ওয়েবডেস্ক: বেশিরভাগ মানুষই এখন ব্রণর সমস্যায় ভোগেন।  কিন্তু একবারও কী ভেবে দেখেছেন কেন হয়।

কাজের চাপে হয়তো নিজেকে সময় দিতে পারছেন না। কিন্তু তা বললে তো আর হয় না। নিজেকে সুন্দর রাখতে গেলে একটু কষ্ট করেই দেখুন।

তবে ঠিক কী কী কারণে কপালে ব্রণ হয় একবার জেনে নেওয়া যাক-

১। কম দামী কসমেটিক্স

হরেক রকমের কম দামী কসমেটিক্সের ছড়াছড়ি বাজারে। হয়তো সব মানুষের পক্ষে দামি কসমেটিক্স ব্যবহার করা সম্ভব নয়। আর সেখান থেকে ঘটে যায় যত বিপদ। কারণ কম দামি কসমেটিক্স যেসব উপাদান থাকে সেগুলো আমাদের ত্বকের জন্য হয়ে দাঁড়ায় ক্ষতিকারক। সেখান থেকেই ব্রণর সমস্যা দেখা দেয়।

২। খুসকি ও তৈলাক্ত স্ক্যাল্প

মাথায় যদি খুসকির পরিমাণ খুব বেশি হয় তখন মাথার স্ক্যাল্পও  তৈলাক্ত হয়ে যায়। সেখান থেকেই কপালে ব্রণর সমস্যা দেখা যায়।

৩। গ্যাসের সমস্যা

বেশিরভাগ মানুষই গ্যাস-অম্বলের সমস্যায় ভোগেন। গ্যাস, অম্বলের সমস্যা থাকলে কপালে ব্রণ ওঠে।

৪। চিন্তা

কম-বেশি চিন্তা প্রতিটি মানুষের মধ্যে থাকে। অনেক সময় বেশি চিন্তা করলে সেখান থেকে কপালে ব্রণর সমস্যা দেখা দেয়।

তা হলে জেনে নেওয়া যাক ব্রণর সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন কীভাবে-

১। লেবু

জানা আছে নিশ্চই লেবু অনেক সমস্যার সমাধান করতে পারে। হ্যাঁ! ঠিক সেই ভাবেই, কপালে ব্রণ হলে লেবু পারে ব্রণর হাত থেকে মুক্তি দিতে।

২ চামচ লেবুর রস নিয়ে কপালে লাগান। ৫ মিনিট রাখার পর ধুয়ে ফেলুন।

২। ময়দা ও হলুদ

ব্রণ কমাতে ময়দা ও হলুদ খুবই ভালো। তিন চামচ ময়দার সঙ্গে ১ চামচ হলুদ মিশিয়ে একটি প্যাক বানিয়ে নিন এবং প্যাকটির মধ্যে সামান্য জল মিশিয়ে নিন। ১৫-২০ মিনিট কপালে লাগিয়ে রাখুন। এরপরে ঠান্ডা জলে ধুয়ে নিন।

৩। তরমুজ

তরমুজ খাওয়া যেমন স্বাস্থ্যের জন্য ভালো। কিন্তু এটা হয়তো অনেকেরই জানা নেই কপালে ব্রণর সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে তরমুজ। এক টুকরো তরমুজ নিয়ে কপালে হালকা করে লাগান। ১০ মিনিট রাখার পরে ধুয়ে ফেলুন।

৪। গোলমরিচ

লেবু কিংবা হলুদ এগুলি রূপচর্চার জন্য লাগে এটা সবাই জানেন। তবে রূপচর্চার কাজে যে গোলমরিচ লাগে এই বিষয়টি অনেকের কাছেই অজানা।

১ চামচ গোলমরিচ নিয়ে আগে ভালো করে বেটে নিন। তারপরে ওই গোলমরিচের মিশ্রণের মধ্যে ২ চামচ গোলাপ জল মিশিয়ে নিন। ১৫-২০ মিনিট রেখে ধুয়ে নিন।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here