ওয়েবডেস্ক: এত দিন চুলের সমস্যা সমাধানের জন্য অনেক কিছুই করেছেন। কিন্তু কোনো কিছুতেই কোনো কাজ হয়নি। অত ভাবার কিছু হয়নি। প্রতিটি মানুষের বাড়িতে এই উপকরণটি থাকে। এখনও বুঝতে পারছেন না? ঠিক আছে বলছি!

চুলের সৌন্দর্য বাড়ানোর পাশাপাশি চুলে খুশকি, চুল উঠে যাওয়া, স্ক্যাল্প তৈলাক্ত হয়ে যাওয়া ইত্যাদি যাবতীয় সমস্যায় আদার কোনো বিকল্প নেই।

তা হলে জেনে নেওয়া যাক আদার উপকারিতা সম্বন্ধে – 

১। চুল পড়ার মাত্রা কমায়

অতিরিক্ত চুল পড়ছে? তা হলে চুলের পরিচর্যায় ব্যবহার করতে পারেন আদা। আদার মধ্যে থাকে ম্যাগনেশিয়াম, পটাশিয়াম, ফসফরাস। তাই আদা ব্যবহার করলে চুল পড়ার হাত থেকে যেমন মুক্তি পাবেন, তেমনই নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে। সেই সঙ্গে চুলের গোড়াকেও মজবুত করে।

৩-৪ টুকরো আদা বেঁটে নিতে হবে। এর পর আদার পেস্টের সঙ্গে ২ চামচ অলিভ অয়েল অথবা ২ চামচ নারকেল তেল মিশিয়ে প্যাকটি বানিয়ে নিন। স্ক্যাল্পে ভালো করে লাগিয়ে ম্যাসাজ করুন। ২৫-৩০ মিনিট চুলে লাগিয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে জল দিয়ে ধুয়ে নিন।

২। খুশকির প্রকোপ কমে 

আদার রস চুলের জন্য ভীষণ ভাবে উপকারী। এ ছাড়াও চুলের হারিয়ে যাওয়া উজ্জ্বলতাকে ফিরিয়ে আনে। সেই সঙ্গে স্ক্যাল্প তৈলাক্ত হয়ে গেলে তাতেও আদার রস দারুণ ভাবে কাজ দেয়।

৩-৪ টুকরো আদা, ২ চামচ তিল, ৩ চামচ লেবুর রস দিয়ে প্যাকটি বানিয়ে নিন। ৩০ মিনিট চুলে ভালো করে লাগিয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ২-৩ দিন করে দেখুন। আস্তে আস্তে মাথা থেকে খুশকি চলে যাবে।

৩। চুলের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি 

আদার মধ্যে থাকে ফ্যাটি অ্যাসিড এবং লাইনোলিক অ্যাসিড। চুলের গোড়াকে যেমন মজবুত করে এবং চুলের পুষ্টি বৃদ্ধিতে সাহায্য করে। চুলের উজ্জ্বলতা বাড়াতেও সাহায্য করে।

২ চামচ আদার পেস্টের সঙ্গে হাফ কাপ শসার রস ও ১ চামচ নারকেল তেল, ৬-৭টি তুলসি পাতা মিশিয়ে প্যাকটি বানিয়ে নিন। ২০-২৫ মিনিট ভালো করে চুলে এবং স্ক্যাল্পে লাগিয়ে রাখুন। শুকিয়ে গেলে জল দিয়ে ধুয়ে শ্যাম্পু করে নিন।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন