বিয়ে বাড়ি যাওয়ার আগে কী ভাবে মেকআপ করবেন জেনে নিন

ওয়েবডেস্ক: বিয়েবাড়ি মানেই সেজেগুজে একেবারে নিজেকে রঙিন করে তোলা। পোশাক থেকে অলঙ্কার সবকিছুতেই চাই নতুনত্বের ছোঁয়া। কী তাই তো!

কিন্তু শুধু তো পোশাক পরলেই হবে না, তার সঙ্গে চাই মানানসই সাজ। বরং জেনে নেওয়া যাক বিয়েবাড়ির মেকআপের সহজ উপায়গুলি সম্বন্ধে।

 ১. মেকআপ সরঞ্জামের সঠিক নির্বাচন

যখন মেকআপ প্রোডাক্টগুলি কিনবেন তখন অবশ্যই আপনার ত্বকের ধরন এবং স্কিন টোন অনুযায়ী দেখে কিনবেন। আপনার স্কিন যদি অয়েলি হয় এবং যদি আপনি নর্মাল স্কিনের মেকআপ ব্যবহার করে থাকেন তবে তা কোনও ভাবেই বেশীক্ষণ স্থায়ী হবে না। তাই মেকআপের সরঞ্জাম কেনার সময় প্রথমে নিজের স্কিন টাইপ সম্পর্কে জানুন। তার পরে প্রোডাক্ট সম্পর্কে ভালো করে জেনে নিয়ে নিজের প্রয়োজনীয় প্রোডাক্টটি কিনুন।

২. ত্বকের ময়লা দূর করুন

মুখে যদি তেল, ঘাম, ধুলো-ময়লা থাকে, তা হলে তার ওপর মেকআপ করলে কিন্তু মেকআপ ত্বকে ভালো করে বসবে না। এবং কিছু সময়ের মধ্যেই তা নষ্ট হতে শুরু হয়ে যাবে। তাই ত্বক পরিষ্কার না করে কখনোই মেকআপ করা উচিত নয়। তাই প্রথমে ফ্রেশ ওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন, তার পর ভালো করে স্ক্রাবার দিয়ে বিশেষ করে আপনার টি-জোনটি পরিষ্কার করুন। এর পর তুলো দিয়ে মুখে টোনার লাগান। এতে আপনার ত্বক একেবারে ভেতর থেকে পরিষ্কার হয়ে যাবে। এবং মেকআপ ভালো করে মুখের সঙ্গে মিলিয়ে যাবে এবং তা দীর্ঘস্থায়ী হবে।

৩. ত্বককে নমনীয় করে তুলুন

মুখ পরিষ্কার হয়ে গেলে মুখ মুছে এক টুকরো বরফ ভালো করে আপনার মুখে ঠোঁটে, চোখের পাতার ওপর বুলিয়ে নিন। এতে আপনার ত্বক ভেতর থেকে ঠান্ডা হবে এবং ঘাম কম হবে। বরফ লাগানো হয়ে গেলে একটি নরম কাপড় দিয়ে তা মুছে মুখে হালকা করে ময়েশ্চারাইজার মাখুন। এর পর অন্তত ১০ মিনিট অপেক্ষা করুন। কারণ ময়েশ্চারাইজার মাখার পর তা ত্বকের ভেতরে গিয়ে ত্বককে নমনীয় করে তোলে এবং স্কিন পোরগুলিকে ঢেকে দেয় এবং এতে কিছু সময় লাগে। এর ফলে আপনার ত্বক মেকআপের উপযোগী হয়ে ওঠে এবং মেকআপ স্কিন পোরের ভেতরে ঢুকতে পারে না। ঠোঁট দু’টিকেও কিন্তু ময়েশ্চারাইজ করতে ভুলবেন না।

আরও পড়ুন: ত্বকের উজ্জ্বলতা হারাতে বসেছেন? জেনে নিন কমলালেবুর খোসার এই ৫টি গুণ

৪. প্রাইমার ও ফাউন্ডেশন

এ বার সময় মেকআপের অর্থাৎ প্রথমে প্রাইমার এবং তার পর ফাউন্ডেশন লাগিয়ে নিতে হবে। আজকাল কিন্তু বাজারে লং লাস্টিং প্রাইমার ও ফাউন্ডেশন ও ওয়াটার প্রুফ ফাউন্ডেশন কিনতে পাওয়া যায়। তাই যে প্রোডাক্টটি ব্যবহার করবেন চেষ্টা করবেন দামী প্রোডাক্ট ব্যবহার করার।

সবার আগে মুখে ভালো করে প্রাইমার লাগিয়ে নিন। প্রাইমার না লাগিয়ে ফাউন্ডেশন লাগালে তা আপনার ত্বককে খুব তাড়াতাড়ি ড্রাই করে দেয় এবং মেকআপ কিছুক্ষণের মধ্যেই নষ্ট হয়ে যায়। তাই প্রাইমার লাগিয়ে তবেই ফাউন্ডশন লাগান। মনে রাখবেন,  কোনও ভাবেই হাত দিয়ে ঘষে ফাউন্ডেশন লাগাবেন না। ভালো করে ব্লেন্ড করে নিতে হবে ত্বকের সাথে। তবে মেকআপ করার সময়ে মেকআপ ব্রাশ ব্যবহার করুন। তা হলে তা বেশি ভালো করে ত্বকের সাথে ব্লেন্ড হবে এবং বেশীক্ষণ স্থায়ী হবে।

এ ছাড়া চোখে কাজল যাতে না স্মাজ করে তার জন্য ফেস পাউডার চোখের নিচের অংশে লাগান। এ ছাড়া কনসিলার লাগাতে পারেন চোখের মেকআপ বেশীক্ষণ স্থায়ী করার জন্য। লিপস্টিক লাগানোর আগে লিপলাইনার লাগিয়ে নিন এবং ভালো ও বেশিক্ষণ স্থায়ী লিপস্টিক লাগান। লিপলাইনার লাগানোর পর ঠোঁটে পাউডার লাগিয়ে নিন এবং অতিরিক্ত পাউডার ঝেড়ে তার পর লিপস্টিক বা লিপগ্লস লাগান এতে আপনার লিপস্টিক কিন্তু অনেকক্ষণ একই ভাবে থাকবে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here