a scene from mersal

চেন্নাই: ‘মেরসাল’-এর সেনসর সার্টিফিকেট প্রত্যাহার করে নেওয়ার আর্জি জানিয়ে যে আবেদন পেশ করা হয়েছিল, শুক্রবার মাদ্রাজ হাইকোর্ট তা খারিজ করে দিয়েছে। ‘মেরসাল’-এ জিএসটি নিয়ে মিথ্যা প্রচার করা হচ্ছে, এই অভিযোগ করে উচ্চ আদালতে জনস্বার্থের মামলাটি (পিল) পেশ করেন এ অশ্বথানম নামে এক আইনজীবী।

আরও পড়ুন ‘মেরসাল’ ইস্যু: বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে তোপ দাগায় অভিনেতা বিশালের বাড়িতে আয়কর হানা

এই ‘পিল’ খারিজ করে দিয়ে বিচারপতি এম এম সুন্দ্রেশ এবং বিচারপতি এম সুন্দরের ডিভিশন বেঞ্চ বলে, পরিণত গণতন্ত্রে সংখ্যালঘুদের কণ্ঠ দমিয়ে রাখা যেতে পারে না। দর্শকরাই ঠিক করবেন, তাঁরা একটা ফিল্ম দেখবেন কি দেখবেন না। বিচারপতিদ্বয় ওই আইনজীবীর উদ্দেশে বলেন, প্রতিবাদ যদি করতেই হয়, তা হলে উনি অস্পৃশ্যতা এবং অন্যান্য সামাজিক কুপ্রথার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করুন।

‘মেরসাল’-এ জিএসটি নিয়ে কিছু কথোপকথন আছে। ওই কথোপকথন নিয়ে তামিলনাড়ু বিজেপির রাজ্য সভাপতি তামিলিসাই সৌন্দ্ররাজন বিতর্ক বাধাতেই ‘মেরসাল’ নিয়ে প্রকাশ্যে ঝড় ওঠে। আবেদনকারী বলেন, ওই ফিল্মে জিএসটি নিয়ে ভুল তথ্য আছে যার ফলে নতুন কর-জমানা নিয়ে মানুষের ভুল ধারণার সৃষ্টি হতে পারে। আদালত বলে, প্রত্যেকেরই নিজস্ব মতামত প্রকাশ করার অধিকার আছে।

আবেদনকারী বলেন, ওই ফিল্মে ‘ডিজিটাল ইন্ডিয়া’ প্রকল্প নিয়ে মজা করা হয়েছে। ফিল্মে একটা দৃশ্যে আছে, কমেডিয়ান বাদিবেলু মাংসে ভর্তি তাঁর ওয়ালেট দেখিয়ে বলছেন আজকাল কেউ মানিব্যাগে টাকা রাখে না। কারণ এটা তো ‘ডিজিটাল ইন্ডিয়া’। ওই দৃশ্যের উল্লেখ করে আবেদনকারী বলেন, “তারা বলছে ভারতে কোনো টাকা নেই। এবং তা নিয়ে কমেডি করছে।”

আরও পড়ুন: ‘গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু তুলে ধরা হয়েছে’, মেরসালকে ধন্যবাদ দিলেন রজনী

বিচারকরা তাঁকে পালটা প্রশ্ন করে বলেন, আপনি জানেন ভারতে কত লোক অপুষ্টিতে ভোগে? বিরোধী নেতারা বিমুদ্রাকরণের বিরুদ্ধে বলেছেন। তা বলে আমরা কি তাঁদের বিরুদ্ধে মামলা করতে পারি?”

যখন ওই আবেদনকারী চাপাচাপি করতে থাকেন এবং বলতে থাকেন, কথাবার্তাগুলো ভুল, তখন বিচারপতিরা তাঁর কাছে জানতে চান, বিষয়টা নিয়ে তিনি এত বাড়াবাড়ি করছেন কেন?

তাঁরা বলেন, “অনেক ফিল্মে এ রকম দৃশ্য থাকে, যেখানে হিরো বড়োলোকের বাড়ি থেকে চুরি করে গরিবদের মধ্যে বিলি করে। আপনি যদি সামাজিক ভালোমন্দ নিয়েই এতই চিন্তিত হন, তা হলে আপনি ফিল্মের সেই সব দৃশ্যে আপত্তি জানিয়ে আদালতে আসুন যেখানে মদ খাওয়া আর ধূমপানের দৃশ্য দেখা যায়। অক্ষম মানুষকে যদি ফিল্মে খারাপ ভাবে দেখানো হয়, তা হলে তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়ে আদালতে আসুন। এ সব ব্যাপারস্যাপার নিয়ে আসবেন না।”

আরও পড়ুন: মেরসাল ইস্যু: সমালোচনার দরজা বন্ধ, রাজনীতিবিদ থেকে চলচ্চিত্রজগতের তোপের মুখে বিজেপি

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here