ছবি সৌজন্য: ফিনানশিয়াল এক্সপ্রেস

কলকাতা: শুরু হয়ে গেছে ২৪তম কলকাতা আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব। এবারের উৎসবে দেখানো হচ্ছে ৩২২টি ছবি। আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব মানেই নানা বিভাগ। নানা দেশ। নানা পরিচালক। যারা নিয়মিত সিনেমা দেখেন, এই বিপুল সিনেমার ভিড়ের মধ্যে থেকে তাঁরা নিজের রুচিমতো ছবি বেছে নেন। দীর্ঘদিন ধরে ফিল্ম দেখার অভিজ্ঞতা তাঁদের এ কাজে সাহায্য করে। কিন্তু সাধারণ চলচ্চিত্রমোদীদের কাছে ব্যাপারটা মোটেও সহজ নয়। চলচ্চিত্র উৎসবের অন্যতম প্রধান আকর্ষণ থাকে সাম্প্রতিক ছবি(এ বছর বা গত বছরের), সেগুলি সম্পর্কে তথ্য পাওয়াও কঠিন।তার ওপর সব ছবিই তো পুরস্কার জয়ী হয় না, কিন্তু পুরস্কার না পাওয়া অনেক ছবিই চমৎকার হয়। তাই সাম্প্রতিক ছবি বাছাইয়ের ক্ষেত্রে ফিল্মমোদীদের সাহায্য করতেই এই প্রতিবেদন। এ প্রসঙ্গে বলে রাখা যাক, নন্দন চত্বরের চারটি পর্দা বাদে সব জায়গাতেই টিকিট কেটে সিনেমা দেখার সুযোগ রয়েছে। এবঁ ওই চারিট হলেও যো-এর আগে ফ্রি পাস বিলি হয়, উৎসাহীরা যো-এর আগে পাস সংগ্রহ করে দেখতেই পারেন(লম্বা লাইন পড়ে কিন্তু)।

কিন্তু সেই আলোচনায় যাওয়ার আগে জানিয়ে রাখা যাক, চলচ্চিত্র উৎসবে প্রতিবারই বিভিন্ন বিখ্যাত পুরনো পরিচালকদের ছবি দেখানো হয়। নতুন যারা সিনেমা দেখতে আসছেন, তেদারে সেগুলি অবশ্যই দেখা উচিৎ। এর মধ্যে অনেক ছবি ইউটিউব বা অন্যত্র লভ্য হলেও, বড়ো পর্দায় ছবিগুলি দেখার অভিজ্ঞতাই আলাদা।

ক্রাইস অ্যান্ড হুইসপার্স: ইহ্গমার বার্গম্যান

এ প্রসঙ্গে প্রথমেই বলা উচিত, শতবর্ষ উপলক্ষ্যে এবার প্রখ্যাত সুইডিশ পরিচালক ইঙ্গমার বার্গম্যানের ৮টি ছবি দেখানো হচ্ছে। নবীনদের সেগুলি অবশ্যই দেখার চেষ্টা করা উচিত।

রেট্রোস্পেকটিভ বিভাগে রয়েছেন ইরানের পরিচালক মজিদ মাজিদি এবং অস্ট্রেলিয়ার ফিলিপ নয়েস। মজিদির ছবি কলকাতা আগে দেখলেও নয়েস খুব বেশি দেখেনি। এদের ছবি যতটা সম্ভব দেখা দরকার, বিশেষত মজিদির।

দ্য সং অফ স্প্যারোজ: মজিদ মজিদি

ফোকাস হিসেবে এবার দেখানো হচ্ছে অস্ট্রেলিয়া ও তিউনিসিয়ার ছবি। এই দেশ দুটিতে কেমন ছবি হগয়, সে সম্পর্কে ধারণা পেতে চেখে দেখতেই পারেন ওই দুই দেশের ছবি।

রেস্টোর্ড ক্লাসিক বিভাগে অপু ট্রিলজি, উদয় শঙ্করের কল্পনা ছাড়াও রয়েছে ফেলিনির আমারকর্ড, আন্তনিওনির ব্লো আপ, অরসন ওয়েলেসের দ্য ম্যাগনিফিসেন্ট অ্যাম্বারসনস এবং ভিত্তোরিও ডি সিকার কিংবদন্তি ছবি বাইসাইকেল থিভস(১৫ নভেম্বর, রবীন্দ্র সদনে সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় শো)। এই চারটি ছবি বড়ো পর্দায় দেখার সুযোগ ছাড়া উচিত নয়।

বাইসাইকেল থিভস:ভিত্তোরিও ডি’সিকা

এই প্রতিবেদনে আমরা প্রতিযোগিতা বিভাগগুলি, বাংলা ছবি, অন্যান্য ভাষার ভারতীয় ছবি, ছোটোদের ছবি নিয়ে আলোচনা করছি না।

ক্লাইম্যাক্স:গ্যাসপার নোয়ে

এবার আসা যাক ‘মায়েস্ত্রো’ বিভাবে। পৃথিবীর নানা প্রান্তের খ্যাতনামা পরিচালকদের ২১টি ছবি রয়েছে এই বিভাগে। সবগুলিউ সাম্প্রতিক ছবি। তার থেকে আমরা কয়েকটি বাছাই করে দিলাম।

অ্যাশ ইজ পিওরেস্ট হোয়াইট(জিয়া ঝ্যাংকে,চিন)

দ্য ইমেজ বুক(জাঁ লুক গদার, ফ্রান্স)

শপলিফটার্স(কোরে হিরোকাজু, জাপান)

সিজন অফ দ্য ডেভিল(লাভ ডিয়াজ, ফিলিপিনস)

থ্রি ফেসেস (জাফর পানাহি, ইরান)

ক্লাইম্যাক্স(গ্যাসপার নোয়ে, ফ্রান্স)

কোয়েনকয়েন অ্যান্ড দ্য এক্সট্রা হিউম্যানস(ব্রুনো দুমঁত, ফ্রান্স)

হোটেল বাই দ্য রিভার(হং স্যাংসো, দক্ষিণ কোরিয়া)

কাপরি রেভোলিউশন(মারিও মারতোনে, ইতালি)

নন ফিকশন(অলিভার অ্যাসায়াস, ফ্রান্স)

দ্য হাউজ দ্যাট জ্যাক বিল্ট(লার্স ভন ত্রায়ার, ডেনমার্ক)

গার্লস অফ দ্য সান: ইভা হাসন

এবার আসা যাক সাম্প্রতিক আন্তর্জাতিক ছবির তালিকায়। সিনেমা ইন্টারন্যাশনাল বিভাগ। সেখান থেকে আমরা বাছাই করে দিচ্ছি কিছু দেখার মতো ছবি।

অ্যাট ওয়ার(ফ্রান্স)

বার্ডস অফ প্যাসেজ(কলম্বিয়া)

ওয়ার্কিং উওম্যান(ইজরায়েল)

এ ল্যান্ড ইমাজিনড(সিঙ্গাপুর)

নাইফ প্লাস হার্ট(ফ্রান্স)

লেস সালোপেস অর দ্য ন্যাচারালি ওয়ানটন প্লেজার অফ স্কিন(কানাডা)

গার্লস অফ দ্য সান(ফ্রান্স)

বেলন(জার্মানি)

সানসেট(হাঙ্গারি)

স্যাভেজ(ফ্রান্স)

স্ট্রিপড(ইজরায়েল)

যাতে সকলেই নিজের এলাকার হলে গিয়ে পছন্দসই ছবি বাছাই করে দেখতে পারেন, সে জন্য তালিকাটি বড়ো রাখা হল। এতে নানা ধরনের ছবিই রাখা হয়েছে। তবে মনে রাখতে হবে সব ছবি সবার পছন্দ হওয়ার কথা নয়। পাশাপাশি ভুললে চলবে না, তালিকায় না থাকা ছবিও অসাধারণ হতেই পারে। কারণ, সাম্প্রতিক ছবি সম্পর্কে পর্যাপ্ত বিশ্বাসযোগ্য তথ্য পাওয়া সহজ নয়। তবু খবর অনলাইনের পাঠকদের জন্য আমাদের এই প্রয়াস।

কোন হলে কখন কোন ছবি দেখানো হবে, তা এখানে ক্লিক করে জেনে নিন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here