ওয়েবডেস্ক: রসুন দিয়েই হবে বাজিমাত! ভাবছেন, এই সব আবার কী বলছি?

আজ্ঞে হ্যাঁ, নিয়মিত রসুন ব্যবহার করলে অনেক কিছু সমস্যা থেকে পেতে পারেন মুক্তি। চুল ও ত্বকের জন্য একেবারে ম্যাজিকের মতো কাজ করে রসুন।

তা হলে রসুনের উপকারিতাগুলি একবার জেনে নেওয়াই যাক-

১। ব্রণ কমাতে সাহায্য করে

রসুনে আছে অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি উপাদান যা ব্রণ কমাতে বেশ সাহায্য করে। ব্রণর জন্য দায়ী ক্ষতিকর ব্যাকটেরিয়াকে নির্মূল করে। এর জন্য কাঁচা রসুনের একটা কোয়া চিবিয়ে খেতে পারলে ভালো। রোজ না হলেও সপ্তাহে তিন চারদিন খান। রসুন খাবার পর ঠান্ডা জল খান।

২। স্কিন এজিং

নিজের যৌবন চিরকাল ধরে রাখতে চান? তা হলে রসুন খান। কারণ রসুনে আছে প্রচুর অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট যা স্কিনকে সতেজ রাখে। স্কিন এজিং-এর একটা বড় কারণ হল ক্ষতিকর সূর্যরশ্মি। রিঙ্কেল, ফাইন লাইনস, এজ স্পট, ডার্ক স্পট থেকে স্কিনকে দূরে রাখে রসুন।

উপকরণ

কাঁচা রসুন ১ কোয়া, মধু ১ চামচ, লেবু খানিকটা।

পদ্ধতি

কিছুই না, শুধু কাঁচা রসুন ১ কোয়া মধু ও লেবুর সাথে চিবিয়ে খেতে হবে। তা হলেই দেখতে পাবেন রসুনের কেরামতি।

৩। ব্ল্যাকহেডস

স্কিনে সাধারণত অতিরিক্ত তেল জমে থাকার ফলে ব্ল্যাকহেডস দেখা যায়। ব্ল্যাকহেডস কমাতেও রসুন বেশ সাহায্য করে।

উপকরণ

৩ কোয়া রসুন, ৪ টুকরো টম্যাটো।

পদ্ধতি

একটু রসুন ও টম্যাটো মিশিয়ে পেস্ট বানিয়ে ফেলুন। এটা ১৫ মিনিট মতো রেখে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ২-৩ দিন করুন। এটা ব্ল্যাকহেডস রিমুভ করবে এবং স্কিনকে করে তুলবে হেলদি।

৪। হোয়াইটহেডস

নাকের ওপর হোয়াইটহেডস কি বাজেই না লাগে! এটাও কমাবে রসুন, যদি কাঁচা রসুন চিবিয়ে খেতে পারেন। এবং রসুনের রসের সাথে টম্যাটোর রস মিশিয়ে লাগাতে পারেন। ভালো ফল পাবে।

৫।  স্কিন ইনফেকশন

দু’দিন ছাড়াই স্কিন ইনফেকশন লেগেই আছে? তা হলে অবশ্যই কাঁচা রসুন চিবিয়ে খান। রোজ খেতে হবে না, এতে আবার পেট গরম হতে পারে। সপ্তাহে ৩-৪ দিন খান। স্কিন ইনফেকশন থেকে মুক্ত থাকবেন।

[আরও পড়ুন: শীতকালে ঘরে তৈরি এই ৪টি ফেসপ্যাকের জাদুতেই শুষ্ক ত্বককে করে তুলুন পুরো মাখন] 

৬।  চুল পড়া কমায়

রসুন যেমন চুলের বৃদ্ধিতে সাহায্য করে, তেমনই অতিরিক্ত চুল পড়াও নিয়ন্ত্রণ করে। কয়েকটা রসুনের কোয়া কেটে নিয়ে স্ক্যাল্পে ঘষুন। বা রস ও করে নিতে পারেন। এই রস সপ্তাহে দু’দিন লাগান। এক মাসের মধ্যেই ফল পাবেন। এ ছাড়া অলিভ  অয়েলের মধ্যে রসুন ভালো করে ফুটিয়ে সেই তেলটা স্ক্যাল্পে ভালো করে ম্যাসাজ করুন। চুল পড়া বন্ধ হতে বাধ্য।

৭।  খুশকি কমাবে রসুন

খুশকি কমাতে অনেক টাকা খরচ করে নানারকম শ্যাম্পু কেনেন। কিন্তু বাড়ির এই সহজ উপাদানটি অনেক ভালো যে কোনও খুশকি স্পেশাল শ্যাম্পুর থেকে। রসুনের রস স্ক্যাল্পে লাগান। এতে চুল পড়াও যেমন কমবে, তেমনই খুশকিও কমবে।

৮। চুল কালো রাখতে

অল্প বয়সেই চুল পেকে যাচ্ছে? বাঁচার একমাত্র উপায় রসুন। কারণ রসুন এই অকালপক্কতা কমাতে দারুণ উপকারী। এর কারণ এতে থাকা প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, যেটা অকালপক্কতা নিয়ন্ত্রণ করে। এর জন্য কাঁচা রসুন চিবিয়ে খেলে তো ভালোই। সঙ্গে আরেকটি পদ্ধতিও দেখতেও পারেন।

উপকরণ

৪ কোয়া কাঁচা রসুন, ৩ চামচ নারকেল তেল, হাফ চামচ  গোলমরিচ গুঁড়ো।

পদ্ধতি

নারকেল তেলের মধ্যে কয়েক কোয়া রসুন ও একটু গোলমরিচ গুঁড়ো মিশিয়ে নিন। এবার কম আঁচে ফুটিয়ে নিন। তেল ঠান্ডা হলে এটা ভিজে চুলে লাগান। ২০ মিনিট পর চুল ধুয়ে নিন। চুল থাকবে কালো ও স্বাস্থ্যোজ্জ্বল।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here