ওয়েবডেস্ক: ঠিক বুঝতে পারছেন না কীভাবে ত্বকের যত্ন নেবেন। ঠিকঠাক পদ্ধতিতে ত্বকের পরিচর্যা না করলে আপনার ত্বকের কিন্তু ক্ষতি হতে পারে।

তা হলে নিশ্চই বুঝতে পারছেন, যতই কাজই থাকুক তার মধ্যেও অন্তত পাঁচ মিনিট সময় নিজের জন্য বের করে নিন। এ বার সেই সময়টা নিজের ত্বকের পরিচর্যার কাজে লাগান।

আসুন জেনে নেওয়া যাক কীভাবে ত্বকের যত্ন নেবেন

১। ক্লিনসিং

রাস্তা-ঘাটে বেরোনো মানেই ধুলো-ধোঁয়া আমাদের সর্বক্ষণের সঙ্গী। তাই সারাদিন ধুলো মেখে বাড়ি ফেরার পর সবার আগে যেটা করা উচিত মুখটা ভালো করে পরিষ্কার করা। সে আপনি বাজার চলতি কোনো ক্লিনজার দিয়েও মুখ পরিষ্কার করতে পারেন।

আর ঘরোয়া পদ্ধতিতে যদি মুখ পরিষ্কার করতে চান তা হলে বেসন দিয়ে করতে পারেন। শুধু বেসনের সঙ্গে ১ চামচ হলুদ মিশিয়ে নেবেন।

২। স্ক্রাবিং

মুখ পরিষ্কার তো হল কিন্তু এর পরে দরকার স্ক্রাবিংয়ের। ঠিকঠাক ভাবে স্ক্রাবিং করলে আপনার ত্বকের মধ্যে জমে থাকা ধুলো, বালি চলে যাবে। এ ছাড়া ত্বকের মধ্যে অনেক সময় তৈলাক্ত ভাব দেখা যায় সব কিছুই চলে যাবে।

যদি মনে করেন বাড়িতে করার সময় নেই। পার্লারে স্ক্রাবিং করিয়ে নেবেন তা করাতেই পারেন। তবে ঘরোয়া কিছু পদ্ধতিতে স্ক্রাবিং করতে পারেন।

যেমন মুসুরির ডাল বেটে নিয়ে তার মধ্যে ১ চামচ মধু দিয়ে নিয়ে মুখে লাগাতে পারেন। এ ছাড়া পেয়ারা খুব ভালো স্ক্রাবিংয়ের কাজ করে।

৩। টোনিং

স্ক্রাবিংয়ের পরে টোনিং করাটা খুবই প্রয়োজন। যে কোনো টোনার ব্যবহার করতে পারেন। আর গোলাপ ফুলের পাপড়িগুলি একটু শুকিয়ে নিয়ে গরম জলের মধ্যে একটু ফুটিয়ে নেবেন। এর পরে ঠান্ডা হলে টোনার হিসাবে ব্যবহার করুন।

৪। ফেসপ্যাক

টোনিং-এর পরে মুখে ফেসপ্যাক লাগান। বাজার চলতি ফেসপ্যাক ব্যবহার করতে পারেন। যদি মনে করেন, ঘরোয়া পদ্ধতিতে ফেসপ্যাক ব্যবহার করবেন তাও করতে পারেন।

ত্বককে উজ্জ্বল, নরম, কোমল রাখতে পেঁপের জুড়ি মেলা ভার। তাই পেঁপে, ১ চামচ মধু, ২ চামচ দুধ, ১ চামচ হলুদ দিয়ে চটপট একটি প্যাক বানিয়ে ফেলুন।

৫। মশ্চারাইজার

এর পরে যেটা করবেন ত্বকের যত্ন নিতে গেলে সব কিছুর শেষে মশ্চারাইজার লাগাতে হবে। তাহলে দেখবেন আপনার ত্বক যেমন ভালো থাকবে। তেমনই ত্বকের উজ্জ্বলতাও বাড়বে।

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন