বেঙ্গালুরুর থেকে কঠিন ছিল পুনের ক্যাচ, জানালেন ঋদ্ধিমান

0
144

কলকাতা: উইকেট কিপার হিসেবে দুর্ধর্ষ ক্যাচ নিয়ে ইতিমধ্যেই বেশ সাড়া ফেলে দিয়েছেন ঋদ্ধিমান সাহা। চলতি অস্ট্রেলিয়া সিরিজেও পরপর দু’টি টেস্টে দু’টি অসাধারণ ক্যাচ নিয়েছেন তিনি। তবে বেঙ্গালুরুতে দ্বিতীয় টেস্টে নেওয়া ক্যাচটা ম্যাচের ফলে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করলেও ঋদ্ধির মতে প্রথম টেস্টে নেওয়া ক্যাচটি নেওয়া তাঁর পক্ষে অনেক কঠিন ছিল।

নিজের নামাঙ্কিত উইকেটকিপিং গ্লাভস উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এসে ঋদ্ধি জানিয়ে দেন, পুনে টেস্টের প্রথম দিন যে ক্যাচটা তিনি নিয়েছিলেন সেখান প্রতিক্রিয়ার দেখানোর সময় (রিয়্যাকশন টাইম) অনেক কম পেয়েছিলেন তিনি। তুলনায় বেঙ্গালুরু টেস্টে ক্যাচটি নেওয়ার ক্ষেত্রে কিঞ্চিৎ বেশি সময় পেয়েছিলেন প্রতিক্রিয়া দেখানোর।

পুনেতে প্রথম টেস্টে উমেশ যাদবের বল খোঁচা লাগে স্টিভ ও’কিফের ব্যাট। নিজের ডান দিকে ঝাঁপিয়ে পড়ে সেই বলটাকে নিজের তালুবন্দি করেছিলেন শিলিগুড়ির পাপালি। অন্য দিকে বেঙ্গালুরুতে রবিচন্দ্রন অশ্বিনের বলে ম্যাথু ওয়েডের ব্যাট-প্যাড ছুঁয়ে ফরোয়ার্ড শর্ট লেগের দিকে উঠে গিয়েছিল বল। সেটাও ঝাঁপিয়ে পড়ে ধরেন ঋদ্ধি।

ঋদ্ধি বলেন, “পুনের ক্যাচটা নেওয়া অনেক বেশি কঠিন ছিল। কারণ, উমেশের মতো জোরে বোলার বল করছিল বলে রিয়্যাকশন টাইম অনেক কম ছিল। সেই ক্যাচটা নেওয়ার পর বিরাট (কোহলি) দারুণ উত্তেজিত ছিল। সবাই আমাকে দারুণ উৎসাহ দিয়েছে।”

মাত্র ২৩টি টেস্ট খেললেও, এখনই দেশের অন্যতম সেরা উইকেটকিপারদের তালিকায় চলে আসার সমস্ত উপকরণ যে তাঁর মধ্যে রয়েছে, তার ইঙ্গিত দিচ্ছেন ঋদ্ধি। তবে তাঁর একটাই আফসোস, অ্যাডাম গিলক্রিস্টের বিরুদ্ধে টেস্ট খেলার সুযোগ পাননি তিনি। তাঁর কথায়, “আইপিএলে গিলক্রিস্টের সংস্পর্শে এসেছিলাম, কিন্তু ইচ্ছা ছিল তাঁর বিরুদ্ধে অন্তত একটা টেস্ট খেলব।”

এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ভারত তথা বাংলার প্রাক্তন উইকেট কিপার দীপ দাশগুপ্ত। তিনি বলেন, জাতীয় দলে ঢুকতে গেলে উইকেটকিপারদের ভালো ব্যাটসম্যান হওয়া প্রয়োজন, এই প্রবাদটা সম্পূর্ণ পালটে দিয়েছেন ঋদ্ধিমান। তিনি বলেন, “ভারতীয় উইকেটকিপিং-এ নতুন দিগন্ত খুলে দিয়েছে ঋদ্ধি।”

এক ক্লিকে মনের মানুষ,খবর অনলাইন পাত্রপাত্রীর খোঁজ

মতামত দিন

Please enter your comment!
Please enter your name here