শুষ্ক চুলকে কী ভাবে করে তুলবেন সতেজ

ওয়েবডেস্ক:  প্রতিটি ঋতুতে চুল নিয়ে কিছু না কিছু সমস্যা প্রায় প্রত্যেকেরই থাকে। তবে শীতকালে সেই সমস্যা বেড়ে আরও দ্বিগুণ হয়ে যায়। এই সময় চুল রুক্ষ ও শুষ্ক হয়ে যায়।

কিন্তু সেই চুলের শুষ্ক ভাব দূর করতে কী করবেন, এটাই এখন জানার বিষয়। তা হলে আসুন বরং জেনে নেওয়া যাক।

১। শ্যাম্পু বাছাই

প্রথমে সঠিক শ্যাম্পু নির্বাচন করতে হবে। এ ক্ষেত্রে এমন শ্যাম্পু কিনতে হবে, যা চুলকে ময়েশ্চারাইজ করবে ও অতিরিক্ত শুষ্ক করবে না। সপ্তাহে ২দিন শ্যাম্পু করুন।

২। কন্ডিশনার

চুলের শুষ্কতা কমাতে ২-৩ দিন কন্ডিশনার ব্যবহার করতে পারেন। এতে চুলের উজ্জ্বলতা ঠিক থাকবে।

৩। হেয়ার সিরাম

যে কোনও সময় চুলকে শাইনি ও স্মুথ করতে হেয়ার সিরাম অতুলনীয়। যদিও এটা ভেজা চুলে ব্যবহার করা ভালো। তবে চুলের শুষ্ক ও নিস্তেজভাব দূর করতে যেকোনও সময় সিরাম ব্যবহার করতে পারেন। দ্রুতই চুলের উজ্জ্বলতা ফিরে আসবে।

[আরও পড়ুন: চুল পড়া বন্ধ করতে ম্যাজিকের মতো কাজ করবে এই ঘরোয়া প্যাকটি] 

৪। চিরুনি নির্বাচন

চুল আছড়াতে ব্যবহার করুন বড় ও ফাঁকা দাঁতযুক্ত চিরুনি। এতে চুল ছিঁড়বে বা ভাঙবে কম।

৫। হেয়ার ড্রায়ার

অতিরিক্ত হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহারের কারণে চুল শুষ্ক ও ভঙ্গুর হয়ে যায়। যতটা সম্ভব একটু কম ব্যবহার করুন। যদি ব্যবহার করতেই হয়, তবে সর্বনিম্ন তাপমাত্রায় ব্যবহার করুন। ড্রায়ার চুল থেকে অন্তত ৫ সেন্টিমিটার দূরত্বে রাখুন।

৬। হট অয়েল ম্যাসেজ

সপ্তাহে অন্তত ১ দিন হট অয়েল ম্যাসাজ করুন। হট অয়েল ম্যাসাজ করার সময় তেলের মধ্যে ভিটামিন ‘ই’ ক্যাপসুল কেটে মিশিয়ে নিতে পারেন। এতে চুলের গোড়ায় রক্ত সঞ্চালন বাড়বে, চুল মসৃণ হবে।

৭। হেয়ারপ্যাক

চুল ভালো রাখতে সপ্তাহে ১ দিন হেয়ারপ্যাক ব্যবহার করতে পারেন। একটা পাত্রে আপনার চুলের লেন্থ অনুযায়ী টকদই নিন। এ বার এর সঙ্গে ডিমের সাদা অংশ আর ২ চামচ অলিভ অয়েল নিয়ে ভালো করে মেশান। এ বার চুল ভাগ করে নিয়ে সব চুলে লাগান। এক ঘণ্টা পর ধুয়ে ফেলুন।

এ ছাড়া চুলের পরিমাণ অনুযায়ী সমপরিমাণ মধু ও অলিভ অয়েল নিয়ে ভালোভাবে মিশিয়ে চুলের গোড়ায় ও পুরো চুলে এক ঘণ্টা রাখুন। তারপর শ্যাম্পু করে ফেলুন। সহজেই চুলের শুষ্কতা দূর হবে।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here