ওয়েবডেস্ক: নতুন চাকরি নিয়ে মনে উত্তেজনা তুঙ্গে, সেই সঙ্গে বেশ নার্ভাস লাগছে তো? ভাবছেন, কী ভাবে বসের সুনজরে আসবেন? প্রথম দিনেই বস আপনার প্রতি গলে যাবেন, এমন আশা নিশ্চয়ই করছেন না। কিন্তু শুরুটা ভালো ভাবে হলে তার প্রভাবটাও থাকে বেশ অনেক দিন। খানকয়েক টোটকা মেনে চললে কিন্তু আপনারই লাভ। এক নজরে দেখে নেওয়া যাক সে রকম কিছু দাওয়াই।

অফিসে পৌঁছোনোর সময়ে

কেরিয়ারের শুরুতে অফিসে পৌঁছোন ঠিক সময়ে। নতুন চাকরিতে প্রথম দিকে একেবারেই দেরি করবেন না। তাতে বসের মনে হতে পারে, আপনি যথেষ্ট নিয়ম মানেন না। স্বভাবতই বস প্রথম থেকেই আপনার খুঁত ধরতে ব্যস্ত থাকবেন।

প্রথম থেকে অফিসের পরিবেশ বদলানোর চেষ্টা করবেন না

অফিসের কাজের পরিবেশ, বসের কাজ করার স্টাইল আপনার পছন্দ না-ই হতে পারে। তবে শুরুতেই সে সব বদলানোর চেষ্টা করবেন না। আপনার বস আজকে যে জায়গায় দাঁড়িয়ে, সেখানে পৌঁছোতে সময় লেগেছে। প্রথম থেকে তাঁর কাজের সমালোচনা করবেন না। একটু ধৈর্য ধরুন। আপনার কথা শোনার অবস্থা তৈরি হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন।

ডেডলাইন মিস করবেন না

অফিসের কোনো বিশেষ অ্যাসাইনমেন্ট থাকলে সময়ের মধ্যে শেষ করুন। কাজ দিয়ে বসের কাছে নিজের বিশ্বাসযোগ্যতা অর্জন করুন। বস যেন আপনাকে নিয়োগ করা নিয়ে আক্ষেপ না করেন।

অপ্রাসঙ্গিক প্রশ্ন করবেন না

বসের সঙ্গে সহজ সম্পর্ক গড়ে তুলতে কথা বলুন খোলামেলা। কিন্তু কাজের বাইরে অহেতুক ব্যক্তিগত প্রশ্ন করবেন না। এতে কাজের পরিবেশ নষ্ট হয়। চাকরিতে পেশাদারি সম্পর্ক বজায় রাখা জরুরি।

নিজের আইডিয়া সহকর্মীদের সঙ্গে ভাগ করে নিতে দ্বিধা করবেন না

আপনার নিজের মনে হতে পারে বোকা বোকা আইডিয়া, শুনলে বস কী ভাববেন? কিন্তু এ সব ভেবে চুপ থাকবেন না। কাজ সংক্রান্ত নতুন ভাবনা মাথায় এলে সহকর্মী এবং বসের সঙ্গে শেয়ার করুন। হতেই পারে, প্রথম আইডিয়া কারোর মনে ধরল না। দমে যাবেন না। বস বুঝবেন আপনি কাজ নিয়ে ভাবছেন।

অন্যের চোখে আপনার আত্মবিশ্বাস যেন ধরা পড়ে

প্রথম দিন থেকেই আত্মবিশ্বাসী হন। কোনো কাজ না জানলে সেটাও বলুন আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে।

ব্যক্তিগত এবং পেশাদারি পরিসর আলাদা রাখুন

খুব দরকার ছাড়া অফিস চলাকালীন ব্যক্তিগত ফোনকল যতটা সম্ভব কম রিসিভ করুন। জরুরি ফোন হলে অল্প কথায় কাজ সারুন। সহকর্মী এবং বস যেন বুঝতে পারেন আপনি কাজের ব্যাপারে যথেষ্ট সিরিয়াস।

সোশ্যাল মিডিয়ায় বসকে বন্ধুতালিকায় রাখবেন না একেবারে শুরুতেই

আপনার হয়তো সোশ্যাল মিডিয়ায় নিয়মিত অবাধ চলাচল। কিন্তু নতুন চাকরিতে ঢুকে প্রথম দিকে বস কিংবা সহকর্মীদের নিজের বন্ধুতালিকা থেকে দূরে রাখুন।

অফিস পার্টিতে মদ্যপ!! নৈব নৈব চ!

মাত্রাতিরিক্ত পান করে আপনি কী আচরণ করছেন, পরে ভুলে যাবেন। কিন্তু অফিসের সহকর্মীদের মনে থেকে যেতে পারে তা। অতএব অফিস পার্টিতে অ্যালকোহল এড়িয়ে যাওয়াই ভালো।

প্রয়োজনের চেয়ে বেশি চাপ নেবেন না

বস যদি পাঁচ দিনের মধ্যে কোনো কাজ শেষ করতে বলেন, এক দিনে করার চেষ্টা ভুলেও করবেন না। এতে আপনার শরীর তো খারাপ হবেই। কাজের গুণগত মান বজায় থাকবে না। ধীরে সুস্থে সময় নিয়ে কাজ করুন।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here