ওয়াশিংটন : দেশের দক্ষিণসীমায় মেক্সিকো সীমান্ত বরাবর ২০০০ মাইল দেওয়াল তোলার আদেশে সই করলেন নতুন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প।  নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি দেওয়া আর তা করে দেখানো — দুটোর মধ্যে দূরত্ব অনেক। কিন্তু নতুন মার্কিন প্রেসিডেন্ট পদে পদে প্রমাণ করতে উঠে পড়ে লেগেছেন যে তিনি কথা দিয়ে কথা রাখেন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের যে সব শহর নথি-বহির্ভূত অভিবাসীদের আশ্রয়স্থল, তাদের সাহায্য কমিয়ে দেওয়ার প্রশাসনিক নির্দেশেও সই করেছেন ট্রাম্প। 

বুধবার হোমল্যান্ড সিকিউরিটি বিভাগে এক অনুষ্ঠানে বিভিন্ন নির্দেশে সই করার পর তিনি বলেন, মেক্সিকো সীমান্তে দেওয়াল তোলার কথা গোড়া থেকেই বলে আসছি। দেওয়াল তোলা হলে দুই দেশেরই নিরাপত্তা বাড়বে। যে রাষ্ট্রের সীমান্ত নেই, সেই রাষ্ট্র রাষ্ট্রই নয়। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র তার নিজের সীমান্ত নিয়ন্ত্রণ করার অধিকার ফিরে পাচ্ছে। এবিসি নিউজের সঙ্গে এক সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প বলেন, “অবিলম্বে দেওয়ালের নকশা তৈরির কাজ শুরু হয়ে যাবে। আর দেওয়াল তোলার কাজ শুরু হবে মাস খানেকের মধ্যে। দেওয়াল তোলার পুরো খরচ মেক্সিকো দেবে।” 

আর এখানেই যত গোল। দেশের রাজনৈতিক  ও অর্থনৈতিক দিশা কী হবে, তা নিয়ে মেক্সিকানদের মধ্যে যতই মতবিরোধ থাক না কেন, একটা ব্যাপারে সবাই এক মত — আমেরিকার সঙ্গে তাঁরা দেওয়াল চান না। দেশের প্রেসিডেন্ট থেকে কারখানার শ্রমিক, সবাই এক বাক্যে একটা কথা বলেন, দেওয়াল তোলার জন্য তাঁরা যুক্তরাষ্ট্রকে একটা পয়সাও দেবেন না। তাঁরা মনে করেন, দেওয়াল তোলা হলে পরিবারের মধ্যে বিভাজন হবে, মরশুমি কাজের জন্য উত্তরে যেতে পারবেন না মানুষ। আর এক দল মানুষ আরও এগিয়ে বলেন, তাঁরা এই বর্ণবাদী, বিদেশাতঙ্ক নীতি মানেন না।

মেক্সিকো যা-ই ভাবুক, মার্কিন মুখপাত্র সিয়ান স্পাইসার বলেছেন, “দক্ষিণ সীমান্তে একটা বড়ো বেড়া গড়ে তোলা হবে। এটা শুধু নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি রক্ষাই নয়, আমাদের আলগা সীমান্তকে নিরাপদ করার প্রথম পদক্ষেপ।  এর ফলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে মাদক ও অপরাধ চালান বন্ধ হবে, বন্ধ হবে অবৈধ অনুপ্রবেশ।”

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here