wedding makeup
এমন ভাবে নিজেকে সাজান দেখবেন বর আপনার দিক থেকে চোখ ফেরাতে পারছে না। 

ওয়েবডেস্ক: সামনেই বিয়ে? অথচ গায়ের রঙ চাপা বলে কী ভাবে নিজের বিয়েতে সাজবেন বুঝতে পারছেন না।

সঠিক ভাবে মেকআপ করলে সবার চোখ থাকবে আপনার দিকে। কী ভাবছেন? ফর্সা হলে তাদের সবই মানিয়ে যায়। কিন্তু গায়ের রঙ চাপা হলে সব রঙ বা সব কিছু মানায় না। অনেক বুঝেশুনে মেক আপ করতে হয়। যদি দেখতে খারাপ লাগে। এটাই ভাবছেন তো?

অত না ভেবে, আসুন জেনে নিন কী ভাবে মেকআপ করলে আপনাকেও ভালো লাগবে। এমন ভাবে নিজেকে সাজান দেখবেন বর আপনার দিক থেকে চোখ ফেরাতে পারছে না।

১। মুখের মেকআপ

সাজের প্রথম ধাপ হল ফাউণ্ডেশন। এটাই বেস মেকআপ তাই একটা খুব গুরুত্বপূর্ণ। সাধারণত ত্বকের রঙের সঙ্গে যায় এমন রঙের ফাউণ্ডেশন ব্যবহার করা উচিত। ত্বকের রঙের থেকে খুব বেশি হালকা রঙ নেবেন না। ত্বকের রঙের থেকে এক শেড হালকা রঙের ফাউণ্ডেশন ব্যবহার করতে পারেন। আর ত্বকের রঙ চাপা হলে ওয়াটার বেস ফাউণ্ডেশন ব্যবহার করাই ভালো। ক্রিম বেস নয়। এর পর লাগিয়ে নিন কমপ্যাক্ট। চাইলে ব্লাশ অন লাগাতেই পারেন। তবে ব্রাউন, পিচ, এই রঙগুলি এড়িয়ে চলুন। দিনে বারগেণ্ডি, গাঢ় পিঙ্ক আর রাতের অনুষ্ঠান থাকলে হালকা সোনালিও লাগিয়ে দেখতে পারেন। ভালো লাগবে।

২। চোখের মেকআপ

চোখের মেকআপ ছাড়া পুরো সাজটাই অসম্পূর্ণ। চোখকে ঠিকমতো সাজালে তবেই মেকআপ পারফেক্ট হয়। তাই চোখকে ঠিকমতো সাজানো দরকার। যাদের ত্বকের রঙ চাপা তারা লাইনার সরু করে লাগাবেন। খুব বেশি মোটা করে লাগালে ভালো লাগবে না। আর চোখকে সাজাবার আগে কমপ্যাক্ট হালকা করে বুলিয়ে নিন চোখের চার পাশে। তার পর চোখের মেক আপ শুরু করুন। কাজল খুব বেশি লাগানোর দরকার নেই। একদম হালকা করে লাগান। আর অ্যাইশ্যাডো লাগাতে চাইলে সোনালি, বারগেণ্ডি রঙ ব্যবহার করতে পারেন। এর পর দিন মাস্কারা।

[আরও পড়ুন: সামনেই বিয়েবাড়ি? এই ৪টি সহজ উপায়ে ঠিক রাখুন মুখের মেকআপ] 

৩। ঠোঁটের মেক আপ 

বিয়েতে যে পোশাক পরবেন এবং স্কিন টোনের সঙ্গে যায় এমন লিপস্টিক ব্যবহার করুন। গ্লসি লিপস্টিক লাগানোর পরিবর্তে ব্যবহার করুন একটু ডার্ক শেডের ম্যাট লিপস্টিক। আর ম্যাট এখন বেশ ফ্যাশনেবল। বারগেণ্ডি, হালকা পিঙ্ক, কফি, চকোলেট – এ সব রঙ ব্যবহার করে দেখতে পারেন। লিপস্টিকের রঙের সঙ্গে ম্যাচ করে লিপ লাইনার লাগান।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here