মধুর প্যাক দিয়ে দূর করুন চোখের নীচের বলিরেখা

0
skin
প্রতীকী

ওয়েবডেস্ক : বয়স বাড়লে যে সমস্যাটা খুব সহজেই চোখে পড়ে তা হল ত্বক কুঁচকে যায়। বিশেষ করে চোখের নীচের বলিরেখা খুবই প্রকোট হয়ে ওঠে। এর ফলে চেহারা দেখতে বুড়োটে লাগে।

এই সমস্যা থেকে বাঁচতে রয়েছে বেশ কিছু ঘরোয়া ও স্বাস্থ্য সম্মত প্রাকৃতিক পদ্ধতি। তারই মধ্যে একটি হল মধুর ব্যবহার। মধুর একাধিক গুণাগুণ রয়েছে। সেগুলি নিয়ে এর আগেই আলোচনা করা হয়েছে। তেমনই একটি গুণ হল মধু বলিরেখা দূর করে ত্বক নরম ও মসৃণ করে। তারুণ্য ভরিয়ে তোলে।

তবে কী ভাবে ব্যবহার করতে হবে এই মধু?

মধুর সঙ্গে যোগ করতে হবে দুধ ও লেবুর রস। দুধ এবং পাতিলেবুও ত্বকের পরিচর্যায় দু’টি খুবই ভালো উপকরণ।

পদ্ধতি –

প্রথমে দুই চামচ মধু নিতে হবে। তার পর তাতে তিন চামচ কাঁচা দুধ যোগ করতে হবে। তাতে সামান্য লেবুর রস মেশাতে হবে।

বলে রাখা ভালো, মধুর কাজ হল ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখা। পিএইচের ভারসাম্য ফিরিয়ে আনা। এর ফলে ত্বক হয় নরম ও মসৃণ।

কাঁচা দুধের ভিটামিন ও মিনারেল ত্বকের কোষ সতেজ রাখে। এই গুণের জন্য ত্বক কুচকায় না। ফলে বলিরেখাও পড়ে না। এ ছাড়া নতুন কোষ জন্মাতে সাহায্য করে। এতে চেহারায় সহজে বয়সের ছাপ পড়ে না।

পড়তে পারেন – কেন খাবেন মধু? জেনে নিন মধুর এই ৩৩টি উপকারিতা

লেবুর রস ত্বকে প্রাকৃতিক ব্লিচের কাজ করে। এই প্রাকৃতিক ব্লিচ ত্বকের কালো দাগ ও ব্রণ দূর করতে কার্যকর।

মিশ্রণটি তৈরি হয়ে গেলে প্রথমে ভালো করে মুখ পরিষ্কার করে নিয়ে তবেই তা ভাল করে মুখে লাগাতে হবে। ১৫ মিনিট রেখে হালকা গরম জলে ধুয়ে ফেলতে হবে। তবে গোটা ব্যাপারটাই হালকা হাতে করতে হবে। সপ্তাহে কম করে তিন থেকে চার বার করতে পারলে সুফল মিলবে। তবে রোজ ব্যবহার করতে পারলেই ভালো। মুখ ধুয়ে ফেলার পর অবশ্যই পছন্দের কোনো ময়শ্চারাইজার লাগিয়ে নিতে হবে।  

এই প্যাকটি লাগানোর আদর্শ সময় হল রাতে ঘুমের আগে। কারণ লেবুর প্যাক দিনের আলোয় ব্যবহার না করাই ভালো। সূর্যের ক্ষতিকর রশ্মির কারণে ত্বক পুড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

দেখুন – দাঁতে হলদে ছোপ পড়ছে? দূর করতে ১০টি ঘরোয়া উপায়

------------------------------------------------
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।
সুস্থ, নিরপেক্ষ সাংবাদিকতার স্বার্থে খবর অনলাইনের পাশে থাকুন।সাবস্ক্রাইব করুন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.