khichdi as national food

নয়াদিল্লি: খিচুড়ি, থুড়ি, খিচড়ি ‘ভারতের জাতীয় খাদ্য’ হতে চলেছে? অন্তত কেন্দ্রের খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ শিল্প মন্ত্রকের সে রকমটাই ইচ্ছে। নয়াদিল্লির ইন্ডিয়া গেট লনে ৩ নভেম্বর থেকে ৫ নভেম্বর পর্যন্ত চলবে ‘ওয়ার্ল্ড ফুড ইন্ডিয়া’ সেই সম্মেলন। সেই সম্মেলনেই এই ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন দফতরের মন্ত্রী হরসিমরত কৌর বাদল।

মন্ত্রকের তরফে এক সরকারি বিজ্ঞপ্তি জারি করে বলা হয়েছে, বৈচিত্র্যের মধ্যে ঐক্যের যে মহান সংস্কৃতি ভারতের রয়েছে, তার সব চেয়ে প্রতীক হল খিচড়ি। শনিবার নয়াদিল্লির ওই সম্মেলনে এই খিচড়িকে ‘ব্র্যান্ড ইন্ডিয়া ফুড’ হিসাবে তুলে ধরা হবে।

ওই সম্মেলনে প্রখ্যাত শেফ সঞ্জীব কপূর একটা দৈত্যাকার কড়াইয়ে ৮০০ কেজি ‘খিচড়ি’ তৈরি করবেন। চাল, মুগ ডাল, জোয়ার, বাজরা, বার্লি, নানা মশলা ও খাবারের রং দিয়ে বানানো হবে ওই খিচড়ি।

ওই সম্মেলন উপলক্ষে মঙ্গলবার একটি প্রাথমিক অনুষ্ঠানে মন্ত্রী বলেন, খিচড়ি ভারতের একটি পুষ্টিকর, স্বাস্থ্যকর খাদ্য। ধনী, দরিদ্র নির্বিশেষে সবাই খিচড়ি খায়। বৈচিত্র্যের মধ্যে ঐক্যের প্রতীক হল এই খিচড়ি। তাই একেই ভারতীয় খাদ্যের ব্র্যান্ড হিসাবে নির্বাচিত করা হয়েছে।”

কেন্দ্রীয় মন্ত্রকের এই ঘোষণার সঙ্গে সঙ্গে সোশ্যাল মিডিয়ায় শুরু হিয়ে গিয়েছে নানা মজার মন্তব্য। দেখে নিই তার এক ঝলক।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here