shyam saran negi

নয়াদিল্লি: তাঁর বয়স ১০০ ছাড়িয়েছে। ক্রমশ অশক্ত হয়ে পড়ছেন। তাই ভোটের দিন কিন্নৌর জেলা প্রশাসন তাঁর জন্য গাড়ির ব্যবস্থা করছে। তাঁকে ভোটকেন্দ্রে নিয়ে যাবে, তাঁর ভোট দেওয়া হয়ে গেলে বাড়ি পৌঁছে দেবে।

২০১৪-এর লোকসভা নির্বাচনে তাঁর নাম মুখে মুখে ছড়িয়ে পড়েছিল। ভোট দেওয়া মানুষের অধিকার, এটা বোঝাতে গুগুল তাঁকে নিয়ে একটা প্রচার চালিয়েছিল, নাম ছিল ‘প্লেজ টু ভোট’। গুগুল-এর সেই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গিয়েছিল।

তিনি শ্যাম শরণ নেগি। হিমাচল প্রদেশের কিন্নৌরের বাসিন্দা, অবসরপ্রাপ্ত স্কুলশিক্ষক, স্বাধীন ভারতের প্রথম ভোটার। চলুন বুঝে নিই, কেন তিনি স্বাধীন ভারতের প্রথম ভোটার।

স্বাধীন ভারতে প্রথম সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় ১৯৫২ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে। কিন্তু দেশের সর্বত্র এক সময়ে ভোট হতে পারেনি। বিভিন্ন দফায় ভোট হয়েছিল। আর প্রাকৃতিক কারণে প্রথম ভোট হয়েছিল হিমাচলের কিন্নৌরে। শীতকালটা বরফে প্রায় ঢাকা থাকে কিন্নৌর। সেই সময় ভোট করা অসম্ভব বলে কিন্নৌরে ভোট নেওয়া হয় ১৯৫১ সালের ২৫ অক্টোবর। তাই স্বাধীন ভারতের নাগরিক হিসাবে প্রথম ভোটদানের সুযোগ পান কিন্নৌরের মানুষজন। তাঁদের মধ্যে প্রথম ভোট দেন শ্যাম শরণ নেগি।

তাঁর পুত্রবধূ সুরমা দেবী জানালেন, তাঁর শ্বশুরমশাই একটা অনুপ্রেরণা। ভারত স্বাধীন হওয়ার পর থেকে আজ পর্যন্ত এমন একটা নির্বাচনও যায়নি যে তিনি ভোট দেননি।

আগামী ৮ নভেম্বর হিমাচল প্রদেশে নির্বাচন। সম্মুখেসমরে অবতীর্ণ দু’টি দল, কেন্দ্রের শাসকদল বিজেপি এবং রাজ্যের শাসকদল কংগ্রেস। তৃতীয় দল হিসাবে ভোটের ময়দানে রয়েছে সিপিএম।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here