়ের এলফিনস্টোন রোড স্টেশনে ওভারব্রিজে পদপিষ্টের ঘটনায় মৃত্যু হয়েছিল ২৩ জনের। সেই ব্রিজ নতুন করে তৈরি করার জন্য সেনা তলব করল মহারাষ্ট্র সরকার। এই নির্দেশের পরেই বিভিন্ন মহল থেকে তোপের মুখে পড়েছে শাসক দল।

মঙ্গলবার প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমন এবং রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়ালকে নিয়ে এলফিনস্টোন রোড স্টেশন পরিদর্শনে যান মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবীস। সেখানে পৌঁছে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “খুব দ্রুত ব্রিজ করে দিতে পারবে বলে জানিয়েছে সেনা কর্তৃপক্ষ। আমরা তাই এই স্টেশন এবং শহরের আরও দু’টি স্টেশনে ওভারব্রিজ তৈরি করার জন্য সেনার সাহায্য চেয়েছি।”

নির্মলা সীতারমন বলেন, সীমান্তে সেনার দায়িত্ব থাকলেও, দ্রুততার সঙ্গে কাজ করার জন্যই এখানে সেনা তলব করা হয়েছে। তিনি বলেন, “কোথাও প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে ঘটে গেলে সেখানে ছুটে যায় সেনা। এটাই সম্ভবত প্রথম যখন সেনাকে এমন কাজে ডাকা হয়েছে যেটা সেনা আগে কখনও করেনি। আমি সেনার মত জানতে চেয়েছিলাম এই ব্যাপারে। তারা জানিয়ে দিয়েছে, ব্রিজ তৈরি করতে তারা রাজি।”

আরও পড়ুন:  ফুটব্রিজ দুর্ঘটনা : ‘ফুল গির গ্যয়া’ হয়ে গেল ‘পুল গির গ্যয়া’

এই নিয়েই বিভিন্ন মহল থেকে তোপের মুখে পড়েছে মহারাষ্ট্র তথা কেন্দ্রীয় সরকার।  এই ঘটনায় যারপরনাই ক্ষুব্ধ পঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী তথা প্রাক্তন সেনা অফিসার ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিংহ। টুইটারে তিনি বলেন, “সেনার কাজ যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত নেওয়া, এ রকম ভাবে অসামরিক কাজ করা নয়। অসামরিক কাজে প্রতিরক্ষা দফতরকে ব্যবহার কখনোই করা উচিত নয়।”

কাশ্মীরের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ওমর আবদুল্লাহ বলেন, “চরম জরুরি অবস্থার ক্ষেত্রে সেনাকে তলব করা হয়। এখন তো দেখছি স্পিড ডায়ালের মাধ্যমে সেনাকে ডাকা হচ্ছে।”

মুম্বইয়ের কংগ্রেস নেতা সঞ্জয় নিরুপম বলেন, “ব্রিজ তৈরি করার জন্য সেনাকে ডাকা হচ্ছে। এর থেকেই বোঝা যাচ্ছে বিজেপি-শিবসেনা শাসিত মুম্বই পুরসভা কতটা দুর্নীতিগ্রস্ত হয়ে পড়েছে। আশা করব সেনাকে রাস্তা সারাইয়ের কাজে ডাকা হবে না।”

উল্লেখ্য গত ২৯ অক্টোবর, এলফিনস্টোন রোড এবং পারেল স্টেশনের সংযোগকারী সরু ওভারব্রিজে পদপিষ্টের ঘটনা ঘটে। ঘটনায় মৃত্যু হয় ২৩ জনের। তার পর থেকেই ব্রিজটি নতুন করে তৈরি করার দাবি উঠছিল বিভিন্ন মহল থেকে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here