কয়েকদিনের শ্রমিক-মালিক টানাপোড়েনের পর লকআউট হয়ে গেল জলপাইগুড়ির নাগরাকাটা ব্লকের নয়াসাইলি চা বাগান। বোনাস নিয়ে অসন্তোষের জেরে বাগান বন্ধ করে চলে গিয়েছেন কর্তৃপক্ষ।

রবিবার সকালে শ্রমিকরা কাজে গিয়ে জানতে পারেন রাতের অন্ধকারে বাগান লকআউট করে দেওয়া হয়েছে। এমনকি বাগান ছেড়ে চলে গিয়েছেন ম্যানেজারসহ অন্যান্য উচ্চপদস্থ কর্মচারী। ঘটনায় হতবাক শ্রমিকরা। ক্ষোভে ফেটে পড়ে কারখানার গেটের সামনে দাঁড়িয়েই আন্দোলন করতে শুরু করে দেন তাঁরা।

tea-1

এবারে পুজোয় নয়াসাইলি চা বাগানে ১৬% বোনাস দেওয়ার কথা ঘোষণা করে বাগান কর্তৃপক্ষ। বুধবার এই সিন্ধান্তের কথা জানতে পারেই কারখানার গেটের সামনে বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন শ্রমিকরা। তাঁদের প্রশ্ন, যেখানে অন্য বাগানগুলি ১৯% বোনাস দিচ্ছে, সেখানে তাঁরা কেন মাত্র ১৬% পাবেন। এতদিন ধরে লাগাতার এই বিক্ষোভ চলছিল। এর জেরেই নিরাপত্তার অভাব রয়েছে, এই অজুহাতে শনিবার রাতেই বাগান ছাড়েন আধিকারিকরা।

বাগানের ম্যানেজার ভরত শর্মা জানিয়েছেন, আর্থিক ক্ষতির মুখে চলছে তাঁদের বাগান। তাই ১৬% বোনাস দেওয়ার সিন্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তিনি আরও জানান, কলকাতায় মালিক ও শ্রমিক পক্ষের প্রতিনিধিদের সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠকেই এই সিন্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। এখন শ্রমিকদের এই আন্দোলন অযৌক্তিক বলে দাবি করেন তিনি।

স্বাভাবিক ভাবেই কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ শ্রমিকরা।তাঁরা দ্রুত বাগান খুলে বোনাস মেটানোর দাবি জানিয়েছেন।

এদিকে মালবাজারের মহকুমা শাসক জ্যোতির্ময় তাঁতি জানিয়েছেন, ত্রিপাক্ষিক বৈঠক করে দ্রুত বাগান খুলে দেওয়ার জন্য পদক্ষেপ করা হবে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here