SI soubhagya das

কলকাতা: মাস আটেকের আগের একটি ঘটনার জেরে আইপিএস অফিসার এসএমএইচ মির্জাকে সাসপেন্ড করল রাজ্য সরকার। উল্লেখ্য, নারদ কাণ্ডে এই পুলিশ অফিসারের নাম রয়েছে।

বছর খানেক আগে ঘুস নেওয়ার একটি ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ব্যারাকপুরের স্পেশ্যাল স্ট্রাইক ফোর্সের সাব ইনস্পেক্টর সৌভাগ্য দাসকে সাসপেন্ড করেন কমান্ডিং অফিসার এসএমএইচ মির্জা। এই ঘটনার পর থেকে সৌভাগ্যবাবু মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন। শেষ পর্যন্ত গত ১২ মার্চ তাঁকে তাঁর বাড়িতে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়। আর পাওয়া যায় একটি সুইসাইড নোট। তিনি যে কোনো ঘুসকাণ্ডে জড়িত ছিলেন না, ওই নোটে তিনি তা লিখে যান।

স্বামীর মৃত্যুর জন্য দায়ী ব্যক্তিদের উপযুক্ত শাস্তির দাবিতে ওই দিনই সৌভাগ্যবাবুর স্ত্রী সুচিত্রিতা দাস ব্যারাকপুর থানার আইসি-র কাছে একটি লিখিত আবেদন জমা দেন। তাতে তিনি দু[জন পুলিশ অফিসারের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেন। এঁদের মধ্যে এক জন আইপিএস অফিসার এসএমএইচ মির্জা এবং আরেক জন এসআই শংকর পাল।

letter written by Suchitrita Dasঅভিযোগপত্রে সুচিত্রিতা দেবী লেখেন, “তাকে (সৌভাগ্য) আমি বারবার বোঝানো সত্ত্বেও সে আমাকে বলত যে M.T.O Sankar Pal (S.I) A.B ও C.O S.M.Mirza (I.P.S) দু জনে মিলে আমাকে (সৌভাগ্য) বাঁচতে দেবে না। ওদের জন্য আমাকে হয়তো মরতে হতে পারে।”

সুচিত্রিতা দেবীর ওই অভিযোগের ভিত্তিতে বিভাগীয় তদন্ত শুরু হয়েছিল মির্জার বিরুদ্ধে। শেষ পর্যন্ত তাঁকে সাসপেন্ড করা হল। আইপিএস অফিসার মির্জা সদ্য তৃণমূলত্যাগী ও বিজেপিতে যোগ দেওয়া নেতা মুকুল রায়ের ঘনিষ্ঠ বলে কথিত।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here