g d birla school, netajinagar

কলকাতা, ৫ ডিসেম্বর – এ বার পুলিশের জেরার মুখে জিডি বিড়লা স্কুলের প্রিন্সিপ্যাল শর্মিলা নাথ। মঙ্গলবার তাঁকে লালবাজারে কলকাতা পুলিশের সদর দফতরে ডেকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে বলে আগেই জানিয়েছিলেন গোয়েন্দা প্রধান বিশাল গর্গ৷ সেইমতো লালবাজারে তাঁর জেরা করা হল। নির্যাতিতা শিশুটির পরিবারও এ দিন লালবাজারে যান।

৩ ডিসেম্বর রবিবার প্রিন্সিপ্যালের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করেন নির্যাতিতা শিশুটির বাবা৷ সেই অভিযোগের ভিত্তিতেই তাঁর বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র, তথ্যপ্রমাণ লোপাট ও প্রতারণার অভিযোগ আনা হয়েছে। এ ছাড়াও পকসো আইনের ২১ নম্বর ধারায় প্রিন্সিপ্যালের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ৷

এ দিন বেলা ১১টার মধ্যেই শর্মিলা দেবী লালবাজারে পৌঁছে যান৷ তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করেন লালবাজারের উইমেন গ্রিভ্যান্স সেলের আধিকারিকরা৷ গতকাল সোমবার এই শাখার দুই অফিসার জিডি বিড়লা স্কুলে যান৷ তাঁরা সেখানে কয়েক জনের সঙ্গে কথাও বলেন৷ এই ঘটনায় চার সদস্যের একটি বিশেষ কমিটিও তৈরি করা হয়েছে৷ লালবাজারের এক পুলিশ আধিকারিক ছাড়াও রাজ্যের শিক্ষা দফতর, রাজ্য শিশু সুরক্ষা কমিশন, আইসিএসসি বোর্ডের একজন করে আধিকারিক ওই কমিটিতে রয়েছেন৷

শর্মিলা দেবীর বিরুদ্ধে জামিন-অযোগ্য ধারায় অভিযোগ আনা হয়েছে৷ তদন্তের প্রয়োজনে তাঁকে গ্রেফতার করা হতে পারে বলেও জানা গিয়েছে৷ এই ব্যাপারে নির্যাতিতার শিশুর বাবার সঙ্গে গতকালই কথা বলেছেন লালবাজারের গোয়েন্দারা৷ এই ঘটনায় স্কুলের আরও কয়েক জনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে বলে পুলিশ সূত্রে খবর৷

ইতিমধ্যে জি ডি বিড়লা স্কুলের ঘটনা নিয়ে কী ভাবে আন্দোলন করা হবে তা নিয়ে মতান্তর সৃষ্টি হয়েছে অভিভাবকদের মধ্যে। গতকাল নির্যাতিতা শিশুটির বাবা বলেছিলেন মঙ্গলবার লালবাজার অভিযান করা হবে। কিন্তু অভিভাবকদের বিরাট একটা অংশ তাঁর সঙ্গে একমত নন। যদিও মেয়েটির বাবা তাঁর অবস্থানে এখনও অনড়। অভিভাবকদের কেউ কেউ চাইছেন, মিটিং হোক,  আবার প্রিন্সিপ্যালকে গ্রেফতারও করা হোক। আর শিশুটির বাবা ও কিছু অভিভাবক চান, আগে প্রিন্সিপ্যালকে গ্রেফতার করা হোক।
এ দিকে মেডিক্যাল টেস্টের জন্য নির্যাতিত শিশুটিকে এসএসকেএম হাসপাতালে নিয়ে আসা হবে বলে জানা গিয়েছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here