নিজস্ব সংবাদদাতা, জলপাইগুড়ি: খাদ্য সাথীর পর এ বার স্বাস্থ্য সাথী। এই প্রকল্পের উদ্যোগ নিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের পরিবার কল্যাণ দফতর। আগামী ৩০ ডিসেম্বর কলকাতায় নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে এই প্রকল্পের সূচনা করবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। সে দিনই বেশ কিছু উপভোক্তার হাতে তুলে দেওয়া হবে স্বাস্থ্য সাথী স্মার্টকার্ড। ।

মঙ্গলবার জলপাইগুড়ি জেলা স্বাস্থ্য দফতরে এই নিয়ে একটি প্রস্তুতি বৈঠক হয়। জেলা স্বাস্থ্য আধিকারিকরা ছাড়াও এই বৈঠকে ছিলেন রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের সহকারী সচিব তুষারকান্তি পাঠক।

কী সুবিধে পাওয়া যাবে এই প্রকল্পে?

১) বছরে ১,৫০,০০০ টাকা পর্যন্ত স্বাস্থ্যবিমা।

২) স্মার্টকার্ড নিয়ে দেশের বিভিন্ন নথিভুক্ত সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে সম্পুর্ণ বিনামূল্যে চিকিৎসা। 

৩) ক্যান্সার, নিউরো সার্জারির মতো চিকিৎসার ক্ষেত্রে ৫ লক্ষ টাকা পর্যন্ত সুবিধা।

৪) একটা স্মার্টকার্ডে পরিবারের সমস্ত সদস্যের পরিষেবা।

তবে এখন কিছু বিশেষ শ্রেণির মানুষই এই পরিষেবা পাবেন বলে স্বাস্থ্য দফতর সূত্রে খবর।

কারা পাবেন স্বাস্থ্য সাথী স্মার্টকার্ড?

১) সিভিক পুলিশ ভলান্টিয়ার

২) ভিলেজ পুলিশ ভলান্টিয়ার

৩) হোমগার্ড

৪) অঙ্গনওয়াড়ি কর্মী

৫) পৌরসভার, অর্থ দফতরের অন্তর্গত ঠিকাকর্মীও চুক্তিবদ্ধ কর্মী 

৬) সিভিল ডিফেন্স ভলান্টিয়ার

৭) অসংগঠিত ক্ষেত্রের শ্রমিক

তুষারকান্তিবাবু জানিয়েছেন, গোটা রাজ্যেই প্রাথমিক প্রস্তুতির কাজ শেষ। উপভোক্তাদের স্মার্টকার্ডের সঙ্গে দেওয়া হবে একটি বই, যেখানে কোন জেলায় কোন হাসপাতালে এই সুবিধা পাওয়া যাবে তার তালিকা থাকবে। ইতিমধ্যে শুধুমাত্র জলপাইগুড়ি জেলাতেই প্রায় দেড় লক্ষ আবেদন জমা পড়েছে বলে জানিয়েছেন জেলা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিক জগন্নাথ সরকার।

উপভোক্তাদের সুবিধের জন্য থাকছে স্বাস্থ্য সাথী মোবাইল অ্যাপ ও টোল ফ্রি নম্বর, ১৮০০-৩৪৫-৫৩৪৮।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here