accused teachers taken to court

কলকাতা: শহরের এক নামী স্কুলের নার্সারি ছাত্রীকে যৌন নিগ্রহের ঘটনায় ধৄত দুই শিক্ষক অভিষেক রায় ও মহম্মদ মফিসউদ্দিনকে দু’ দিনের পুলিশ হেফাজতের নির্দেশ দিলেন বিচারক৷ আগামী সোমবার আলিপুর এডিজে স্পেশাল পকসো আদালতে এই মামলার পরবর্তী শুনানি হবে৷ সে দিন ফের বিচারকের কাছে পেশ করা হবে অভিযুক্তদের৷ ওই দিন বিচারকের কাছে নির্যাতিতার গোপন জবানবন্দির আবেদন জানানো হবে বলে জানিয়েছেন পাবলিক প্রসিকিউটার সৌরীন ঘোষাল৷ এ দিন পুলিশের পক্ষ থেকে ১৪ দিনের পুলিশ হেফাজতের আবেদন জানানো হয়৷ সোমবার স্পেশাল কোর্টে তোলা হলে ফের পুলিশ হেফাজতের আবেদন জানানো হবে বলে পুলিশ সুত্রে জানা গিয়েছে৷

শনিবার আলিপুর আদালতে ভারপ্রাপ্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট দেবাশিস বর্মণের এজলাসে এই মামলাটি উঠে৷ মামলার সরকারি আইনজীবী বিচারকের কাছে জানান, শারীরিক পরীক্ষায় নির্যাতিতার উপর যৌন হেনস্থার ঘটনার প্রমাণ পাওয়া গিয়েছে৷ নির্যাতিতা নিজেই অভিযুক্তদের শনাক্ত করেছে৷ অভিযুক্তরা এই ঘটনা এর আগে আর কারওর সাথে ঘটিয়েছে কিনা এবং এই ঘটনায় স্কুল কর্তৃপক্ষের  ভূমিকাও খতিয়ে দেখা প্রয়োজন বলে বিচারককে জানান তিনি ৷

মামলার শুনানি চলাকালীন আদালতের মধ্যেই বিবাদে জড়িয়ে পড়েন অভিযুক্ত ও অভিযোগকারী আইনজীবীরা৷ অভিযুক্তদের আইনজীবী তীর্থঙ্কর রায় জানান, আদালতে যে কাগজপত্র জমা পড়েছিল সেখানে এফআইআর-এর অরিজিনাল কপি দেওয়া হয়নি৷ সেই কারণে বিচারকের কাছে তিনি শুনানি স্থগিতের আবেদন জানান৷ তবে এর পর পুলিশের পক্ষ থেকে এফআইআর-এর একটি জেরক্স কপি আদালতকে জমা দেওয়া হয়৷

priyanka Tibrewal and victim's father bikash roy
আইনজীবী প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল ও নির্যাতিতার বাবা বিকাশ রায়।

অন্য দিকে অভিযোগকারীর আইনজীবী প্রিয়াঙ্কা টিবরেওয়াল এই ঘটনায় পুলিশের বিরুদ্ধে গাফিলতির অভিযোগ এনেছেন৷ তিনি এই ঘটনায় রাজনীতি করার অভিযোগও এনেছেন৷ নির্যাতিতার বাবা অভিযোগ করেন, এত বড়ো ঘটনা ঘটে যাওয়ার পরেও তাঁর বাড়িতে শাসকদলের কোনো নেতা, কর্মী বা জনপ্রতিনিধি কেউই আসেননি৷ এই ঘটনায় তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন৷ অভিযুক্তদের পক্ষে আইনজীবী শাসকদলের ঘনিষ্ঠ বলে অভিযোগ করেন তিনি ৷

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here