Connect with us

জীবন যেমন

কনুইয়ে কালো দাগ? এই ৫টি ঘরোয়া পদ্ধতিতে চটজলদি দূর করুন

ওয়েবডেস্ক: যতই হাতে ম্যানিকিওর করুন, কনুইয়ের কালো দাগ যেন কিছুতেই যেতে চায় না। আর ফর্সা সুন্দর হাতে কনুইয়ের ওই কালো দাগ যে কি বাজে লাগে দেখতে, সেটা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। এটা থেকে নিস্তার পাওয়া যে কতটা কঠিন তা হয়ত  অনেকেই জানেন। হাত ফর্সা হলেও কনুইকে ফর্সা করা প্রায় অসম্ভব। কনুইয়ের এই কালো দাগ […]

Published

on

ওয়েবডেস্ক: যতই হাতে ম্যানিকিওর করুন, কনুইয়ের কালো দাগ যেন কিছুতেই যেতে চায় না। আর ফর্সা সুন্দর হাতে কনুইয়ের ওই কালো দাগ যে কি বাজে লাগে দেখতে, সেটা আর বলার অপেক্ষা রাখে না।

এটা থেকে নিস্তার পাওয়া যে কতটা কঠিন তা হয়ত  অনেকেই জানেন। হাত ফর্সা হলেও কনুইকে ফর্সা করা প্রায় অসম্ভব। কনুইয়ের এই কালো দাগ দূর হবে মাত্র ১ সপ্তাহে, যদি ঠিকভাবে যত্ন নেন তবেই।

তা হলে চলুন জেনে নেওয়া যাক-

১। পাতিলেবু

উপকরণ

১টি অর্ধেক লেবু ও ১ চামচ চিনির রস।

পদ্ধতি

১ চামচ চিনি নিয়ে প্রথমে জল দিয়ে একটু গুলে নিন। এ বার ১টি  পাতিলেবুকে অর্ধেক করে ফেলুন। এই অর্ধেক পাতিলেবুর মধ্যে চিনির রসটা দিন। এ বার এটা কনুইয়ে ১০ মিনিট ঘষুন। তারপর ধুয়ে নিন। এটা আপনি ঘাড়, পিঠ বা হাঁটুর কালো ভাব দূর করতেও ব্যবহার করতে পারেন। খুব তাড়াতাড়ি ফল পেতে সপ্তাহে ২-৩ দিন করুন। তবে পর পর দুদিন করবেন না।

২। বেসন, দই ও পাতিলেবু

উপকরণ

১ চামচ বেসন, ১ চামচ টকদই, ১ চামচ লেবুর রস ও ১ চামচ চিনি।

পদ্ধতি

সব উপকরণগুলো ভালো করে মিশিয়ে নিন। এটা কনুইয়ে ১০ মিনিট ম্যাসাজ করুন। তারপর ১০মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ২ দিন করুন ভালো ফল পেতে।

আরও পড়ুন: ফর্সা হতে চান? ফেয়ারনেস ক্রিমের পরিবর্তে মাখুন কারি পাতা

৩। অলিভ অয়েল ও চিনি

উপকরণ

১ চামচ অলিভ অয়েল ও ১ চামচ চিনি।

পদ্ধতি

অলিভ অয়েলের সাথে চিনি ভালো করে মিশিয়ে নিন। এটা কনুইয়ে ১০ মিনিট ঘষুন। তারপর আরও ৫ মিনিট রেখে দিন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। এটা আপনি গোটা হাতেই ব্যবহার করতে পারেন স্ক্রাবিং করার জন্য। তবে সেক্ষেত্রে পরিমাণ বাড়িয়ে নিতে হবে। দ্রুত ফল পেতে এটা রোজ করুন।

৪। আটা ও লেবু

উপকরণ

১ চামচ আটা ও ১ চামচ লেবুর রস।

পদ্ধতি

আটা ও লেবুর রস ভালো করে মিশিয়ে নিন। এবার এটা কনুইয়ে ঘষুন। হাঁটুতেও লাগাতে পারেন। ১০ মিনিট রেখে শুকিয়ে গেলে ধুয়ে নিন। এক সপ্তাহের মধ্যে ফল পেতে হলে ৩-৪ দিন এটা দিয়ে পরিষ্কার করুন কনুই।

৫। অ্যালোভেরা

উপকরণ

১ চামচ অ্যালোভেরা জেল।

পদ্ধতি

অ্যালোভেরা জেল কনুইয়ে লাগান। একটু ম্যাসাজ করুন। ১৫ থেকে ২০ মিনিট রেখে দিন। এটা রোজ দিনে ২ বার লাগান। ব্যাস কিছুদিনের মধ্যেই দেখবেন দাগ কেমন হালকা হচ্ছে।

Advertisement
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

কলকাতা

এ বারের পুজোয় কেনাকাটা: তেমন বেচাকেনা আদৌ হবে কি?

এই পরিস্থিতিতে পুজো তো আসছে। আর মোটামুটি পাঁচ সপ্তাহ পরেই পুজো। আর পুজো উপলক্ষ্যে কেনাকাটা তো কিছু করতে হবে, অল্পস্বল্প হলেও।

Published

on

কেনাকাটায় উৎসাহ নেই নতুন প্রজন্মের

শ্রেয়া সাহা

করোনা-আবহে থমকে গিয়েছে মানুষের জীবন। দীর্ঘ প্রায় ছ’ মাস ধরে গৃহবন্দি বেশির ভাগ মানুষ। স্কুল নেই, ফলত বাইরে যেতে মানা ছোটোদের। অন্য দিকে লকডাউনে কাজ হারিয়েছেন বহু মানুষ। ফলে পুজোর আনন্দ অনেকের কাছেই ফিকে হয়ে দাঁড়িয়েছে।

তবুও এই পরিস্থিতিতে পুজো তো আসছে। আর মোটামুটি পাঁচ সপ্তাহ পরেই পুজো। আর পুজো উপলক্ষ্যে কেনাকাটা তো কিছু করতে হবে, অল্পস্বল্প হলেও। কিন্তু কী ভাবে হবে সেই কেনাকাটা। কনটেনমেন্ট জোন ছাড়া সে ভাবে আর লকডাউন হবে না বলেই মনে হয়। সুতরাং বেশির ভাগ জায়গাতেই দোকানপাট খোলা। কিন্তু সবাই দোকানপাটে ঘুরে ঘুরে দরদাম করে কেনাকাটা করার উৎসাহ বা সাহস পাবেন তো? এ বার তা হলে অফলাইনের চেয়ে অনলাইনে বেশি কেনাকাটা চলবে?

এই সব প্রশ্ন নিয়ে খবর অনলাইন হাজির হয়েছিল সাধারণ মানুষের দরবারে। খবর অনলাইন জানতে চেয়েছিল, এ বার তাঁদের কী পরিকল্পনা? কোন পদ্ধতিতে তাঁরা কেনাকাটা করবেন, অনলাইন নাকি অফলাইন?      

গত মাসে এক সমীক্ষায় দেখা গিয়েছিল, লকডাউনে অফলাইনের তুলনায় অনলাইনেই কেনাকাটায় ভিড় জমিয়েছেন বেশির ভাগ মানুষ। এর প্রধান কারণ  করোনা সংক্রমণের ভয়। কিন্তু খুচরোখাচরা কিছু কেনা আর আশ মিটিয়ে পুজোর বাজার করা, দু’টোর মধ্যে আকাশপাতাল তফাত। পুজোর কেনাকাটার জন্য কি অনলাইনে ভরসা করা যায়?

কথা হচ্ছিল বারাসতের বাসিন্দা সুপ্রিয়া দাশগুপ্তের সঙ্গে। তিনি আইটি সংস্থায় কাজ করেন। কথা বলে বোঝা গেল সুপ্রিয়া দেবী কিছুটা দ্বিধাগ্রস্ত। পুজোর কেনাকাটা করার ব্যাপারে অনলাইনে তাঁর ভরসা নেই। আবার বাইরে বেরিয়ে দোকানে ঘুরে ঘুরে আগের মতো পছন্দসই জিনিস কিনবেন, এই পরিস্থিতিতে সে সাহসও করে উঠতে পারছেন না। তাই এ বার পুজোয় সে ভাবে আর কেনাকাটা করছেন না তিনি, এমনটাই জানালেন।

তাঁর কথায়, “অফিস যাওয়াটা প্রয়োজন। অফিস যেতে রোজ বাইরে বেরোতে হয়। কিন্তু প্রয়োজন না থাকলে বাইরে বেরোই না। তাই এ বারের পুজোয় আলাদা করে বিশেষ ভাবে কিছু কেনার কোনো পরিকল্পনাই নেই।”      

বেহালাবাসী ববি সেনের সঙ্গে কথা বলে বোঝা গেল, দেশের করোনা-পরিস্থিতি নিয়ে তিনি বেশ কিছুটা চিন্তিত, বিশেষ করে সাধারণ মানুষের অর্থনৈতিক অবস্থা নিয়ে। তাই পুজোয় এ বার কেনাকাটার কী পরিকল্পনা, জানতে চাইতেই ফোনের ও-পার থেকে স্পষ্ট বললেন, “পকেটে টাকাই নেই তো পুজোর পরিকল্পনা।” তাঁর কথায়, “এ বারের পুজোর আনন্দ শুধু বড়োলোকদেরই।”  

পুজোয় কেনাকাটার মধ্যে যে একটা কর্তব্য পালনের ব্যাপার আছে সেটা বোঝা গেল যাদবপুরের গৌরববাবুর সঙ্গে কথা বলে। তিনি মনে করেন, এ বার বাইরে বেরিয়ে কেনাকাটা করাটা ঝুঁকিপূর্ণ। তবে ছোটোদের জন্য তো কিছু কিনতেই হবে। সেই কর্তব্যই করছেন। আর বড়োদের জন্য কেনার কোনো পরিকল্পনা নেই গৌরববাবুর।

তাঁর কথায়, “এ বারে কিছু কেনার নেই। বাইরে যাওয়া ঝুঁকিপূর্ণ। বাড়ির ছোটোদের জন্য শুধু একটা করে জামা কিনেছি। বড়োদের আর কী! ভ্যাকসিন না আসা পর্যন্ত সংক্রমণের ভয়ে রয়ে যাচ্ছে।”   

তরুণ প্রজন্মের ছেলেমেয়েরাও এ বার পুজোয় কেনাকাটা নিয়ে খুব একটা উৎসাহ পাচ্ছেন না। প্রথম বর্ষের পড়ুয়া আকাশের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল, এ বারের পুজোয় কেনাকাটার পরিকল্পনা কী? আকাশ স্পষ্ট বলে দিলেন, “মাস্ক কিনেছি, স্যানিটাইজার কিনেছি। এ বার ভ্যাকসিন এলে ওটা কিনতে হবে। এটাই আমার পুজোর কেনাকাটা।”

তবে সবাই যে খুব নেগেটিভ ভাবছেন তা নয়। অনলাইন না অফলাইন, কেনাকাটার জন্য কোন মাধ্যম ভালো লাগে, জানতে চাইতেই দ্বিতীয় বর্ষের পড়ুয়া গড়িয়ার অন্বেষা সাহা স্পষ্ট বললেন, “আমার অনলাইনে কেনাকাটা করতে একেবারেই ভালো লাগে না।”

তবে মাঝে একদিন কিছু কেনাকাটা করতে দোকানে গিয়েছিলেন অন্বেষা। কিন্তু কালেকশন দেখে হতাশ হয়েছেন। তাঁর কথায়, “দোকানেও তেমন কোনো ভালো কালেকশন নেই। সব পুরোনো ড্রেস।” মন ভরেনি অন্বেষার।

সকলের সঙ্গে কথা বলে বোঝা গেল, এ বারের পরিস্থিতি নিয়ে প্রায় সকলেরই মনের মধ্যে রয়েছে দ্বিধা, সংশয়, হতাশা এবং কিছুটা আতঙ্কও। এ বারের পুজোয় কেনাকাটা সে ভাবে যে জমবে না, তা স্পষ্ট – অনলাইন অফলাইন তো দূরস্থান।     

Continue Reading

জীবন যেমন

সিগারেট ছাড়তে চাইছেন, কিন্তু পারছেন না? এই ১১টি পদ্ধতি সাহায্য করবেই

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সিগারেট পুড়িয়ে ধোঁয়া পান করার অর্থ হল টাকা পোড়ানো। সিগারেটে বিতরাগী মানুষজন এমনটাই মনে করেন। আসলে অর্থ সঞ্চয়ের থেকেও বড়ো ব্যাপার হল সিগারেট ছাড়লে অনেক রোগ বা রোগের আশঙ্কা থেকে মুক্তি পাওয়া যায়। সিগারেট না খেলে রক্তচাপ স্বাভাবিক থাকবে, রক্তের কার্বন মনোক্সাইডও স্বাভাবিক থাকবে। হৃদরোগের ঝুঁকি কমবে এবং ফুসফুস ভালো থাকবে।

কাজেই সিগারেট ছাড়ুন সুস্থ থাকুন।

কী ভাবে ছাড়বেন সিগারেট?

১। নিজের মনকে বোঝান

ধূমপান ছাড়ার আগে মনকে প্রস্তুত করতে শক্তিশালী কারণ ঠিক করুন। সেই কারণ ধূমপান ছাড়তে সাহায্য করবে। ধূমপানের কথা মনে এলেই সেই কারণটিকে দাঁড় করান নিজের মনের সামনে। যেমন ধরুন – নিজেকে বুড়োটে দেখতে লাগছে, তারুণ্য ধরে রাখতে চান, ফুসফুসে ক্যানসার বা মুখের ক্যানসার ইত্যাদির হাত থেকে বাঁচতে চান, প্রিয় কোনো মানুষকে কথা দিয়েছেন ধূমপান ছেড়ে দেবেন ইত্যাদি।

২। লজেন্স খাওয়ার অভ্যাস

অনেকের ক্ষেত্রেই ‘একটির বদলে আর একটি’ সূত্র কাজ করে। আসলে দুম করে ধূমপান ছেড়ে দিতে গেলে কী করি কী খাই এমন একটি মানসিক সমস্যা আসতে পারে। তার থেকে হতাশা ও বিষণ্ণতা। তাই সিগারেটের বিকল্প হিসাবে লজেন্স বা চুইংগাম খেতে পারেন। বিশেষজ্ঞরা বলেন, সিগারেট ছাড়ার জন্য বাজারে কিছু চুইংগাম পাওয়া যায়। এগুলি বেশ কার্যকর।

৩। ঠান্ডা স্থান এড়িয়ে চলুন

সিগারেটের ভেতরের নিকোটিন নেশা তৈরি করে। একটা সময়ে মস্তিষ্ক নিকোটিনে অভ্যস্ত হয়ে পড়ে। তাই বার বার ধূমপান করতে ইচ্ছা করে। আবার ঠান্ডা স্থান নিকোটিন গ্রহণের ইচ্ছা বাড়িয়ে দেয়। তাই ধূমপান ত্যাগের সিদ্ধান্ত নেওয়ার পর ঠান্ডা  জায়গায় গেলে হয়তো আবার ধূমপানের ইচ্ছে মাথা চাড়া দিতে পারে।  

৪। মানসিক চাপে অন্য পথ

অনেকেই মানসিক চাপ সহ্য করতে না পেরে ধূমপান করেন। তা হলে সে ক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞের পরামর্শে চাপ কমানোর জন্য ওষুধের সাহায্য নেওয়াই ভালো। সিগারেটকে অবলম্বন করা দীর্ঘমেয়াদে ভুল সিদ্ধান্ত।

৫। মানসিক চাপ নিয়ন্ত্রণ

মানসিক চাপের কারণে অনেকেই ধূমপান করেন। তাই এই চাপ থেকে মুক্ত থাকার চেষ্টা করুন। নিয়মিত ম্যাসাজ করান, বই পড়ুন, গান শুনুন, যোগব্যায়াম করুন। চাপমুক্ত থাকলে ধূমপানও নিয়ন্ত্রণে থাকবে।

৬। মানুষের সহায়তা নিন

অনেককেই শোনা যায় অন্যদের ধূমপান বন্ধ করার জন্য উপদেশ দিয়ে থাকেন। তেমন ঘটনা ঘটলে খুবই ভালো। বন্ধুবান্ধব,পরিবারের সদস্য এবং সহকর্মীদের জানান ধূমপান ছাড়তে চাওয়ার কথা। তারা আরও উৎসাহ জোগাবে। তাদের সামনে কখনও সিগারেট খেতে গেলে তারা মনে করিয়ে দেবে, নিষেধ করবে ফলে উপকার হবে।

৭। বাড়ি পরিষ্কার করার অভ্যেস

মনোবিদদের মতে, অন্য কিছুতে মনকে মাতিয়ে রাখলে সাধারণ ভাবে আর একটি ইচ্ছা বা চিন্তা মাথা থেকে সরে যায়। ঠিক একই পদ্ধতি হয় ঘর পরিষ্কার করার ক্ষেত্রে। মজার মনে হলেও চেষ্টা করে দেখুন। নিজের হাতে বাড়িঘর পরিষ্কার করুন, সাজান, ধোয়াকাচা, রান্না ইত্যাদিতে মনকে আটকে রাখুন। দেখবেন অনেকটা সময় কেটে গিয়েছে সিগারেট খাওয়ার ইচ্ছা ছাড়াই। অনেকে বলেন, ঘরে সুন্দর গন্ধের এয়ার ফ্রেশনার বা ধূপকাঠি ব্যবহার করলে তার সুগন্ধ সিগারেটের ধোঁয়ার কথা ভুলে যেতে সাহায্য করে।

৮। শারীরিক পরিশ্রম

পরিশ্রমের কাজ ধূমপান করার ইচ্ছাকে তাড়িয়ে দেয়। তাই ধূমপান করতে ইচ্ছা করলে হাঁটুন, জগিং করুন, ব্যায়াম করুন। এতে মাইন্ড রিফ্রেশ হবে, অতিরিক্ত ক্যালোরিও দূর হবে ও ধূমপানের ইচ্ছা দূর হবে।

৯। ফল এবং শাকসবজি খান

ডিউক বিশ্ববিদ্যালয়ের এক গবেষণায় বলা হয়েছে, প্রচুর পরিমাণ ফল এবং শাকসবজি খেলে সিগারেটের স্বাদ আর ভালো লাগে না। তাই খাদ্য তালিকায় নিয়মিত ফল ও সবজি রাখুন।

১০। অর্থ সঞ্চয়ের ইচ্ছা

ভেবে দেখুন, সিগারেট খেলে প্রতি দিন নয় নয় করে অনেক টাকাই খরচ হয়, যেটা অকারণ। সিগারেট ছাড়লে কিছু টাকাও সঞ্চয় হবে। এমনটা ভেবেও সিগারেট ছাড়ার জন্য নিজেকে উৎসাহিত করতে পারেন।

১১। বারবার চেষ্টা

যে কোনো কাজেই চেষ্টার কোনো বিকল্প হয় না। ধূমপান ত্যাগের ক্ষেত্রেও তাই। বারবার চেষ্টা করুন। নিজেই নিজেকে সময়ের মাপকাঠি বেঁধে দিন, যে এই সময়ের মধ্যে ধূমপান ছাড়বেনই। প্রতি দিন চেষ্টা করে সেই লক্ষ্য পূরণ করুন।

আরও পড়ুন – সিগারেট খেয়ে ঠোঁটের রঙ কালো! রঙ ফেরাতে ঘরোয়া টোটকা

দেখতে পারেন – ডবল চিনের সমস্যা? ম্যাজিকের মতো কাজ করবে এই ৬টি ব্যায়াম

Continue Reading

জীবন যেমন

ডবল চিনের সমস্যা? ম্যাজিকের মতো কাজ করবে এই ৬টি ব্যায়াম

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দেখতে খুব খারাপ লাগছে? ডবল চিনের সমস্যা ভোগাচ্ছে? মাথা ঠান্ডা করুন, ডবল চিন দূর করার কতগুলো সহজ পথ আছে। প্রথম থেকে সতর্ক হলে এমন সমস্যায় পড়তে হয় না। কিন্তু এক বার যখন হয়ে গেছেই তখন এর থেকে মুক্তির পথও বের করতে হবে।

৩০ বছরের কোঠায় পৌঁছে গেলেই শরীরে ফ্যাট জমে। সঙ্গে সঙ্গে মুখের পেশির স্থিতিস্থাপকতাও কমে। তা ঝুলে যায়৷ তাই সময় থাকতেই রাশ টানুন খাওয়াদাওয়ায়। এতে উপকার হবে। সঙ্গে অবশ্যই ব্যায়াম করুন। তাতে ডবল চিন তৈরি হবে না। ডবল চিন থাকলে তা ধীরে ধীরে কমে যাবে।

মুখের পেশি টানটান করতে যে ব্যায়াম করবেন

১। চিন আপ

বসে বা দাঁড়িয়ে করা যায় চিন আপ ব্যায়ামটি৷ মেরুদণ্ড সোজা রেখে দাঁড়ান বা বসুন৷ মাথা আসতে আসতে পিছনের দিকে নিয়ে যান। সিলিংয়ের দিকে তাকিয়ে থাকুন৷ এ বার ঠোঁট দু’টোকে গোল করে সামনের দিকে যতটা সম্ভব ঠেলুন৷ চোয়াল যেন পুরোপুরি টানটান থাকে খেয়াল রাখুন। প্রথমে এই অবস্থায় থেকে ৫ পর্যন্ত গুনুন। এর পর ১০ পর্যন্ত গুনতি বাড়ান। এই ভাবে মোট ১০ বার করুন। তার পর আবার করুন৷

২। ব্লো এয়ার

মেরুদণ্ড সোজা করে বসুন৷ মাথা পিছনের দিকে নিয়ে গিয়ে সিলিংয়ের দিকে তাকান৷ এ বার ঠোঁট দু’টো সরু করে গাল ফুলিয়ে মুখের ভিতর থেকে বাতাস ছাড়ুন। বাতাস ১০ সেকেন্ড ধরে আসতে আসতে ছাড়ুন। এই ভাবে ১০ বার করুন। ১০ – ১০ করে মোট ৫ বার করতে পারেন৷   

৩। নেক রোল

একই সঙ্গে চোয়াল, গলা, ঘাড়, কাঁধের পেশিকে টোন আপ করতে এই বিশেষ ব্যায়াম৷ মেরুদণ্ড সোজা করে মাথা ঘোরাতে থাকুন, এক পাশের কাঁধের দিক থেকে অন্য পাশের কাঁধের দিকে মাথা ঘোরান৷ প্রথমে ঘড়ির কাঁটার দিকে পরে বিপরীত দিকে একই ভাবে মাথা ঘোরান। ১০ বার এক সঙ্গে করলে একটি সেট হবে৷

৪। টিল্ট হেড

সোজা হয়ে দাঁড়িয়ে মাথাটা ক্রমশ পিছনের দিকে হেলান। গলা আর চিবুকের কাছটায় টানটান ভাব মনে হবে। এই ভাবে ১০ সেকেন্ড ধরে রাখুন। এর পর মাথা সোজা করে নিন আগের মতো। ৫ বার করলে একটি সেট হয়৷ নিয়মিত করলে কিছু দিন পর ফারাকটা বুঝতে পারবেন৷

৫। টাং প্রেস

মেরুদণ্ড সোজা রেখে দাঁড়ান অথবা বসুন৷ মাথা ক্রমশ পিছনের দিকে নিয়ে যান৷ সিলিংয়ের দিকে তাকিয়ে জিভটা টান করে মূর্ধা বা মুখগহ্বরের তালুতে ঠেকিয়ে রাখুন৷ এই অবস্থাতেই চিবুকটা নামিয়ে আনুন বুকের কাছে। অবশ্যই চেষ্টা করুন চিবুক যেন  গলার কাছটা স্পর্শ করে৷ কয়েক সেকেন্ড ধরে রেখে জিভটা রিল্যাক্স করুন, ঘাড় সোজা করে সামনে তাকান৷ ১০ বার করলে তবে একটি সেট হবে। অন্ততপক্ষে দু’ সেট করুন৷

৬। সিংহাসন

মুখের মাসল, চিবুক ও চোয়ালের আশপাশের মাসল শক্তিশালী ও টানটান হয়ে ওঠে এই আসনে৷  দু’ ভাবে করা যায় আসনটি, শুয়ে ও বসে৷ খুব রিল্যাক্সড ভাবে বসুন৷ জিভটা যতটা সম্ভব বাইরে বের করে নিন। আপনার গলা ও চোয়ালের কাছে টানটান ভাবটা লাগবে৷ এই ভাবে ১০ পর্যন্ত গুনুন। পাঁচ বার করতে পারেন৷

ব্যায়ামগুলি করলেই যে রাতারাতি ফল পাবেন তা কিন্তু না, একটু ধৈর্য ধরে ব্যায়াম করে যেতে হবে৷ সেই সঙ্গে পুরো শরীরের ওজন কমানোর প্রতিও নজর দিতে হবে। এই সময়টুকুর মধ্যে ডবল চিনের কারণে বিশ্রী লাগার থেকে বাঁচতে মেকআপের সাহায্য নিতে পারেন। সেই বিষয়ে পরের পর্বে আলোচনা করব।

দেখুন – পায়ের ব্যায়াম করার সময় অবশ্যই খেয়াল রাখুন এই বিষয়গুলি

আরও – থাইয়ের মেদ নিয়ে বিরক্ত? কমিয়ে ফেলুন ৩টি ব্যায়ামে

Continue Reading
Advertisement
press conference by hindu mahajot
দুর্গা পার্বণ16 mins ago

দুর্গোৎসব বাংলাদেশে: সাংবাদিক বৈঠক ও মানববন্ধন করে ৩ দিন ছুটির দাবি

বিদেশ1 hour ago

টিকটক, উইচ্যাট নিয়ে কঠোর সিদ্ধান্ত আমেরিকার

coronavirus
রাজ্য1 hour ago

কলকাতা ও পড়শি জেলায় কোভিড পরিস্থিতি স্থিতিশীল, বেশি উদ্বেগ এখন পশ্চিম মেদিনীপুরকে ঘিরে

দেশ2 hours ago

সোমবার থেকে স্কুল খোলা বাধ্যতামূলক নয়, দেখে নিন কোন রাজ্য কী সিদ্ধান্ত নিল?

দেশ3 hours ago

ঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দির পরিদর্শনে বিএসএফ-এর ডিজি রাকেশ আস্থানা

Durgapur Rain
পশ্চিম বর্ধমান3 hours ago

রেকর্ড বর্ষণে বিপর্যস্ত পশ্চিমাঞ্চলের তিন জেলা, জমা জলে নাজেহাল দুর্গাপুর

ভ্রমণ3 hours ago

৬ মাস বন্ধ থাকার পর খুলছে পশ্চিমবঙ্গের সমস্ত চিড়িয়াখানা ও জঙ্গল পর্যটন

Shreyas Iyer
ক্রিকেট4 hours ago

আইপিএলের অন্যতম সেরা বোলিং লাইনআপ কি দিল্লি ক্যাপিটাল্‌সের?

দেশ12 hours ago

কোভিড আপডেট: নতুন করে আক্রান্ত ৯৬৪২৪, সুস্থ ৮৭৮৭২

অরন্ধন
ব্র্ত-উৎসব2 days ago

অরন্ধনে নানা বিধ পদ রান্না করে নিবেদন করা হয় মা মনসাকে

covid in kolkata
কলকাতা2 days ago

আগস্টের তুলনায় সেপ্টেম্বরের প্রথম ১৫ দিনে কলকাতায় কমেছে নতুন কোভিডরোগীর সংখ্যা

শিল্প-বাণিজ্য8 hours ago

এসবিআই এটিএমে টাকা তোলার নিয়ম বদলে গেল! দেখে নিন ওটিপি-ভিত্তিক পদ্ধতির খুঁটিনাটি বিষয়

Covid situation kolkata
দেশ2 days ago

সক্রিয় কোভিডরোগীর নিরিখে পশ্চিমবঙ্গের অবস্থান কেরল, ওড়িশা, অসমেরও নীচে

Muthaiah Muralidaran
ক্রিকেট2 days ago

মাঁকড়ীয় আউটের বিকল্প বাতলে দিলেন মুতাইয়া মুরলীধরন

Parliament
দেশ2 days ago

নতুন সংসদ ভবন নির্মাণের বরাত পেল টাটা

কলকাতা1 day ago

কোভিড রুখতে অনলাইন মাধ্যমকে হাতিয়ার করছে কলকাতার একাধিক পুজো

কেনাকাটা

কেনাকাটা2 days ago

ঘরের জায়গা বাঁচাতে চান? এই জিনিসগুলি খুবই কাজে লাগবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ঘরের মধ্যে অল্প জায়গায় সব জিনিস অগোছালো হয়ে থাকে। এই নিয়ে বারে বারেই নিজেদের মধ্যে ঝগড়া লেগে...

কেনাকাটা1 week ago

রান্নাঘরের জনপ্রিয় কয়েকটি জরুরি সামগ্রী, আপনার কাছেও আছে তো?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরের এমন কিছু সামগ্রী আছে যেগুলি থাকলে কাজ করাও যেমন সহজ হয়ে যায়, তেমন সময়ও অনেক কম খরচ...

কেনাকাটা1 week ago

ওজন কমাতে ও রোগ প্রতিরোধশক্তি বাড়াতে গ্রিন টি

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ওজন কমাতে, ত্বকের জেল্লা বাড়াতে ও করোনা আবহে যেটি সব থেকে বেশি দরকার সেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা...

কেনাকাটা2 weeks ago

ইউটিউব চ্যানেল করবেন? এই ৮টি সামগ্রী খুবই কাজের

বহু মানুষকে স্বাবলম্বী করতে ইউটিউব খুব বড়ো একটি প্ল্যাটফর্ম।

কেনাকাটা3 weeks ago

ঘর সাজানোর ও ব্যবহারের জন্য সেরামিকের ১৯টি দারুণ আইটেম, দাম সাধ্যের মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘর সাজাতে কার না ভালো লাগে। কিন্তু তার জন্য বাড়ির বাইরে বেরিয়ে এ দোকান সে দোকান ঘুরে উপযুক্ত...

কেনাকাটা4 weeks ago

শোওয়ার ঘরকে আরও আরামদায়ক করবে এই ৮টি সামগ্রী

খবর অনলাইন ডেস্ক : সারা দিনের কাজের পরে ঘুমের জায়গাটা পরিপাটি হলে সকল ক্লান্তি দূর হয়ে যায়। সুন্দর মনোরম পরিবেশে...

kitchen kitchen
কেনাকাটা4 weeks ago

রান্নাঘরের এই ৮টি জিনিস কাজ অনেক সহজ করে দেবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আজকাল রান্নাঘরের প্রত্যেকটি কাজ সহজ করার জন্য অনেক উন্নত ব্যবস্থা এসে গিয়েছে। তা হলে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কষ্ট...

care care
কেনাকাটা1 month ago

চুল ও ত্বকের বিশেষ যত্নের জন্য ১০০০ টাকার মধ্যে এই জিনিসগুলি ঘরে রাখা খুবই ভালো

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পার্লার গিয়ে ত্বকের যত্ন নেওয়ার সময় অনেকেরই নেই। সেই ক্ষেত্রে বাড়িতে ঘরোয়া পদ্ধতি অনেকেই অবলম্বন করেন। বাড়িতে...

কেনাকাটা1 month ago

ঘর ও রান্নাঘরের সরঞ্জাম কিনতে চান? অ্যামাজন প্রাইম ডিলে রয়েছে ৫০% পর্যন্ত ছাড়

খবরঅনলাইন ডেস্ক : অ্যামাজন প্রাইম ডিলে রয়েছে ঘর আর রান্না ঘরের একাধিক সামগ্রিতে প্রচুর ছাড়। এই সেলে পাওয়া যাচ্ছে ওয়াটার...

কেনাকাটা1 month ago

এই ১০টির মধ্যে আপনার প্রয়োজনীয় প্রোডাক্টটি প্রাইম ডে সেলে কিনতে পারেন

খবরঅনলাইন ডেস্ক : চলছে অ্যামাজনের প্রাইমডে সেল। প্রচুর সামগ্রীর ওপর রয়েছে অনেক ছাড়। ৬ ও ৭  তারিখ চলবে এই সেল।...

নজরে