চুল ঝলমলে করতে চান? তা হলে অবশ্যই এই পরামর্শ মেনে চলুন

0
hair
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: সামনেই দুর্গাপুজো। হাতে মাত্র আর ক’টা দিন। আর কোনো উৎসব অনুষ্ঠানের আগে নিজেকে সুন্দর আকর্ষণীয় করে তুলতে চায় না এমন মহিলার সংখ্যা নেহাতই কম। আর সৌন্দর্যের অন্যতম শর্ত হল চুলের সৌন্দর্য।

তবে বর্তমান আবহাওয়া আর বিশেষ করে দূষণের কারণে ছোটো থেকে বড়ো, সকলের চুল পড়ে যাওয়া আর রুক্ষ্ম প্রাণহীন হয়ে যাওয়ার সমস্যাটা খুবই কমন। তাই পুজোর আগে চটজলদি চুলকে স্বাস্থ্যোজ্জ্বল ঝলমলে করে তুলতে বেশির ভাগেরই একমাত্র সহায় বিউটিপার্লার।

কিন্তু বিউটি পার্লার মানেই গাদাগাদা টাকার ব্যাপার। আবার অনেকেরই আলাদা করে পার্লারে যাওয়ার সময়ও থাকে না। তাই ইচ্ছে থাকলেও চুলকে সঠিক দেখভাল বা যত্ন করা যায় না।

তবে যদি এমন হত খুব কম সময়ে অথচ ভালো কিছু ব্যবস্থা করে চুলের পুষ্টি বাড়ানো যেত তা হলে বোধ হয় সকলেরই ভালো হত। তেমনই কিছু ঘরোয়া অথচ কার্যকর কয়েকটি পরামর্শ আজ আপনাদের সঙ্গে শেয়ার করব। এই পরামর্শগুলো কয়েক দিন নিয়মিত মেনে চললেই চুলের স্বাস্থ্যের পরিবর্তন লক্ষ করা যাবে।

শ্যাম্পু করার আগে চুল ভালো করে আঁচড়ে নিন

চুলে শ্যাম্পু করার আগে চুল ভালো করে আঁচড়ে নিতে হবে। তাতে জটমুক্ত চুল শ্যাম্পু করতে ও ধুতে সুবিধে হয়। পাশাপাশি ভেজা চুলের জট ছাড়ানোর ঝক্কি পোহাতে হয় না। ভেজা চুলের গোড়া নরম থাকে। ফলে টান পড়লে ছিঁড়ে যায় তাড়াতাড়ি।

শ্যাম্পুতে পেঁয়াজের রস দিন

এর পর শ্যাম্পু করার পালা। যে শ্যাম্পু নিয়মিত ব্যবহার করেন সেটিই নেওয়া যেতে পারে। সেই শ্যাম্পু চুলের মাপ অনুযায়ী পরিমাণমতো একটি ছোটো বাটিতে ঢেলে নিতে হবে। তার মধ্যে একটি পেঁয়াজ ছাড়িয়ে, ভালো করে ধুয়ে তার রস বের করে নিতে হবে। সেই রসটি শ্যাম্পুর মধ্যে দিতে হবে। তবে চুলের মাপ অনুযায়ী পেঁয়াজের রসের পরিমাণ বাড়াতে বা কমাতে হবে। তবে সাধারণ ভাবে এক চামচ রসই যথেষ্ট। পেঁয়াজরস চুলের জন্য খুবই উপকারী। এটি নতুন চুল গজাতেও সাহায্য করে সঙ্গে চুল মসৃণও করে।

চিনির গুঁড়ো মিশিয়ে নিন

এর মধ্যে আধ চামচ চিনির গুঁড়ো মিশিয়ে নিতে হবে। চিনি স্ক্যাল্পের মৃত কোষকে দূর করে। চুল ঝকঝকে করে। মাথার ত্বকের তেল চিটে ভাবও দূর করে।

মিশ্রণটি আলতো হাতে মাখান

এই মিশ্রণটি ভালো করে মিশিয়ে ঠিক শ্যাম্পু করার মতো করেই চুলে ব্যবহার করতে হবে। চুলে দিয়ে বেশ খানিকক্ষণ আলতো হাতে মাথায় মাখাতে থাকুন। এর পর অন্তত চার থেকে পাঁচ মিনিট দিয়ে রাখতে হবে। তার পর ভালো করে চুল জল দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে।

চুল ধুয়ে ফেলার পরই তাতে পরিবর্তন লক্ষ করতে পারবেন। আগের থেকে বেশ কিছুটা হালকা, নরম ও উজ্জ্বল দেখাবে। এই পদ্ধতিটি নিয়মিত করলে চুলের চেহারাই বদলে যাবে। ঠিকমতো ফল পেতে সপ্তাহে অন্তত দু’ বার এই প্যাক ব্যবহার করতে হবে।

আরও জানতে হলে দেখুন

তবে সব সময়ের মতো এই বারও একই কথা আবার বলব। যে কোনো কিছুই করা হোক না কেন, চুল বা ত্বকের চেহারা ভালো রাখতে বাইরের উপকরণের সঙ্গে সঙ্গে অবশ্যই চাই ভেতরের পুষ্টিও। তাই সুষম খাদ্য একান্ত জরুরি। তাই প্রতি দিনের খাদ্য তালিকায় প্রাণীজ প্রোটিন, ভিটামিন ও অন্যান্য খনিজ থাকা খুবই দরকার।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here