নিজেকে ঠিক রাখতে মেনে চলুন এই চারটি কারণ

ওয়েবডেস্ক: ভাঙা গড়ার সম্পর্ক নিয়েই মানুষের জীবন। প্রতিটি মানুষের জীবনে একাধিক বার প্রেম আসে। কিন্তু সেই সম্পর্ককে টিকিয়ে রাখা দু’জনের দায়িত্বের মধ্যেই পড়ে।

এ বার কেউ যদি মনে করেন, ২-৩ মাস একটা সম্পর্কে থাকার পর আর সেই সম্পর্ককে টিকিয়ে রাখা সম্ভব হচ্ছে না,  তখন তাঁর সঙ্গীর সেই প্রত্যাখানের কষ্ট সহ্য করে নেওয়া কঠিন হয়ে পড়ে।

অনেক সময়ে আবার প্রেমে পড়া হয়তো একতরফা হয়ে যায়। সেটা হয় আরও বড় যন্ত্রণার। তাই প্রত্যাখানের যন্ত্রণা ভুলে গিয়ে জীবনের লক্ষ্যে এগিয়ে চলাই বুদ্ধিমানের কাজ।

তবে বলা যতটা সহজ করা ততটাই কঠিন। কারণ প্রতিটি মুহূর্তে মনের মধ্যে তাড়া করে বেড়াবে না পাওয়ার ব্যথা।

ভাবছেন হয়তো আপনি ব্যর্থ? কিন্তু যদি কোনো ব্যর্থতা মনের মধ্যে থেকেও থাকে সেই ব্যর্থতাকে মন থেকে যত শীঘ্রই সম্ভব সরাতে হবে।

আসুন জেনে নেওয়া যাক –

১। নিজেকে দোষী করবেন না

একটা সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার পিছনে হয়তো অনেক কারণ থাকতে পারে। আপনি হয়তো ভাবছেন আপনার জন্যই এই সম্পর্কটা টিকল না। আদৌ হয়তো তা নয়!

তাই অকারণে নিজেকে দোষী বানাবেন না। ভবিষ্যতে ফের সম্পর্কে নিজেকে জড়ানোর আগে ভালো করে চিন্তা-ভাবনা করেই পা ফেলবেন।

২। ধৈর্যই একমাত্র পথ

প্রেম ভেঙে গেলে অনেকেই মাথা ঠিক রাখতে পারেন না। মাথার মধ্যে আসে যত উল্টো-পাল্টা চিন্তা-ভাবনা। যে পরিস্থিতি আসুক ধৈর্য হারাবেন না।

অন্যের বুদ্ধিতে আবার নতুন করে কোনো সম্পর্কে জড়াবেন না। বরং নিজের বুদ্ধিতে সব কিছু বিবেচনা করেই সিদ্ধান্ত নেবেন।

৩। নিজেকে নতুন করে চিনতে শিখুন

একবার প্রেমে ব্যর্থ হয়েছেন বলে কী জীবনের সবকিছুই শেষ হয়ে গেছে। একেবারেই তা নয়!

ভালোবাসা, প্রেম এগুলির বাইরে বেরিয়ে যদি জীবনটা দেখেন, দেখবেন জীবনে করার অনেক কাজ রয়েছে। নিজের জীবনটাকে ঠিক জায়গায় ঠিক ভাবে প্রতিষ্ঠা করুন। দেখবেন মনের মধ্যে থাকা হতাশা, মানসিক অবসাদ সব কিছু থেকে আপনি মুক্তি পাবেন।

আরও পড়ুন: স্বামী বা প্রেমিক আপনাকে ঠকাচ্ছেন না তো? চোখ রাখুন এই ১০ লক্ষণে!

৪। মেনে নিন

নিজের সব থেকে কাছের মানুষটি যখন পাশ থেকে সরে যায় এটা খুবই অপমানের এবং আঘাতের। কিন্তু সেই পরিস্থিতিতে হেরে গেলে চলবে না। নিজেকে শক্ত করে মাথা উঁচু করে বাঁচতে হবে। দেখবেন ভালো কোনো কিছুই আপনার জন্য অপেক্ষা করছে।

শুধু আপনাকে কোনটা ঠিক আর কোনটা ভুল নিজেকে বুদ্ধি দিয়ে ভেবে সিদ্ধান্ত নিতে হবে। এতে দেখবেন জীবনে আবার নতুন মানে খুঁজে পাবেন।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন