বদরাগী মানুষের সঙ্গে সম্পর্ক সামলাবেন কী করে ? রইল টিপস

0

খবর অনলাইন ডেস্ক: প্রেম বা বিয়ে কোনোটাই ঝগড়া ছাড়া গভীরতা পায় না। ঝগড়া না হলে সম্পর্কে কোনো স্পার্ক নেই। টানা সাত দিন ঝগড়া, কথা বন্ধ এমন প্রায় প্রত্যেক সম্পর্কেই হয়। এতে গভীরতা বাড়ে। যেখানে ভালোবাসা বেশি, ঝগড়া খুনসুটি কিন্তু সেখানেই বেশি। এটা ভুললে চলবে না, সবারই আলাদা মতাদর্শ আছে। তাই মতবিরোধ স্বাভাবিক।

কিন্তু সব সময় অকারণে খুঁটিনাটি, ডাইনে-বাঁয়ে নিয়ে ঝগড়াও কাম্য নয়। ২৪ ঘন্টাই চিৎকার, ঝামেলা হলে সেই সম্পর্ক আবার স্থায়ী হলেও সুখের হয় না।

Loading videos...

তাই পার্টনার বা সঙ্গী যদি খুব বদরাগী হয় তা হলে তাকে সামাল দেওয়ার কয়েকটি টিপ রইল –

১। বচসায় যাবেন না

মনের মানুষটি যদি কথায় কথায় রেগে যান, সে ক্ষেত্রে সেই মুহূর্তে কোনো রকম কথা কাটাকাটি তর্ক বচসায় যাবেন না। কারণ অনেকেই রাগ হলে সামলাতে পারেন না। ভুলভাল কথা বলেন। সে সময়ে আপনি ঠান্ডা থাকুন। মানসিক ভাবে ঠিক থাকুন। ও সব কথায় বিশেষ আমল দেবেন না। বার বার এড়িয়ে যাওয়া সম্ভব নয় ঠিকই, কিন্তু যতটা সম্ভব চেষ্টা করুন।

২। খোলাখুলি কথা বলা

সম্পর্কে অধিকারবোধ সামান্য হলেও থাকা প্রয়োজন। সেটা দু’জনের দিক থেকেই থাকতে হবে। তা না হলে সম্পর্ক মধুর ও দৃঢ় হয় না। কিন্তু কারোরই প্রত্যেক বিষয়ে মাথা গলানো উচিত নয়। তেমন হলে সম্পর্ক নষ্ট হয়ে যায়। তাই সমস্যাটি নিয়ে খোলাখুলি কথা বলা উচিত। বুঝলে ভালো, না হলে বুদ্ধি দিয়ে সম্পর্কটিও নিয়ে বিবেচনা করা উচিত।

৩। সব বিষয়ে শাসন নয়

অনেকের মধ্যেই অন্য জনকে নিয়ন্ত্রণ করার প্রবণতা থাকে। তাঁদের মনে হয় উলটো দিকের মানুষটি নিজের ভালো বোঝে না। তাই অভিভাবকের মতো আচরণ করেন। কিছু ক্ষেত্রে সেটি খুবই ভালো হলেও সব ক্ষেত্রে তা না-ও হতে পারে। তাই এমন পরিস্থিতিতে বুঝিয়ে বলা দরকার যে, উভয়েই প্রাপ্তবয়স্ক। নিজের ভালো বোঝার ক্ষমতা আছে। তাই সব বিষয়ে শাসন না করলেও চলবে।  

পড়ুন – শিশুসন্তানের সঙ্গে এই আচরণগুলি ভুল করেও করবেন না

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.