আই স্টিল হাইড টু স্মোক

আজকের আন্তর্জালের দুনিয়ায় দুনিয়ার সিনেমা অনেকটাই চলে এসেছে ফিল্মমোদীদের হাতের মুঠোয়। তবু আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের গুরুত্ব আলাদা। কারণ পৃথিবীর নানা প্রান্তের পরিচালকদের কাজ, বিভিন্ন দেশের সংস্কৃতির ছোঁয়া পেতে এর কোনো বিকল্প নেই। তার উপর হাল আমলে কোথায় কে ভালো সিনেমা বানাচ্ছেন, তাঁর খোঁজ আমার আপনার মতো সাধারণ ফিল্মপ্রেমীদের রাখা সম্ভব হয় না। তাই চলচ্চিত্র উৎসব আসলে প্রতি বছর আমরা নড়েচড়ে উঠি। সাম্প্রতিক আন্তর্জাতিক ছবি দেখার পাশাপাশি বিভিন্ন খ্যাতনামা পরিচালকের গুরুত্বপূর্ণ কাজগুলি দেখার সুযোগও মেলে এই আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবেই।

কিন্তু উৎসব মানেই প্রায় শ’ দেড়েক সিনেমা। তার মধ্যে থেকে বাছাই করে সিনেমা দেখা সাধারণ দর্শকদের পক্ষে প্রায় অসম্ভব। তাই তাঁদের সাহায্য করার জন্য আমরা বাছাই করে দিলাম কিছু ছবি। একটু বেশি করেই বাছলাম। কারণ, কাজের ফাঁকে সকলে বিভিন্ন সময়ে ছবি দেখবেন। নিজের বাড়ি বা অফিসের কাছাকাছি সিনেমা হলে ছবি দেখবেন। তাই সব ছবি চাইলেও দেখা যাবে না। তবু ফাঁকেফোকড়ে যে ছবিগুলি দেখবেন, সেগুলো দেখে হতাশ যাতে না হতে হয়, তারই প্রয়াস রইল খবর অনলাইনের তরফ থেকে। তবু বলে রাখা দরকার, চলচ্চিত্র উৎসবে খুব খারাপ ছবি কখনওই আসে না। আর নামি পরিচালকদের কোনো কাজই খুব খারাপ হয় না। তবু কোনোটা বেশি ভালো তো হয়ই। তাই বাছাই করতেই হয়।

রাজিয়া

প্রথমেই বলে রাখা ভাল, ফিচার ফিল্ম বিভাগে এবার দুটি প্রতিযোগিতা রয়েছে। একটি ভারতীয় ভাষার ছবির। অন্যটি ‘ইনোভেশন ইন মুভিং ইমেজেস’ বিভাগে। এগুলি যেহেতু প্রতিযোগিতা, তাই তার থেকে ছবি বাছাই করাটা আমরা অনৈতিক মনে করছি। দর্শকরা নিজেরা দেখেই ভালোমন্দ বিচার করবেন তারপর বিচারকদের রায়ের সঙ্গে মিলিয়ে নেবেন।

প্রথমেই আসা যাক মরক্কোর সিনেমার কথায়। কলকাতার দর্শক সেভাবে মরক্কোর ছবি দেখেননি। সে দেশে সাম্প্রতিক কালে কেমন ছবি হচ্ছে, তা বোঝার সুযোগ মিলবে এবারের চলচ্চিত্র উৎসবে। ফরগটেন, বিহাইন্ড ক্লোজড ডোরস, রাজিয়া, অ্যানড্রোমা- ব্লাড অ্যান্ড কোল- এই ছবিগুলি দেখার চেষ্টা করতে পারেন।

ওয়েলকাম টু সারাজাভো

এবারের উৎসবে ফোকাল কান্ট্রি গ্রেট ব্রিটেন। সে দেশের কিছু ক্লাসিক ছবির পাশাপাশি থাকছে সমকালের তিনটি ছবি। সেগুলি সবই ভালো। ক্লাসিকের মধ্যে রয়েছে হিচককের দ্যা লেডি ভ্যানিশেস। থাকছে দ্য লরেন্স অফ অ্যারাবিয়ার মতো কিংবদন্তিসম সিনেমা। এছাড়া রয়েছে পরিচালক মাইকেল উইন্টারবটমের রেট্রোস্পেকটিভ। ওয়েলকাম টু সারাজাভো, দ্য রোড টু গুয়ান্তানামো, অন দ্য রোড এবং আরও তিনটি ছবি। কোনটা ছেড়ে কোনটা দেখবেন, তা আপনিই ঠিক করুন।

প্লয়

এই প্রথম কলকাতায় আসছে থাইল্যান্ডের সমকালীন চলচ্চিত্র পরিচালক পেন-এক রতনারুয়াভের সিনেমা। থাকছে তাঁর ক্রাইম-কমেডি ফান বার কারাওকে এবং সিক্সটি নাইন। থাকছে ‘প্লয়’। আসছে ২০১৭ সালের সিনেমা দ্য সামুই সং। এছাড়া আরও দুটি ছবি। যেটাই সুযোগ পাবেন, দেখবেন।

স্পেশাল স্ক্রিনিং বিভাগে থাকছে কলকাতার বড়ো আপন জাঁ লুক গোদারের ‘রাইজ অ্যান্ড ফল অফ এ স্মল ফিল্ম কোম্পানি’ এবং গত বছর প্রয়াত আন্দ্রে ওয়াজদার ‘আফটার ইমেজ’। এছাড়া স্পেশাল ট্রিবিউট বিভাগের ছবি তো রয়েছেই।

যারা সমকালীন এশিয়ান ছিবির রূপ-রস-গন্ধ চেখে দেখতে চান, তাঁদের জন্য রয়েছে এশিয়ান সিলেক্ট বিভাগ। ভারত ও নেপালের ছবির পাশাপাশি এই বিভাগে রয়েছে আফগানিস্তানের ছবি ‘এ লেটার টু দ্য প্রেসিডেন্ট’ এবং চিনের ছবি ‘ব্যালাড ফ্রম টিবেট’।

অ্যালানিস

এবার আসল কথা। সিনেমা  ইন্টারন্যাশনাল। সাম্প্রতিক কালের বিশ্ব সিনেমার আঁচ পাওয়ার জন্য এই বিভাগটিতেই মূল আকর্ষণ থাকে চলচ্চিত্রমোদীদের। পৃথিবীর নানা প্রান্তের নানা পরিচালকের ছবি থাকে এই বিভাগে। এবারও রয়েছে। ইউরোপ, এশিয়া, লাতিন আমেরিকা, মেক্সিকো – পৃথিবির নানা প্রান্তের ছবিই এসেছে এ বছর। ছবিগুলি যেহেতু সাম্প্রতিক। তাই বাছাই করা অত্যন্ত কঠিন। বাছাইয়ের বাইরেও নিশ্চিত থেকে যাবে ২-৩টি চমকপ্রদ সিনেমা। তবু যেহেতু বাছাই না করে উপায় নেই, তাই নানা মানদণ্ড দিয়ে মেপে আপনাদের জন্য সাজিয়ে দিলাম গোটা কুড়ি ছবি। যেটা পারবেন দেখবেন।

  • আই স্টিল হাইড টু স্মোক- ফ্রান্স
  • অ্যালানিস- আর্জেন্তিনা
  • সুইট কান্ট্রি- অস্ট্রেলিয়া
  • নিকো, ১৯৮৮- ইতালি
  • দ্য মিসান্ড্রিস্ট- জার্মানি
  • ওয়াজিব – প্যালেস্তাইন
  • স্পুর- পোল্যান্ড
  • ড্রাগন ডিফেন্স- কলোম্বিয়া
  • মার্লিয়া দ্য মার্ডারার ইন ফোর অ্যাক্টস- ইন্দোনেশিয়া
  • ক্লোজনেস- রাশিয়া
বিউটি অ্যান্ড দ্য ডগস
  • ইয়েলো- ইরান
  • গোল্ডেন ইয়ার্স – ফ্রান্স
  • লাভলেস- রাশিয়া
  • রেইনবো এ প্রাইভেট অ্যাফেয়ার – ইতালি
  • মাউস – স্পেন
  • এম্মা- ইতালি
  • এনডেনজার্ড স্পেসিস- ফ্রান্স
  • দ্য স্কোয়ার- সুইডেন(২০১৭-র কান ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে পাম ডি’ওর পেয়েছে ছবিটি)
  • ব্লেড অফ ইমমর্টাল- জাপান
  • বিউটি অ্যান্ড দ্য ডগস- তিউনিশিয়া
  • দ্য ইয়ং কার্ল মার্ক্সস- ফ্রান্স
  • ডিস্যাপিয়ারেন্স- নরওয়ে

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here