শীতের আগে গোড়ালির যত্নে অব্যর্থ ঘরোয়া টিপস

0
footcare
প্রতীকী ছবি

ওয়েবডেস্ক: শীত আসছে বলে মনের কোণে চিন্তারা উঁকি দিচ্ছে? আপনার ফাটা গোড়ালি দিয়ে সমস্যার দিন আসতে চলেছে বলে, মন খারাপ?

সারা বছর ধরে যাঁরা কোনো না কোনো কারণে নিজের পায়ের যত্ন করার এতটুকুও সময় করে উঠতে পারেন না তাঁদের জন্য রইল আজকের বিশেষ টিপস। এই টিপসগুলি মানলে উপকার হবেই হবে।

তবে একটা কথা কী জানেন তো যত্ন না করলে কোনো কিছুই টেকে না। সেখানে গোড়ালি সারা দিনে সব থেকে বেশি পরিশ্রম করে আপনার জন্য। তার কথা দিনের মধ্যে এক বার, নিদেন পক্ষে সপ্তাহে এক বার তো ভাবা অবশ্যই উচিত। তা যদি না হয় তা হলে ফাটা গোড়ালির আর দোষ কী?।

ফাটা গোড়ালির সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে হলে অবশ্যই এই টিপসগুলিকে অভ্যাসে পরিণত করতে হবে। তা হলে দেখবেন ফাটা গোড়ালির জন্য পা লুকাতে হবে না। যে কোনো মরশুমে এমনকী শীতকালেও গোড়ালি দেখিয়ে মাথা উঁচু করে চলতে পারছেন।

গোড়ালি ফাটলেই যে সমস্যাটি প্রথম হয় –

১। তা হল শক্ত চামড়া আর খরখরে গোড়ালি।

২। এর পর শক্ত চামড়া ভেঙে ঝরে পড়ে।

৩। সামান্য হাঁটলেই গোড়ালি ব্যথা করে।

৪। চূড়ান্ত অবস্থায় কখনও কখনও তো গোড়ালি থেকে রক্তও পড়তে থাকে।

এই পরিস্থিতিতে কী করবেন?

প্রথমেই বলা হয়েছে, কয়েকটি বিষয়কে অভ্যাসে পরিণত করতে হবে।

পড়তে পারেন – রাতে শুধুই নাইটক্রিম নয়, ত্বককে দিন এই যত্নটিও

১। সব সময় পা এক্কেবারে পরিষ্কার রাখুন। দিনের মধ্যে অন্তত একবার পা পরিষ্কার করুন।

২। চেষ্টা করুন সব সময়ে বাড়িতে খালি পায়ে না হেঁটে স্লিপার বা হাওয়াই চটি পরে থাকার৷

৩। সারা বছর প্রতিদিন স্নানের সময়ে ঝামা পাথর দিয়ে অথবা ফুট ফাইল দিয়ে পা ঘষে নিন।

৪। শরীরের সব ক্ষেত্রে যেমন ক্লেনজিং এর পর ময়শ্চারাইজিংটা অবশ্যই দরকার, ঠিক তেমনই পা পরিষ্কার করে স্নানের পর অবশ্যই মনে করে ফুট ক্রিম লাগাতে হবে।

৫। রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে যেমন নিয়ম করে নাইট ক্রিম হ্যান্ড ক্রিম মাখেন, ঠিক তেমন ভাবেই নিয়ম করে পা পরিষ্কার করে ফুট ক্রিম লাগাতে হবে।

৬। পায়ের যত্নে ও গোড়ালিকে স্বাস্থ্যবান রাখতে মাঝে মধ্যে ব্যবহার করুন স্ক্রাবার। তার জন্য ঘরোয়া প্যাক অথবা বাজার চলতি স্ক্রাবার ব্যবহার করা যেতেই পারে।

৭। নিয়ম করে সপ্তাহে এক বার বা ১৫ দিনে এক বার যদি পেডিকিওর করানো যায় তা হলে তো আর কথাই নেই।

পায়ের ত্বককে আর্দ্র রাখতে ঘরোয়া টোটকা –
footcare

গরম জল ও পাতিলেবু : পা-কে নরম রাখতে পারে গরম জল আর পাতি লেবু। তাই রাতে শোয়ার আগে কুসুমকুসুম গরম জলে একটি পাতিলেবু চিপে জল তৈরি করে নিয়ে তাতে পা পাঁচ থেকে দশ মিনিট ডুবিয়ে রাখা যেতে পারে। তার পর ঝামা দিয়ে পা আলত করে ঘষে  গরম জল দিয়ে ধুয়ে নিতে হবে। এর পর পা তোয়ালে দিয়ে মুছে ফুট ক্রিম লাগিয়ে নিতে হবে।

নারকেল তেল আর মোম : কোনো একটি উপায়ে আগে থেকে পা পরিষ্কার করে রাখতে হবে। এর পর একটি পাত্রে নারকেল তেল আর মোম নিয়ে গরম করুন। মোম গলে যাওয়া অবধি গরম করতে হবে। মিশ্রণটি ঠান্ডা করতে দিন।  তারপর ফাটা গোড়ালিতে এই মিশ্রণ লাগিয়ে মোজা পরে শুয়ে পড়তে হবে। পরের দিন সকাল অবধি পায়ে জল দেওয়া যাবে না।

পেট্রোলিয়াম জেলি: রাতে শোওয়ার আগে গরম জলে আধ ঘণ্টা পা ডুবিয়ে রাখতে হবে৷ তারপর ঝামা দিয়ে পা ঘষে তুলতে হবে। এতে মৃত কোষগুলি উঠে যাবে। পা হালকা করে মুছে আসতে আসতে জল শুকতে দিন। এ বার পেট্রোলিয়াম জেলি মোটা করে লাগিয়ে দিন। এ বার একটি পুরনো ঢলঢলে মোজা পায়ে গলিয়ে নিন। তার পর শুতে যান। এটা শীতকালভর করতে পারলে পা ভালো থাকবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.