biggest rosogolla prepared in fulia

নিজস্ব সংবাদদাতা, নদিয়া: সম্প্রতি রসগোল্লার জিআই পেয়েছে বাংলা। বাংলার এই রসগোল্লার সঙ্গে জড়িয়ে আছে নদিয়ার নামও। রসগোল্লা প্রথম তৈরি করেছিলেন নদিয়ার ফুলিয়ার বাসিন্দা হারাধন মণ্ডল, যিনি রানাঘাটের পালচৌধুরী জমিদারবাড়ির ময়রা ছিলেন। সেখানেই তিনি তৈরি করেছিলেন রসগোল্লা। রসগোল্লার সৃষ্টিকর্তাকে সম্মান জানাতে ফুলিয়ায় এ বার বিশ্বের বৃহত্তম রসগোল্লা তৈরি করা হল।

rosogolla is being weighed
ওজন করা হচ্ছে রসগোল্লা।

প্রায় সাত কেজি ছানা দিয়ে তৈরি হল এই রসগোল্লা। এরই সঙ্গে ৫০০ গ্রাম ময়দা এবং ১৫০ কেজির মতো চিনি ব্যবহৃত হয়েছে। সোমবার সকালে এটি ওজন করা হয়। সব মিলিয়ে এর ওজন দাঁড়াল আট কেজি। রস চিপে বের করে নিলে এর ওজন দাঁড়ায় ৬ কেজি ২৩৮ গ্রামের মতো। ফুলিয়া বাসস্ট্যান্ড রোড এলাকায় জুনিয়র ওয়ান হান্ড্রেড ক্লাবের উদ্যোগে রবিবার রাতে এই রসগোল্লা তৈরি হল। এলাকার পাঁচ জন মিষ্টি প্রস্তুতকারক এই কাজ করেছেন। সময় লেগেছে প্রায় পাঁচ ঘন্টার মতো।

রবিবার সন্ধ্যা থেকেই চিনি জ্বাল দিয়ে রস তৈরির কাজ শুরু হয়। তার পর ছানা এবং ময়দা মেখে বিশালাকার উনুনে শুরু হয় রসগোল্লা তৈরির কাজ। গোটা প্রক্রিয়া সম্পন্ন হতে রাত গড়িয়ে যায়। গভীর রাতেও বহু মানুষ ভিড় করেন অভিনব এই রসগোল্লা দেখতে।

উল্লেখ্য, এই জুনিয়র ওয়ান হান্ড্রেড ক্লাবের উদ্যোগে সম্প্রতি ফুলিয়ায় প্রায় তিন কিমি রাস্তায় দীর্ঘতম আলপনা আঁকা হয়েছিল। সেটি পৃথিবীর দীর্ঘতম আলপনা বলে দাবি করে ইতিমধ্যেই গিনেস বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস কর্তৃপক্ষের কাছে আবেদন জানিয়েছেন তাঁরা। এ বার তাঁদের উদ্যোগে এই রসগোল্লা তৈরি হল। এটি পৃথিবীর বৃহত্তম রসগোল্লা বলেই দাবি উদ্যোক্তাদের। ফুলিয়ার বাসিন্দা হারাধন ময়রাই রসগোল্লার সৃষ্টিকর্তা বলে মনে করা হয়। তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা জানাতেই এই উদ্যোগ বলে তারা জানিয়েছেন। জুনিয়র ওয়ান হান্ড্রেড ক্লাবের সাংস্কৃতিক সম্পাদক অভিনব বসাক বলেন, “ফুলিয়ার বাসিন্দা ছিলেন হারাধন মণ্ডল। যিনি প্রথম রসগোল্লা তৈরি করেন। তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা জানাতেই এই উদ্যোগ নিয়েছি। এটি পৃথিবীর বৃহত্তম রসগোল্লা।”

রবিবার রাতে রসগোল্লা তৈরির অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ইতিহাসবিদ তাপস বন্দ্যোপাধ্যায়, জেলা পরিষদের বন ও ভুমি সংস্কার স্থায়ী সমিতির কর্মাধ্যক্ষ রিক্তা কুণ্ডু, শান্তিপুর বড় গোস্বামীবাড়ির সদস্য সত্যনারায়ণ গোস্বামী-সহ বহু বিশিষ্ট ব্যাক্তি। ইতিহাসবিদ তাপস বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “ফুলিয়ার হারাধন মণ্ডলের হাতেই রসগোল্লার সৃষ্টি। এটা রানাঘাট মহকুমার গর্ব। আজকের অনুষ্ঠানে আসতে পেরে ভালো লাগছে।”

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here