80 years old mother
নিজস্ব সংবাদদাতা, দক্ষিণ ২৪ পরগণা: দেখা গেল পুলিশের মানবিক মুখ।
সম্পত্তি লিখে না দেওয়ার কারণে শীতের রাতে ৮০ বছরের বৃদ্ধাকে মারধর করে বাড়ি থেকে বের করে দেওয়ার অভিযোগ ওঠে ছোটো বৌমার বিরুদ্ধে। রাতেই অসহায় ওই বৃদ্ধা সোনারপুর থানায় দ্বারস্থ হয়ে তাঁর ছোটো ছেলে সন্টু ঘোষ আর ছোটো বৌমা কৃষ্ণা ঘোষের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন। সোনারপুর থানার আইসি পরেশ রায়ের নির্দেশে পুলিশ সোমবার রাতেই নিজেদের গাড়িতে চাপিয়ে ওই বৃদ্ধাকে বাড়িতে পৌঁছে দিল। একই সঙ্গে ছোটো ছেলে আর বৌমাকে কড়া ভাবে সতর্ক করে দিল।
ঘটনাটি ঘটে সোনারপুর থানার ঘোষপাড়া এলাকার। এই ঘটনার জেরে এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে। স্বামীর মৃত্যুর পর সোনারপুরের ঘোষপাড়া এলাকায় নিজের বাড়িতেই থাকেন ৮০ বছরের বৃদ্ধা অনিতা ঘোষ। বড়ো ছেলে সুশীল ঘোষ আর ছোটো ছেলে সন্টু ঘোষ পরিবার নিয়ে ওই বাড়িতেই থাকেন। এর আগেও দু’বেলা এক মুঠো খাবারের জন্য আদালতের দারস্থ হয়েছিলেন বৃদ্ধা মা। মামলায় হেরে বড়ো ছেলে সুশীল ঘোষ মাকে মাসিক ২৫০ টাকা করে দিতেন। এ ছাড়া অন্যান্য আত্মীয়দের আর্থিক সাহায্যে দিন গুজরান করতেন বৃদ্ধা।
বৃদ্ধার অভিযোগ, বড়ো ছেলে সোনার দোকানে কাজ করে আর ছোটো ছেলে বাড়িতেই একটি হার্ডওয়্যারের দোকান চালায়। বড়ো বা ছোটো কেউই নজর দেয় না মায়ের দিকে। এর উপর গত কয়েক দিন ধরে ছোটো ছেলে আর ছোটো বৌমা সম্পত্তি লিখে দেওয়ার জন্য মারধর করছিল। সোমবার রাতে ছোটো বৌমা কৃষ্ণা ঘোষ অত্যাচার করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়, ছেলে কোনো প্রতিবাদ করেনি। সোনারপুর থানার দ্বারস্থ হওয়ার পর পুলিশ তাঁকে বাড়ি পৌঁছে দেয়।
এই ঘটনায় প্রতিবেশীরাও ছোটো বৌমা আর ছোটো ছেলের শাস্তি দাবি করেছেন। একই সঙ্গে সোনারপুর থানার পুলিশের ভূমিকার প্রশংসা করে সাধুবাদ জানিয়েছেন।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন