কে বলতে পারে? পেঁপেতেই ফিরল আপনার ত্বকের ঔজ্জ্বল্য

0

ওয়েবডেস্ক: ত্বকের ঔজ্জ্বল্য হারাতে বসেছেন? বাজারচলতি প্রসাধনী মেখে ত্বক নিয়ে চিন্তিত? কারণ বাজারচলতি যে  কোনো প্রসাধনীতেই কেমিক্যালের মাত্রা সর্বোচ্চ পরিমাণে থাকে। অথচ দেখুন আমরা সব জেনেশুনেও নির্বোধ। চটজলদি ব্যবহারের জন্য বাজারের এই ক্ষতিকারক প্রসাধনীগুলিই বেছে নিই।

সেই সব প্রসাধনী ব্যবহার করেও কিন্তু আমরা চুপ থাকি না। মনে হয়, একবার পার্লার থেকে ঘুরে আসলে মন্দ হয় না। পার্লারে গিয়ে আমরা প্রচুর টাকা খরচ করে শরীরের যত্ন নিই। আদৌ কি তাতে কাজ হয়?

ত্বক বেশি তৈলাক্ত, রুক্ষ ও ফ্যাকাশে হয়ে যাচ্ছে? ব্রণর সমস্যায় ভুগছেন? ইত্যাদি যাবতীয় সমস্যার সমাধান করতে পরে একমাত্র পেঁপে। একগুচ্ছ টাকা খরচ না করে খুবই সামান্য টাকা দিয়ে বাজার থেকে একটি পেঁপে কিনে এনে করে ফেলুন ত্বকের পরিচর্যা।

চলুন জেনে নিই সমস্যা থেকে কী ভাবে মুক্তি পাবেন-

১। রুক্ষ ত্বক

পেঁপে ও মধু প্যাক

যাঁদের রুক্ষ ও শুষ্ক ত্বক তাঁরা এক-চতুর্থাংশ কাপ পাকা পেঁপে ও আধ কাপ মধু এবং আধ ২ কাপ লেবুর রস দিয়ে একটি প্যাক তৈরি করুন। অন্তত ১০ মিনিট মুখে লাগিয়ে ঠান্ডা জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। প্রত্যেক সপ্তাহে ২-৩ দিন এই প্যাকটি ব্যবহার করুন। দেখবেন হাতে হাতে ফল পাচ্ছেন।

২। তৈলাক্ত ত্বক 

পেঁপে ও কমলালেবুর প্যাক

ত্বক তৈলাক্ত হয়ে যাচ্ছে? হয়তো অনেক সময় ত্বক তৈলাক্ত হওয়ার পিছনে আমাদের দেশের আবহাওয়াও খানিকটা দায়ী থাকে। কারণ অত্যধিক পরিমাণে বাতাসে দূষণ থাকার কারণে বেশির ভাগ মানুষই তৈলাক্ত ত্বকের সমস্যায় ভোগেন। কিন্তু তার জন্য রয়েছে সমাধানও।

এক বাটি পাকা পেঁপের সঙ্গে তিন চামচ কমলালেবুর রস দিয়ে একটি প্যাক বানান। এর পরে ১৫ মিনিট লাগিয়ে ধুয়ে ফেলুন। প্রতি সপ্তাহে ১-২ দিন এই প্যাকটি ব্যবহার করলেই বুঝতে পারবেন তৈলাক্ত ত্বক থেকে সহজেই কী ভাবে মুক্তি পাচ্ছেন।

৩। সাধারণ ত্বক

পেঁপে,কলা ও শশার প্যাক

যাঁদের ত্বক নিয়ে সে রকম কোনো সমস্যা নেই তাঁরা পেঁপে, কলা ও শশার প্যাক বানিয়ে মুখে, গলায় ও ঘাড়ে ব্যবহার করুন। অন্তত ১০-১২  মিনিট মুখে লাগিয়ে হালকা উষ্ণ জলে ধুয়ে নিন। তার পরে হালকা করে একটি তোয়ালে দিয়ে মুছে নিন। এক মাসের মধ্যে আপনি নিজেই বুঝতে পারবেন আপনার ত্বক আগের তুলনায় মসৃণ ও চকচক করছে।

 

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.