মোদী রাহুল

জগদলপুর: ‘আর্বান নকশালদের’ প্রসঙ্গ তুলে কংগ্রেসের বিরুদ্ধে নজিরবিহীন আক্রমণের পথ নিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তার পালটা দিলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীও।

কয়েক দিন পরেই ভোট। তার আগে ছত্তীসগঢ়ে উত্তপ্ত রাজনৈতিক আবহে শুক্রবার একই সঙ্গে ছত্তীসগঢ়ে নির্বাচনী প্রচারে ঝড় তুললেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী৷ এক দিকে যখন কংগ্রেস শিবিরের বিরুদ্ধে মাওবাদীদের ইন্ধন দেওয়া এবং দুর্নীতির অভিযোগে সরব প্রধানমন্ত্রী তখন অন্য দিকে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে একাধিক দুর্নীতির অভিযোগে সরব রাহুল৷

শুক্রবার মাওবাদী -অধ্যুষিত বস্তার জেলায় জগদলপুরে ভোটের প্রচারে যান প্রধানমন্ত্রী৷ প্রচারে কংগ্রেসকে নজিরবিহীন ভাবে আক্রমণ করেন তিনি।  কংগ্রেসকে ‘শহুরে নকশাল’ বা ‘আর্বান নকশাল’দের সমর্থনকারী বলে আক্রমণ করে মোদী বলেন, “শহুরে নকশালরা শীতাতপনিয়ন্ত্রিত ঘরে থাকে, বিদেশে পড়াশোনা করে, দামি গাড়িতে ঘুরে বেড়ায় এবং ভারতে এসে বিচ্ছিন্নতাবাদের বিষবাষ্প ছড়ায়৷” পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী অভিযোগ করেন, দশ বছর কেন্দ্রের ক্ষমতায় থাকার পরেও এ রাজ্যের কোনো উন্নতি করেনি কংগ্রেস নেতৃত্বাধীন ইউপিএ সরকার৷ পাশাপাশি ছত্তীসগঢ়ে গত ১৫ বছরে গেরুয়া শিবিরের কর্মকাণ্ডের খতিয়ান তুলে ধরেন৷

উল্লেখ্য, নির্বাচনে আগে ছত্তীসগঢ়ের পরিস্থিতি বেশ অগ্নিগর্ভ। মাওবাদী হানার একাধিক ঘটনা ঘটেছে। মৃত্যু হয়েছে জওয়ান এবং সাংবাদিকেরও৷

তবে মোদীর কংগ্রেসকে আক্রমণের আগেই কেন্দ্রের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন রাহুল৷ শুক্রবার তিনি কাঁকের জেলার পাখানজোড়ে নির্বাচনী প্রচারে যান৷ সেখানে গিয়ে একাধিক দুর্নীতির অভিযোগে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সরব হতে দেখা গিয়েছে তাঁকে৷ কংগ্রেস সভাপতির আক্রমণের তালিকায় ঠাঁই পেয়েছে নীরব মোদী থেকে শুরু করে বিজয় মালিয়া, রাফাল-দুর্নীতি থেকে শুরু করে নোট বাতিল-সহ একাধিক ইস্যু৷

আরও পড়ুন ৯ দিনের মাথায় ফের বাড়ল এলপিজি সিলিন্ডারের দাম!

সরকারের বিরুদ্ধে তোপ দেগে রাহুল বলেন, “আমরা সবাই নীরব মোদীকে তো চেনেন। ওই ভদ্রলোক লন্ডন পালিয়ে যাওয়ার আগে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে গিয়েছিল।”

নভেম্বরের ১২ এবং ২০ তারিখ ভোটগ্রহণ ছত্তীসগঢ়ে। কয়েকটি সমীক্ষা বিজেপির দিকে পাল্লা ভারীর কথা বললেও হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়েরই ইঙ্গিত দেওয়া হয়েছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here