youngerlookingskin
মুখ থেকে বয়সের ছাপ দূর করতে মেনে চলুন এই পদ্ধতিগুলি

ওয়েবডেস্ক: একই অফিসে চাকরি করেন স্নেহা ও প্রমিতা। দু’জনে অফিস থেকে ফেরার পথে কথা বলতে বলতে হঠাৎই প্রমিতা স্নেহাকে জিজ্ঞেস করে, “আচ্ছা স্নেহাদি তোমার এত সুন্দর ত্বকের রহস্য কি? প্রতিদিন সকালে অফিসে ঢোকার সময়ে তোমার ত্বক যেমন চকচক করে আবার অফিস থেকে বাড়ি ফেরার সময়েও ঠিক একই রকম তোমার ত্বক উজ্জ্বল থাকে। দেখে যেন মনে হয় আয়না লাগানো রয়েছে তোমার মুখে”।

– অথচ সময়ের অভাবে আমার তো ঠিক ভাবে ত্বকের যত্ন নেওয়াই হয় না। এত কাজের চাপ সামলে বাড়ি ফিরে আর ইচ্ছা করে না ত্বকের যত্ন করতে। স্নেহাদি তুমি কী ভাবে ত্বকের যত্ন নেও একটু বলবে।

স্নেহা জানান, “বয়সটা আসলে কিছুই না। হতে পারে আমার বয়স এখন ৩৫ কিন্তু আমি বয়সের কথা মাথায় না রেখে সব সময় চেষ্টা করি কী ভাবে নিজের তারুণ্য ধরে রাখা যায়”। স্নেহা নিজেই প্রমিতাকে জানালেন তাঁর ত্বকের উজ্জ্বলতা সম্পর্কে।

জেনে নেওয়া যাক সেই ৪টি সিক্রেট টিপস সম্পর্কে- 

১। ত্বককে রোদ থেকে বাঁচান

সরাসরি মুখে রোদ লাগানো সবচেয়ে বেশি ক্ষতিকারক। মুখে অতিরিক্ত রোদ লাগা মানেই ইউভি রশ্মি থেকে ত্বকের সেলগুলির ক্ষতি হয়। এতে মুখে বয়সের ছাপ আরও তাড়াতাড়ি পরে। তাই যে কোনও ঋতুতেই বাইরে বেরোনোর ২০ মিনিট আগে মুখে সানস্ক্রিন লাগাতে ভুলবেন না।

২। আইসপ্যাক

সরবত অথবা লস্যিতে তো বরফ দিয়ে খেতে ভালোই লাগে। কিন্তু এর পরেও যে বরফ অনেক কাজে লাগে তা বোধহয় অজানা নয়।

বয়স যতই হোক, মুখ থেকে বয়সের ছাপ দূর করতে সপ্তাহে ২ দিন করে ১-২ টুকরো বরফ দিয়ে নিজের ত্বকের পরিচর্যা করুন। দেখবেন নিজেকেই নিজে চিনতে পারছেন না।

৩। চালের গুড়ো এবং পেঁপে

এই প্যাকটি তৈরি করতে প্রয়োজন হবে পাকা পেঁপে, চালের গুঁড়ো এবং মধু। প্রথমে পাকা পেঁপে খুব ভালো করে চটকে নিতে হবে। তাতে ১ চামচ চালের গুঁড়ো নিয়ে পেস্ট তৈরি করুন। এ বার এর সাথে ৩ চামচ মধু দিয়ে খুব ভালো করে মিশিয়ে এই প্যাকটি পুরো মুখে লাগিয়ে রাখুন ২০ মিনিট। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে নিন। ত্বকের চামড়া ঝুলে গেলে কিংবা কপালে বলিরেখা পড়লেও তা দূর হয়ে যাবে।

[আরও পড়ুন: ত্বকের কোমলতা বাড়ান রেড ওয়াইন ফেসিয়ালে] 

৪। ফল খান

নিজের বয়সকে যদি ধরে রাখতে চান প্রতিদিন নিয়মিত ফল খান। যে ফলটি খেতে আপনি পছন্দ করেন সেটাই খান। এতে ত্বকের উজ্জ্বলতা কোনো কারণে ফিকে হয়ে গেলেও সেই হারিয়ে যাওয়া উজ্জ্বলতাই ফিরে পাবেন ফলে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here