mysterious death in sonarpur

সোনারপুর: বন্ধ ঘর থেকে উদ্ধার হল মহিলার রক্তাক্ত ও পচাগলা মৃতদেহ। এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়াল এলাকায়।

ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগণার সোনারপুর থানার রাধাগোবিন্দপল্লিতে। মাস দুয়েক ধরে স্থানীয় সন্ধ্যা প্রামাণিকের বাড়িতে ভাড়া থাকতেন ওই মহিলা ও তাঁর স্বামী। নিজেদের দম্পতি পরিচয় দিয়েই এলাকায় ঘর ভাড়া নিয়েছিলেন। কিন্তু গত শনিবারের পর থেকে তাঁদের আর কেউ দেখা পাননি।

বুধবার সকালে স্থানীয় মানুষজন পচা গন্ধ পান ওই দম্পতির বন্ধ ঘরের ভিতর থেকে। পিছনের জানলার ফাঁক দিয়ে স্থানীয় মানুষজন উঁকি দিতেই দেখেন বিছানার উপরে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে রয়েছেন ওই মহিলা। এর পর দরজার তালা ভেঙে ঘরে ঢুকে সকলে দেখেন পূর্ণিমা নামেওই মহিলার রক্তাক্ত মৃতদেহ পড়ে রয়েছে। আর সেই দেহেই পচন ধরে দুর্গন্ধ ছড়িয়েছে এলাকায়। এ বিষয়ে স্থানীয়রা সঙ্গে সঙ্গে সোনারপুর থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়না তদন্তে পাঠায়।

স্থানীয়দের দাবি মাস দুয়েক আগে নিজেদের দম্পতি পরিচয় দিয়ে এই রাধাগোবিন্দপল্লি এলাকায় সন্ধ্যা প্রামাণিকের বাড়িতে ঘর ভাড়া নিয়ে থাকতে শুরু করেন ওই যুগল। সারা দিন ওই মহিলা বাড়িতে থাকলেও রাতে বাড়ি ফিরতেন ওই ব্যক্তি। কিন্তু গত শনিবার এলাকার মানুষজন শেষ বারের মতো তাঁদের দেখেছিলেন। তার পর থেকে ওই ঘরের দরজায় তালা ঝুলছিল। স্থানীয়দের অনুমান, এই মহিলাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে খুন করে পালিয়েছেন তাঁর স্বামী হিসেবে পরিচয় দেওয়া ওই ব্যক্তি। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে সোনারপুর থানার পুলিশ। ওই দম্পতির নাম ও পরিচয় জানার চেষ্টা করছে পুলিশ। স্থানীয় সুত্রে জানা গিয়েছে, ওই মহিলার নাম পূর্ণিমা। তবে তার সঙ্গে এই বাড়িতে থাকা ওই ব্যক্তি আদৌ ওই মহিলার স্বামী কিনা তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here