বর্ষায় চুলের সমস্যায় নাজেহাল? দেখে নিন কী ভাবে যত্ন নেবেন

0
চুলের যত্ন।

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সৌন্দর্যের অন্যতম চাবিকাঠি হল সুন্দর চুল। আর এই বর্ষাকালে চুলের সমস্যায় নাজেহাল কমবেশি সবাই। বর্ষাকালে আবহাওয়া আর্দ্র থাকার জন্য চুল বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। এই সময়টাতেই সব চেয়ে বেশি চুল ওঠা এবং চুলের বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেয়। চুল পড়া, খুসকি, ঘামাচি, স্ক্যাল্পে ইনফেকশন-সহ বিভিন্ন সমস্যা লেগেই থাকে। তাই এই সময়টাতে চুলের বিশেষ যত্ন করা ভীষণ জরুরি। চলুন জেনে নিই বর্ষার চুলের যত্নের কয়েকটি উপায়।

চুল শুকনো রাখুন

বৃষ্টির জল থেকে চুল বাঁচিয়ে রাখুন। কারণ বৃষ্টির জলে প্রচুর অ্যাসিড উপাদান থাকে, নোংরাও থাকে প্রচুর। তাই একান্ত ঝামেলায় না পড়লে বৃষ্টির জল চুলে না লাগতে দেওয়াই বাঞ্ছনীয়। বড়ো ছাতা বা হুড দেওয়া রেনকোট ব্যবহার করুন। যদি কোনো ভাবেই বৃষ্টির জল এড়াতে না পারেন, তা হলে বাড়ি ফিরে শ্যাম্পু করে কন্ডিশনার লাগিয়ে নেবেন।

Shyamsundar

নিয়মিত তেল ম্যাসাজ

চুলে তেল লাগালে শুষ্কতা দূর হয়, ডিপকন্ডিশনিংয়ের সুফলও মেলে। তবে অতিরিক্ত তেল লাগাবেন না, পরিমাণমতো তেল চুলে লাগিয়ে সারা রাত রেখে পরের দিন শ্যাম্পু করে নেবেন।

রাতে চুলের যত্ন নিন

রাতে চুলের যত্ন নেওয়া খুব প্রয়োজন। এক দিন বা দু’ দিন পর পর এক বার করে রাতে ভালো করে মাথায় অয়েল ম্যাসাজ করা খুব জরুরি। এতে চুল পুষ্টি পায় এবং মজবুত হয়। তেল মাখুন বা না মাখুন, রাতে কিন্তু এক বার ৫-১০ মিনিট ধরে চুল আঁচড়ে নিয়ে হালকা করে চুল বেঁধে ঘুমোতে গেলে চুল ভালো থাকে।

হেয়ার প্রডাক্ট কম ব্যবহার করুন

মাথায় সেরাম বা জেল লাগালে কোনো লাভ হয় না। হেয়ার এক্সপার্টরা বলেন, মাথার চুলে যত বেশি প্রডাক্ট ব্যবহার করবেন চুলের ক্ষতি তত বেশি হবে। যদি সকালে বেরোনোর আগে ড্রায়ার দিয়ে চুল শুকোতে চান তা হলে চুলে হিট প্রোটেকটান্ট স্প্রে লাগিয়ে নেবেন। প্রতি সপ্তাহে নিয়ম করে হেয়ারস্টাইলিং প্রডাক্ট লাগাবেন না। বরং চুল স্বাভাবিক রাখুন এবং প্রাকৃতিক উপায় অবলম্বন করুন।

আরও পড়তে পারেন : বর্ষায় চুল পড়ার হাত থেকে বাঁচতে ৫টি সহজ ঘরোয়া টিপস

শ্যাম্পু করুন

কোমল, ডিপ ক্লিনজ়িং শ্যাম্পু দিয়ে মাথা ধীরে ধীরে ম্যাসাজ করবেন, যাতে বৃষ্টির জলের কোনো নোংরা চুলে থেকে না যায়। এই মরশুমে চুল রুক্ষ হয়ে যাওয়া স্বাভাবিক, তাই ভালো শ্যাম্পু দিয়ে সপ্তাহে দু’ বার কিংবা তার বেশি চুল ধুয়ে ফেলুন। তাতে চুল পুষ্টি পাবে, ছত্রাক বা ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণও হতে পারবে না।

অতিরিক্ত কন্ডিশনার নয়

চুলের দৈর্ঘ্যের মাঝামাঝি অংশ থেকে শেষ ভাগ পর্যন্ত কন্ডিশনার লাগান, তবে অতিরিক্ত কন্ডিশনার লাগানোর দরকার নেই। ঠান্ডা জল দিয়েই চুল ধোবেন।

চুল শক্ত করে বেঁধে রাখবেন না

বর্ষার মরশুমের সময়টায় চুল বেশি বাঁধলে ভিতরে আর্দ্রতা জমে থাকে, চুল পাতানো, জেল্লাহীন দেখায়। চুল মুখে পড়লে একটা টপনট বা একটা আলগা বিনুনিই যথেষ্ট। একটানা অনেকক্ষণ চুল বেঁধে রাখবেন না।

চুল কেটে ফেলুন

এই সময়টাই চুল কেটে ফেলার পক্ষে সব চেয়ে ভালো। তাতে বাড়তি ঝামেলা মিটবে, চুলের শেপও সুন্দর থাকবে।

চুলের ঔজ্জ্বল্য হারিয়ে গেলে

বর্ষাকালে চুলের উজ্জ্বল ভাব নষ্ট হয়ে যায়। শ্যাম্পু হয়ে গেলে এক কাপ জলে হাফ কাপ অ্যাপেলসিডার ভিনিগার মিশিয়ে মাথায় দিয়ে দিন। চুলের ঔজ্জ্বল্য আবার ফিরে আসবে।

আরও পড়ুন: সোনার মতো উজ্জ্বল ত্বক চান? বাড়িতেই করে নিন গোল্ড ফেসিয়াল

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন