পুজোর আগে করুন ফ্রুট ফেসিয়াল

ওয়েবডেস্ক: পুজো মানেই হইচই কাণ্ড। নতুন জামা, নতুন জুতো, নিত্য নতুন সাজগোজ। কেনাকাটির প্রস্তুতিও চলছে জোরকদমে। নতুন পোশাক পরবেন অথচ নিজের যত্ন না নিলে হয় নাকি।

তাই আর দেরি না করে খুব সহজেই ঘরে বসেই করুন ফ্রুট ফেসিয়াল। খুব বেশি কঠিন কোনও কাজ নয় নিজের ফেসিয়াল নিজেই করা। একটু চেষ্টা করলেই পার্লারের মতোই ফেসিয়াল করতেই পারবেন। ঘরে ফেসিয়াল করেই নিজের ত্বককে করে তুলতে পারবেন ঝলমলে ও ফ্রেশ।

ঘরে আছে এমন কিছু ফল দিয়েই করতে পারবেন ফ্রুট ফেসিয়াল। প্রাকৃতিক উপাদান বলে ত্বকের ও কোনো ক্ষতি হবে না। আর সব ধরনের ত্বকের জন্যই ফ্রুট ফেসিয়াল উপকারী।

তা হলে জেনে নিন ফ্রুট ফেসিয়ালের পদ্ধতিটি-

১। ভাল করে ত্বক পরিষ্কার করা

প্রথমে মুখ ও গলা ফেসওয়াস দিয়ে ভালো করে পরিষ্কার করতে হবে। আরও ভাল হয়, ত্বক পরিষ্কার করার জন্য যদি ঠান্ডা কাঁচা দুধ ব্যবহার করতে পারেন। তা হলে একটি বাটিতে ১ চামচ লেবুর রস, ১ চামচ নুন ও ২-৩ চামচ কাঁচা দুধ মিশিয়ে মুখে, গলায়, পিঠে লাগিয়ে রাখুন ৫ মিনিট। এর পর হালকা উষ্ণ জলে ধুয়ে নিন।

২। স্ক্রাবিং

ঘরেই বানিয়ে নিতে পারেন স্ক্রাবিং প্যাক। ওটমিল, লেবুর রস, কমলালেবুর শুকনো খোসার টুকরা ও গোলাপজল মিশিয়ে নিন। এ বার মুখে লাগিয়ে ৫ মিনিট ম্যাসাজ করুন। এ ছাড়াও লেবুর খোসার গুঁড়া, কাঁচা দুধ, অথবা দই দিয়ে তৈরি করে নিতে পারেন স্ক্রাব।

৩। স্কিন টোন হালকা করা

স্ক্রাব এর পরের ধাপ হল স্কিন টোনকে হালকা করতে হবে। আর এর জন্য মধুর চেয়ে ভাল কোন কিছু হতে পারে না। মুখে ১০ মিনিট মধু লাগিয়ে রাখুন। এর পর মুখ ভেজা রুমাল দিয়ে মুছে ফেলুন।

৪। মুখের লোমকূপ খোলা

মুখের মধ্যে ধুলো-ময়লা জমে মুখের লোমকূপগুলো বন্ধ হয়ে যায়। হালকা উষ্ণ জলে রুমাল ভিজিয়ে একটু জলটা চিপড়ে নিয়ে মুখে ও গলায় ৫-৭ মিনিট লাগিয়ে রাখুন।

আরও পড়ুন: খুব বেশি দিন তো বাকি নেই পুজোর! ত্বকের জেল্লা বাড়াতে এই ৪টি পদ্ধতি জেনে নিন

৫। ম্যাসাজ করা

স্কিন টোন হালকা করার পরের ধাপ হল স্কিন ম্যাসাজ করা। আস্তে আস্তে করে কোনও একটা ফলের পেস্ট সারা মুখে ম্যাসেজ করতে হবে। কলা, পেঁপে, বেদানা মধু আর দুধ মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে নিতে পারেন ম্যাসাজের জন্য। এটি মুখে ও গলায় ৫ মিনিট আস্তে আস্তে ম্যাসাজ করুন। এর পর ঠান্ডা জল দিয়ে রুমাল ভিজিয়ে মুখ ও গলা মুছে ফেলুন।

৬। ফ্রুট প্যাক

ক। পেঁপে ও কলা

ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে পেঁপে ও কলার প্যাক ব্যবহার করতেই পারেন।

খ। পাকা কলা, শসা ও টমেটো

১টি পাকা কলা প্রথমে চটকে নিন। চটকে রাখা কলার মধ্যে ৪-৫ চামচ শসার রস ও টমেটোর রস মিশিয়ে প্যাকটি বানিয়ে নিন। মুখের ট্যান তুলতে এবং ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে, কালো দাগ-ছোপ তুলতে ব্যবহার করুন পাকা কলা ও টমেটোর ফেস-প্যাক।

গ। বেদানা ও কলা

কলার মধ্যে বেদানার রস মিশিয়ে প্যাকটি বানিয়ে নিন। পুজোর আগে ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে ব্যবহার করুন বেদানা ও কলার ফেসপ্যাক।

ঘ। আপেল, মুশাম্বি

আপেলে ও মুশাম্বির লেবুর রস দিয়ে বানিয়ে ফেলুন ঘরোয়া ফ্রুট প্যাক। ১-২ টুকরো আপেল কুরিয়ে নিন। কুরিয়ে রাখা আপেলের মধ্যে ২-৩ চামচ মুশাম্বির লেবুর রস মিশিয়ে নিন। পুজোর আগে নিজেকে একেবারে ঝাঁ-চকচকে করে তুলতে ব্যবহার করুন আপেলে ও মুশাম্বির লেবুর ফ্রুট প্যাক।

৭। ময়েশ্চারাইজার

ময়েশ্চারাইজারের জন্য শশা খুব ভাল। শশা পেস্ট করে মুখে ভাল করে লাগিয়ে রাখুন। এটি আপনার ত্বকের পুষ্টি দেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে ত্বকের ময়েশ্চারাইজার ধরে রাখবে অনেকক্ষণ।

৮। টোনিং করা

২ চামচ গোলাপ জলের সাথে ১ চামচ লেবুর রস মিশিয়ে নিন। এ বার এই টোনার মুখে ও গলায় লাগান। টোনার লাগানোর পর  মুখ ধুতে বা মুছতে হবে না।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন