নিজস্ব প্রতিনিধি: উপহার নিতে কার না ভালো লাগে। কিন্তু শুধু উপহার দিতে ভালো লাগে, এমন মানুষ হাতে গোনা পাওয়া যায়। সেই হাত গোনা মানুষের মধ্যে পড়ে্ন আশা পাল। আসলে আশার প্রতিদিনকার বিচরণ যেখানে, তার নিরিখে নামটা বড়ো সেকেলে মনে হতে পারে।

তবু নামে কী বা আসে যায়? বুকের মধ্যে এক রাশ আশা আর স্বপ্ন নিয়ে নেমে পড়েছিলেন ব্যবসায়। কীসের ব্যবসা? ‘কাস্টমাইজ গিফট আইটেম’ অর্থাৎ আপনার চাহিদামতো উপহারের সামগ্রী বানিয়ে দেওয়া।

‘কাস্টমাইজ’ ব্যাপারটা আজকাল খুব চলছে। কোনো বাঁধা গতে নয়, নিজের মনের মতো করে সাজিয়ে নেওয়া। ‘কাস্টমাইজ’ ভ্রমণ, খাওয়াদাওয়া, আরও কত কী। আর সেটাই আশার ব্যবসারও ‘ইউনিক সেলিং প্রপোজিশন’ বা ইউএসপি।

জেদ চেপে গিয়েছিল মনের মধ্যে। দাঁড় করাবই ব্যবসাটা,

ব্যবসার এই ‘সলতে পাকানো’ হয়েছিল উপহার দিতে ভালো লাগার জায়গা থেকে। নিজের হাতে উপহার বানিয়ে বন্ধুবান্ধবদের জন্মদিন বা কোনো উৎসব-অনুষ্ঠানে দিতেন আশা। কিন্তু এ নিয়ে ব্যবসা করা ভাবনা তখনও মনে চাগাড় দেয়নি।

আশা পাল

রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গণসংযোগ ও সাংবাদিকতা নিয়ে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি পাশ করার পর মিডিয়ার চাকরিতে যোগ দেন তিনি। চাকরির ফাঁকে ফাঁকে সুযোগ পেলেই উপহার বানাতে বসে যেতেন আশা।

কী ভাবে শুরু অনিশা ক্রিয়েশনসের

গত বছর সেপ্টেম্বর নাগাদ নিজের হাতে তৈরি একটি উপহারের ছবি দিয়ে হোয়াটস অ্যাপে স্ট্যাটাস দেন আশা। ছবিটা দেখেই তাঁর এক বন্ধু সেটা কিনে নিতে চান। আশার কথায়, ‘‘আমি বললাম, কিনবি কী রে, আমি তোকে ওটা এমনি পাঠিয়ে দিচ্ছি। ও রাজি হয়নি। গিফট আইটেমটা দাম দিয়ে কিনে নেয়। তার পর বন্ধুরাই আমাকে বলে তুই গিফট আইটেমগুলো নিয়ে ব্যবসা শুরু কর।’’

ব্যবসায়ী পরিবারের মেয়ে। ব্যবসার নানা ঘাত-প্রতিঘাত কাটিয়ে সংসার সামলে চলা বাবাকে দেখতে দেখতে বড়ো হয়ে ওঠা। তাই বন্ধুদের এই প্রস্তাবটা কোথাও মনের মধ্যে ধাক্কা দেয়। তৈরি হয় অনিশা ক্রিয়েশনস।

তার পর ফেসবুক পেজ তৈরি করে একের এক গিফট আইটেম বানিয়ে আপলোড করতে থাকেন তিনি। কিন্তু এক দিন, দু’দিন করে পঁচিশ দিন কেটে যায়। ক্রেতা কই? হতাশা ঘিরে ধরে মনকে। তার কথায়,‘‘ভাবলাম এ সব করে কী হবে? তার চেয়ে চাকরি করি।’’

আর ফিরে তাকাতে হয়নি

হঠাৎ একদিন পুরোনো অফিসের এক সহকর্মী একটি গিফট আইটেম কেনার অর্ডার দেন। সেই শুরু, আর ফিরে তাকাতে হয়নি। অর্ডারের পরিমাণ উত্তরোত্তর বেড়েছে। সেই অর্ডার সাপ্লাই দিতে গিয়ে বদলে গিয়েছে জীবনের রুটিন। ‘‘সাতসকালে উঠে অর্ডার অনুযায়ী গ্রিফট আইটেমগুলো পাঠানোর ব্যবস্থা করা। তার পর অফিস থেকে ফিরে আবার অর্ডার অনুযায়ী প্রোডাক্ট বানানো। কাজ চলে সেই ভোর তিনটে চারটে অবধি’’, জানিয়েছেন আশা।

কাস্টমাইজ টি শার্ট, কফি মগ, শোপিস, মোবাইল কভার, রাখি আরও কত কী। এর মধ্যে উল্লেখ‌‌যোগ্য হল হ্যান্ডমেড নানা গিফট আইটেমগুলো। ‌‌যেগুলো একেবারেই আলাদা, অন্যরকম। দামও নাগালের মধ্যে। প্রতি দিন শুধু অর্ডার সাপ্লাই নয় চলে নতুন নতুন উদ্ভাবন।

আশা জানিয়েছেন,‘‘প্রথম দিকে এই ব্যবসার কথা বাড়ির কাউকে জানাইনি। কারণ এটা যে একটা ব্যবসা হতে পারে সেটাই হয়তো কেউ বিশ্বাস করবে না। রাত জেগে কাজ করেছি দেখে মা জিজ্ঞেস করতেন, বেশ তো চাকরি করছিলি, কী এ সব ব্যবসা করছিস।’’

‘‘জেদ চেপে গিয়েছিল মনের মধ্যে। দাঁড় করাবই ব্যবসাটা,’’ জানিয়েছেন আশা। সেই জেদই তাঁকে রাত জাগায়। শুধু ভারতবর্ষ নয় বিদেশ থেকেও অনিশা ক্রিয়েশনস-এর  কাস্টমাইজ গিফট আইটেমের জন্য অর্ডার আসে।

We are ready with our customized-handcrafted items. Select what you want to buy. Anisha Creations is waiting for you. Full damage Replacement �Delivery all over India For Orders Whatsapp � https://api.whatsapp.com/send?phone=919830724905@myanishacreations#customizediteams #handcrafted #anishacreations

Posted by Anisha Creations on Monday, August 6, 2018

অনিশা ক্রিয়েশনের ফেসবুক পেজ আসা ক্রেতাদের মন্তব্য

বিক্রি মূলত হয় ফেসবুকে পেজের মাধ্যমে। তবে অনিশা ক্রিয়েশনসের একটা ওয়েবসাইটও রয়েছে। সেখান থেকে কেনাকাটি করা যাবে। সঙ্গে রয়েছে অনলাইন পেমেন্টের সুবিধাও।

খুব শীঘ্রই একটি আউটলেট খুলতে চলেছে অনিশা ক্রিয়েশনস। অনলাইন ছাড়িয়ে কেন আউটলেট? আশা জানিয়েছেন, ‘‘আসলে ক্রেতাদের দাবি। ধরুন হঠাৎ কারো জন্মদিনের কথা মনে পড়ল, অনলাইনে উপহার অর্ডার দিয়ে হাতে পেতে বেশ কিছু দিন সময় লাগবে। কিন্তু দোকান থাকলে দিনের দিন উপহারটা কিনে নিতে পারবেন। তা ছাড়া আউটলেটে হাতের সামনে অনেক কিছু বেছে নেওয়ার সুযোগও থাকে।’’

আজকাল সোশ্যাল মিডিয়াকে কাজে লাগিয়ে অনেকেই স্বনির্ভর হচ্ছেন। বিশেষ করে মহিলারা। একজন মেয়ে হিসাবে শুধু স্বনির্ভর নয়, নিজের উদ্ভাবনী শক্তিতে ভর করে তাকেও ছাপিয়ে যেতে চান আশা। শুধু নিজে উদ্যোগপতি হয়ে ওঠা নয়, মেয়েদের মধ্যেও এই ভাবনাকে ছড়িয়ে দিতে চান তিনি। তাঁর আশা, একদিন সমস্ত অমানিশা কাটিয়ে চাঁদের আলোর মতো ছড়িয়ে পড়বে অনিশা ক্রিয়েশনস।

অনিশা ক্রিয়েশনসের গিফট আইটেম কিনতে ‌যোগাযোগ করুন

ফেসবুক পেজ : https://www.facebook.com/anisha1604/

ওয়েবসাইট : https://myanishacreations.com/

হোয়াটস অ্যাপ : 098307 24905

ইনস্টাগ্রাম : https://www.instagram.com/anishacreation/
https://www.instagram.com/myanishacreations/

ইমেল করুন: [email protected]


বিজ্ঞাপন প্রতিবেদন

উত্তর দিন

আপনার মন্তব্য দিন !
আপনার নাম লিখুন