paradise papers

ওয়েবডেস্ক: দু’দিন পরেই ৮ নভেম্বর। বিমুদ্রাকরণের এক বছর। ‘কালো টাকা বিরোধী’ দিবস হিসেবে পালন করবে কেন্দ্র। কিন্তু তার ঠিক আগে কর ফাঁকি বিষয়ে এমন নথি প্রকাশিত হল, যা ভারত তো বটেই, পুরো বিশ্বকে নাড়িয়ে দিয়েছে।

ঠিক দেড় বছর আগে প্রকাশ্যে এসেছিল পানামা পেপার কাণ্ড। ঘটনার অভিঘাতে গদি হারাতে হয়েছে পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফকে। শুধু কি নওয়াজ, নাম ছিল বিশ্বের তাবড় তাবড় নেতার। এ বার প্রকাশ্যে এল প্যারাডাইস পেপার। কর ফাঁকিদাতাদের তালিকা প্রকাশিত হয়েছে প্যারাডাইস পেপারে। সেখানে রয়েছে ৭১৪ জন ভারতীয়দের নাম। কংগ্রেস এবং বিজেপির রাজনীতিকদের পাশাপাশি নাম রয়েছে অভিনেতা, শিল্পপতি, ব্যবসায়ীদেরও।

প্যারাডাইস পেপারের এই নথি পাওয়া গিয়েছে দু’টি বিদেশি সংস্থার থেকে। সংস্থা দু’টি হল বারমুডার অ্যাপেলবাই এবং সিঙ্গাপুরের এশিয়াসিটি। ১১৯ বছরের পুরোনো সংস্থা অ্যাপলবাইয়ের কাজ মূলত ব্যক্তি বা সংস্থাকে কর ফাঁকি দিতে সাহায্য করা এবং তাদের অ্যাকাউন্ট দেখভাল করা। নথিতে দেখা যাচ্ছে কর দিতে হয় না বিশ্বের এমন ১৯টা জায়গায় গোপনে সম্পত্তি কিনেছেন এই কর ফাঁকিদাতারা।

কর ফাঁকি সংক্রান্ত দু’টি সংস্থার তথ্য প্রথমে প্রকাশিত হয়েছে জার্মান সংবাদপত্র ‘সিউদডয়েশে ৎসাইটুং’-এ। এই ব্যাপারে তদন্তে নেমেছেন ৯৬টি সংবাদসংস্থার তদন্তকারী সাংবাদিকদের নিয়ে তৈরি ইন্টারন্যাশনাল কনসোর্টিয়াম অফ ইনভেস্টিগেটিভ জার্নালিস্টস (আইসিআইজে)। ভারতে এই তদন্ত করছে ইংরেজি দৈনিক ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

মোট ১৮০টি দেশের কর ফাঁকিদাতাদের নাম রয়েছে এই নথিতে। এই তালিকায় উনিশতম স্থানে রয়েছে ভারত।

তালিকায় প্রভাবশালী ভারতীয়রা

সব থেকে চাঞ্চল্যকর তথ্য হল, নন্দনলাল খেমকা প্রতিষ্ঠিত দ্য সান গ্রুপ সংস্থা অ্যাপলবাইয়ের দ্বিতীয় বৃহত্তম আন্তর্জাতিক খদ্দের। বিদেশে ১১৮টি আলাদা আলাদা সংস্থা রয়েছে দ্য সান গ্রুপের। শুধু সান গ্রুপই নয়, সিবিআই এবং ইডি-এর নজরে বা তদন্তে থাকা অনেক সংস্থাই অ্যাপেলবাইয়ের খদ্দের বলে জানা গিয়েছে।

প্যারাডাইস পেপারের নথিতে ভারতের আরও অনেক সংস্থা এবং ব্যক্তিদের নাম পাওয়া গিয়েছে। সান গ্রুপের পাশাপাশি রয়েছে এসার-লুপ, ২জি দুর্নীতিতে যাদের নাম জড়িয়েছিল। রয়েছে এসএনসি লাভালিন সংস্থা যাতে নাম জড়িয়েছিল কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারাই বিজয়েনের। পরে অবশ্য বেকসুর খালাস পেয়ে যান বিজয়ন। রাজস্থানে অ্যাম্বুলেন্স দুর্নীতিতে জড়িত সংস্থা জিকুইস্টা হেলথকেয়ারের নামও রয়েছে, এই সংস্থার সাম্মানিক ডিরেক্টর ছিলেন সচিন পাইলট এবং কার্তি চিদম্বরম। নাম রয়েছে ওয়াইএসআর কংগ্রেসের প্রধান জগন্মোহন রেড্ডিরও।

ব্যক্তি হিসেবে এই তালিকায় নাম রয়েছে অমিতাভ বচ্চন, নিরা রাদিয়া, সঞ্জয় দত্তের স্ত্রী মান্যতা দত্ত এবং বিজেপি নেতা জয়ন্ত সিনহারও। উল্লেখ্য, জয়ন্ত সিনহা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। নাম রয়েছে বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ আরকে সিংহ এবং বিজয় মাল্যরও। কর্পোরেট সংস্থা হিসেবে এই তালিকায় রয়েছে জিন্দাল স্টিল, অ্যাপোলো টায়ার্স, হাভেল্‌স, হিন্দুজা, এমার এমজিএফ, ভিডিওকন, হিরানন্দনি গ্রুপ এবং ডিএস কন্সট্রাকশন্স।

আন্তর্জাতিক নাম

ব্রিটেনের রানি থেকে মার্কিন বাণিজ্য সচিব, প্রাক্তন পাক প্রধানমন্ত্রী থেকে ক্যানাডার প্রধানমন্ত্রী, নাম রয়েছে বিশ্বের সব প্রভাবশালী ব্যক্তি এবং সংস্থার। মার্কিন বাণিজ্য সচিব উইলবর রসের সঙ্গে ভ্লাদিমির পুতিনের জামাইয়ের সঙ্গে সম্পর্কের কথাও উল্লেখ করেছে এই নথি। বলা হয়েছে পুতিনের জামাইয়ের গ্যাস উৎপাদনকারী সংস্থার সঙ্গে ব্যবসায়ে যুক্ত এমন একটি ফার্মে শেয়ার রয়েছে রসের।

পাকিস্তানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী শৌকত আজিজ-সহ ১২০ জন রাজনৈতিকের নাম রয়েছে এই নথিতে। এই নিয়ে চতুর্থ এমন নথির ব্যাপারে তদন্ত করল ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস। প্রথমে ছিল ২০১৩-এপ্রিলে ‘অফশোর লিক’। সেখানে নাম ছিল ৬১২ ভারতীয়ের। এর পরে এল সুইস লিক, যেখানে ১১৯৫ জন ভারতীয় ছিলেন। তার পরে এসেছিল পানামা পেপার।

তবে আপাতত প্যারাডাইস পেপারের কম্পনের মাত্রা কোথায় গিয়ে পৌঁছোয় সেটাই দেখার।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here