Connect with us

ঘরদোর

ভ্যাকিউম ক্লিনার ব্যবহারের ৭টি জরুরি তথ্য, অবশ্যই জানা উচিত

Published

on

খবর অনলাইন ডেস্ক: আজকাল হাতে সময় কম কিন্তু কাজ বেশি। তার ওপর ধুলো নোংরার পরিমাণ দিনের দিন বাড়ছে। তাই কাজ অতি দ্রুত করার প্রয়োজন। সঙ্গে আবার ছোটো বড়ো সকলেরই নানান কারণে ব্যথার প্রকোপ। ফলে সময় বা প্রয়োজন থাকলেও বেশি কাজ করাও সম্ভব নয়। তাই সহজে কাজ সারতেই আমরা টেকনোলজির হাত ধরছি। তেমনই ঘরদোরের ধুলো পরিষ্কার করার জন্য রয়েছে ভ্যাকিউম ক্লিনার। এই নামটা অনেকেই জানেন। কিন্তু অনেকেই এর ব্যবহার, ধরন বা প্রয়োজনীয়তা ঠিক কতটা তা জানেন না। আজ রইল এর ব্যবহারের সঠিক পদ্ধতি থেকে শুরু করে নানা বিষয়ে খুঁটিনাটি কথা।

কেন কিনবেন ভ্যাকিউম ক্লিনার?

সোজা ভাবে দাঁড়িয়েই ঘর, গাড়ি, খাটের তলা, ঘরের আনাচকানাচ, সোফা, ঘরের পর্দা, কার্পেট, তোষক, জ্যাকেট, গাড়ি, ভারী চাদর ইত্যাদি পরিষ্কার করার জন্য এটি খুবই উপকারী। এমনকি ঝুলঝাড়ার কাজটিও এটি ভালোই করে।

কী ভাবে কাজ করে?

এটি বিদ্যুতের সাহায্যে চলে। ভ্যাকিউম ক্লিনার ব্যবহার করার যোগ্য ভোল্টেজ ১২V, পাওয়ার কনজাম্পসন ৪৮W।

Loading videos...

কত রকমের হয়?

বাজারে নানা ধরনের ভ্যাকুয়াম ক্লিনার আছে। সিলিন্ড্রিক্যাল ভ্যাকুয়াম, আপরাইট ভ্যাকুয়াম ক্লিনার।

১। সিলিন্ড্রিক্যাল ভ্যাকুয়াম ক্লিনার – এটি ছোটো ও হালকা। এটি দিয়ে মোটামুটি সব জায়গা পরিষ্কার করা যায়।

২। আপরাইট ভ্যাকুয়াম ক্লিনার – এটি ভারী। এটি আগেরটির থেকে অনেক বেশি পরিমাণে ধুলা-ময়লা টানতে পারে। কার্পেটের মতো ভারী জিনিস পরিষ্কার করতে লাগে।

কেনার আগে কী কী খেয়াল করবেন?

১। প্রতিটি ব্র্যান্ডের ভ্যাকুয়াম ক্লিনারের সঙ্গে একাধিক অ্যাটাচমেন্ট থাকে। তাই প্রত্যেকটি অ্যাটাচমেন্ট কেনার আগেই লাগিয়ে ও খুলে দেখুন।

২। ব্যবহার করে বুঝে নিন।

৩। আপনার প্রয়োজনের উপর নির্ভর করে সঠিকটি বেছে নিন। বিস্তারিত জেনে কিনুন। তবে ভ্যাকুয়াম ক্লিনার স্লিকার এবং হালকা হলেই ভালো।

৪। অনেক সময় ভ্যাকুয়াম ক্লিনারের চাকা মেঝের ক্ষতি করে। দেখে নিন চাকায় ঠিকমতো প্যাডিং দেওয়া রয়েছে কি না।

৫। গ্যারান্টি ও সার্ভিসিংয়ের পূর্ণাঙ্গ তথ্য জেনে নিন।

সুবিধেজনক কোনটি?

এর অ্যাটাচমেন্টগুলি দুই রকমেরই হয়, প্ল্যাস্টিক ও মেটালের। প্লাস্টিক থেকে মেটাল বেশি দিন টেকে। তাই দেখে নিন।

অনেক ভ্যাকুয়াম ক্লিনারে ডাস্টব্যাগ থাকে না। কিন্তু ডাস্টব্যাগ-সহ ভ্যাকুয়াম ক্লিনার ব্যবহার সুবিধাজনক। সব ধুলোময়লা সিল করা ব্যাগে জমা হয়। ব্যাগ ভর্তি হলে তা পরিষ্কার করে ফেলা যায়।

আবার ব্যাগ অনেক ক্ষেত্রে নিয়মিত বদল করতে হয়। তাই ঘরের জন্য সেরা ভ্যাকুয়াম ক্লিনারগুলির নতুন মডেলগুলি ব্যাগলেস থাকে। সে ক্ষেত্রে এর মধ্যেই ময়লা জমা হয়। সেখান থেকে ফেলে দেওয়া যায়।

ভ্যাকুয়াম ক্লিনারের পাওয়ার বা এনার্জির ওপর কর্মক্ষমতা নির্ভর করে। সিলিন্ড্রিক্যাল ক্লিনার ১৪০০ ওয়াট আর আপরাইট সিলিন্ড্রিক্যাল ১৩০০ ওয়াট হলে ভালো হয়।

ভ্যাকুয়াম ক্লিনারের সঠিক ব্যবহার কী?

১। ম্যানুয়ালের নির্দেশ অনুযায়ী ক্লিনারের অ্যাটাচমেন্ট ব্যবহার করুন। যেমন- ঘরের কোনের জন্য সরু মুখ ভ্যাকুয়াম ক্লিনার।

২। কার্পেট পরিষ্কারের জন্য ব্রাশযুক্ত ক্লিনার ভালো।

৩। ব্যবহারের পর ভ্যাকুয়াম ক্লিনার ভালো করে পরিষ্কার করুন।

৪। কিছু জিনিস ব্রাশ দিয়ে পরিষ্কার করতে হয়, কিছু আবার সাবান জলে ধুতে হয়।

৫। ভ্যাকুয়াম ক্লিনার ভালো রাখতে হলে ডাস্টব্যাগ ভর্তি হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে পরিষ্কার করুন।

৬। টেবিল-চেয়ারের মতো ছোটো আসবাব সরিয়ে ভ্যাকুয়াম ক্লিনার ব্যবহার করুন। এতে ভালো ভাবে পরিষ্কার হবে।

৭। ভ্যাকুয়াম ক্লিনার রাখার জন্য ঘরের সঠিক জায়গা বাছুন। অবশ্যই শিশুদের নাগালের বাইরে রাখুন।

কত দাম হতে পারে?

বাজারে এখন ভ্যাকুয়াম ক্লিনারের দাম নানা রকমের রয়েছে। ব্র্যান্ড ও কার্যকারিতার ওপর দাম নির্ভর করে। মোটামুটি ২ হাজার থেকে থেকে শুরু করে অনেক বেশি দামের ভ্যাকিউম ক্লিনার বাজারে আছে। তবে টেকসই জিনিস পেতে হলে একটু দাম বেশি দিয়ে ব্র্যান্ডেড কেনাই ভালো। তবে কম দাম হলেই যে জিনিস খারাপ তা কিন্তু কখনোই না।

আরও পড়ুন – ওয়াশিং মেশিন ব্যবহারের আগে ৫টি জরুরি তথ্য, যা আপনার অবশ্যই জানা উচিত

ঘরদোর

এই ৭টি মিথ্যে বাঁচিয়ে দিতে পারে আপনার সম্পর্কটি

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আমাদের চার পাশের প্রত্যেক মানুষই কোনো না কোনো সম্পর্কের ভিত্তিতেই আমাদের সঙ্গে জড়িয়ে আছে। এই সম্পর্ক টিকিয়ে রাখাটাই বড়ো কথা। তা যদি হয় স্বামী-স্ত্রী বা প্রেমিকপ্রেমিকার সম্পর্ক তা হলে তো আরও জটিল, আবার ভঙ্গুরও। তাই ভালোবাসার গভীরতা থাকা সত্ত্বেও সামান্য অভিমানের কারণে সম্পর্ক ভেঙে যায়।

তাই সম্পর্ক মজবুত করতে অনেক কিছুই করতে হয়, তেমনই একটি উপায় হল এক আধটা মিষ্টি মিথ্যে বলা। বিশেষ করে দাম্পত্য বা প্রেমের সম্পর্কে এই মিথ্যে বেশ উপকারী। তবে মনে রাখবেন মিথ্যে বলাটাও কিন্তু একটি আর্ট। মিথ্যে বলুন সত্যির মতো করেই –

১। প্রশংসা শুনতে সকলেই ভালোবাসে। তাই সঙ্গী বা সঙ্গিনীর চেহারা বা সাজগোজ হাসি ইত্যাদি নিয়ে বেশি বেশি প্রশংসা করুন, দারুণ লাগছে বলুন।

Loading videos...

২। রান্না খারাপ হলেও বলুন ভালো হয়েছে। সাধ করে রেঁধে খাওয়াচ্ছে যখন, মুখের ওপর খারাপ নাই বা বললেন। তাই প্রথম কয়েক বার মিথ্যে বলাই ভালো। তবে খারাপ রান্না সহ্যের বাইরে গেলে অন্য ভাবে বুঝিয়ে বলুন।

৩। অনেকেই উপহার দিতে এবং পেতে ভালোবাসেন। তেমন উপহার আপনি পেলে তা পছন্দ না হলেও বলুন সুন্দর হয়েছে, খুব পছন্দ হয়েছে। এতে তার মন খারাপ হবে না। ঝগড়াও এড়ানো যাবে। পারলে আপনিও মাঝে মধ্যে এক আধটা উপহার দিন।

৪। অনেকেই ঠিকমতো হাসাতে পারে না। আপনার সঙ্গের মানুষটি যদি রসিকতা করেন কিন্তু কারোর হাসি না পায় তা হলেও আপনি হাসুন। খুব মজা লেগেছে বলুন। তাতে তিনি খুশি হবেন। তাঁর বুদ্ধিমত্তাকেও আঘাত করা হবে না। তাই মিথ্যে মিথ্যে হলেও হাসুন।

৫। আপনার পছন্দের না হলেও সঙ্গী বা সঙ্গিনী কোনো ছবি এক সঙ্গে দেখার আবদার করলে দেখুন। বারণ করবেন না। বরং আগ্রহ দেখান।

৬। সকলের সব কথা সব সময় সঠিক হয় না। কিন্তু সেটি মুখের ওপর বলা সব সময় ঠিক হবে না। তাই কিছু ক্ষেত্রে বিষয়টি এড়িয়ে যান। কিছু ক্ষেত্রে হালকা ভাবে বুঝিয়ে মত পরিবর্তন করান। অথবা কিছু ক্ষেত্রে মনমতো না হলেও বিষয়ের গুরুত্ব বুঝে হ্যাঁয়ে হ্যাঁ মেলানোই ঠিক হবে।

৭। পরিবারের কাউকে পছন্দ না হলেও তাকে নিয়ে নিন্দে না করাই ভালো।  

আরও – সন্তানের সঙ্গে এই ৫টি ভুল কখনওই করবেন না

Continue Reading

ঘরদোর

ল্যাপটপ ব্যবহার করেন? তা হলে সাবধান হন

ল্যাপটপের পরিচর্যার ১০টি কৌশল, জেনে নিন এখানে…

Published

on

খবর অনলাইন ডেস্ক : কমবেশি অনেক বাড়িতেই ল্যাপটপ, কম্পিউটারের জনপ্রিয় তো ছিলই এখন ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’ ও অনলাইনে পড়াশোনা শুরু হওয়ার সুবাদে বাড়িতে এই সদস্যের জায়গাটা আরও পাকা হয়ে গিয়েছে। কেউ এগুলি বহুদিন ব্যবহার করতে করতে পক্ত হয়ে গিয়েছেন। কারোর বা হাতেখড়ি হয়েছে।

যাই হোক না কেন এর বাড়তি কিছু যত্নও পাওনা। কারণ কম্পিউটার ল্যাপটপের আয়ু বাড়াতে দরকার সঠিক পরিচর্যা। যা হোক তা হোক করে ব্যবহার করলে এগুলির ক্ষতি হয়।

ল্যাপটপের পরিচর্যার ১০টি কৌশল

১। প্রথম কথাই হল ল্যাপটপ ব্যবহার করতে হবে খুব সাবধানে ধৈর্য্য ধরে। কারণ জিনিসটি খুবই পলকা ও সূক্ষ্ম যন্ত্রাংশ দিয়ে তৈরি।

Loading videos...

২। জল হাতে ল্যাপটপ ব্যবহার করা চলবে না। তাতে ডিভাইসটি নষ্ট হয়ে যাবে।

৩। খেতে খেতে বা নোংরা হাতে ল্যাপটপ ব্যবহার করবেন না। ল্যাপটপের কি-প্যাড ও টাচ প্যাডে সেই নোংরা জমা হবে। তাই হাত পরিষ্কার করে এটি ব্যবহার করুন।

৪। বন্ধ ল্যাপটপের ওপর ভারি বস্তু রাখবেন না। তাতে মনিটরের পর্দার  ওপর কি প্যাডের চাপ পড়ে ক্ষতি হয়। সঙ্গে সিডির জায়গাটাও বেঁকে যেতে পারে।

৫। ল্যাপটপটি বন্ধ করার সময় একবার পরিষ্কার করে নিন। কারণ কোনো ছোটো কণা থেকে গেলেও তা এলসিডি স্ক্রিনের ক্ষতি করবে, দাগ সৃষ্টি করবে।

৬। অনেকেই খেতে খেতে ল্যাপটপ নিয়ে কাজ করেন। এতে অনেক সময়ই কি প্যাডের মধ্যে খাবারের ছোট্টো কণা ঢুকে যায়। তাতে জিনিসটি নোংরা যেমন হয়, নষ্টও হতে পারে।

৬। তরল পদার্থ চা, কফি, সফট ড্রিংস, জল, দুধ ইত্যাদি ল্যাপটপ থেকে দূরে রাখুন। ভুল বশত উলটে গেলে তা ডিভাইসটি নষ্ট করে দিতে পারে।

৭। নরম কাপড় দিয়ে পরিষ্কার করুন। কি প্যাডের জন্য নরম ব্রাশ ব্যবহার করুন।

৮। বন্ধ করার ও খোলার সময় মাথার মাঝখান ধরে বন্ধ করুন। শুধু দু’ পাশ ধরে বন্ধ করবেন না। বেঁকে যেতে পারে।

৯। আরাম করে  বিছানায় বসে বা শুয়ে ল্যাপটপ ব্যবহার করে থাকেন অনেকে। এই পদ্ধতিটি ঠিক নয়। এতে শরীর ও ল্যাপটপ দু’য়েরই ক্ষতি হয়।

১০। নজর রাখুন চার্জ আছে কি না। উপযুক্ত সময়ে চার্জ দিন না হলে অল্প দিনের মধ্যেই এর ক্ষতি অবশ্যম্ভাবী।

আরও – হেয়ার ড্রায়ার কেনার আগে দেখে নিন এই বিষয়গুলি

Continue Reading

ঘরদোর

শীতের পোশাকের যত্ন নেওয়ার ৬টি উপায়

Published

on

খবর অনলাইন ডেস্ক : সোয়েটার, জ্যাকেট, টুপি, মোজা, লেপ, কম্বল, কাঁথা- শীতের এ সব জিনিসপত্র যত্ন নিতে হয় বিশেষ ভাবে। না হলেই নষ্ট হয়ে যাওয়ার ভয় থাকে। কারণ সাধারণ কাপড়ের থেকে এদের ফেব্রিক বা কাপড়ের উপাদান আলাদা হয়। ফলে বেশি ঘষাঘষি চাপাচাপি বা কড়া ডিটারজেন্ট চলে না। রইল এগুলির দেখভাল করার উপায়

১। সোয়েটার

উলের বা পশমের সোয়েটার সাবান বা ডিটারজেন্টে নয়, ঠান্ডা জলে শ্যাম্পু বা হালকা ধরনের বিশেষ তরল সাবান দিয়েই ধুতে হবে। সঙ্গে অল্প ভিনিগার মিশিয়ে নিন কাপড়ের উজ্জ্বলতা বাড়ে। সাদা পোশাক হলে লেবুর রস মিশিয়ে নিন উপকার পাবেন। সোয়েটার যতই ময়লা হোক বা দাগ লাগুক কখনই ব্রাশ দিয়ে ঘষা বা হাত দিয়ে জোরে ঘষবেন না। নরম কাপড় দিয়ে হালকা হাতে পরিষ্কার করুন। ওয়াশিং মেশিনেও না কাচাই ভালো। জল ঝরানোর জন্য চেপে নিংড়ে হালকা ভাবে জল ঝরিয়ে দুই দিকে সমান ভাবে রোদে ঝুলিয়ে দিন।

২। ফ্লানেলের পোশাক চাদর

এ সব কাপড়ের ক্ষেত্রেও সাবান, ডিটারজেন্ট নয় শ্যাম্পু দিয়ে ধোওয়াই উচিত। উজ্জ্বলতা ঠিক থাকে। এক ঘন্টা ভিজিয়ে হালকা কাচুন, ময়লা চলে যাবে। বেশি ময়লার ক্ষেত্রে হালকা গরম জলে ভেজান।

Loading videos...

৩। লেদারের পোশাক, কোট

লেদারের পোশাক ও কোট লন্ড্রি থেকে ড্রাই ক্লিন করান। তবে এ সব ব্যবহারও করতে হয় খুব যত্নে। এক বার ব্যবহারের পর নরম ব্রাশ বা নরম তোয়ালে দিয়ে হালকা ভাবে ধুলো ঝেড়ে রাখুন, ময়লা কম হবে।

৪। মোজা, মাফলার, টুপি

সব থেকে বেশি ময়লা হয় মোজা। তার পরই টুপি ও মাফলার। কাজেই দু’-তিন দিন ছাড়া ছাড়াই টুপি, মাফলার তরল সাবানে ও মোজা ডিটারজেন্ট দিয়ে ঘষে কাচুন।

৫। কাঁথা

কাঁথা অনেকেই সাবানে ধুয়ে নেন। আবার অনেকেই রোদে দিয়ে তুলে দেন। সে ক্ষেত্রে পরামর্শ হল কাঁথার যদি সুতির ওয়ার বানানো যায় তা হলে কাঁথা সাবানে না কেচে ওয়াড়টি খালি কাচলেই হয়। তাতে ময়লা ও পরিশ্রম দুই-ই কম হয় এবং পরিষ্কারও থাকে।

৬। লেপ, কম্বল

কম্বল ধোওয়া গেলেও লেপ, সম্ভব নয়। তাই এ সবে সুতির ওয়াড় লাগিয়ে ব্যবহার করুন, ময়লা হয় না। তবে খুব দরকার হলে কম্বল ড্রাই ক্লিন করান।

*সমস্ত ছবি গুগল থেকে নেওয়া।

আরও – ঘরের বায়ুদূষণ আটকাতে লাগান এই গাছগুলি

Continue Reading
Advertisement
Advertisement
রাজ্য2 days ago

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিশানা করতে সিপিএমের লাইনেই খেলছেন শুভেন্দু অধিকারী

দেশ3 days ago

নবম দফার বৈঠকেও কাটল না জট, ফের কৃষকদের সঙ্গে আলোচনায় বসবে কেন্দ্র

প্রযুক্তি3 days ago

হোয়াটসঅ্যাপে এ ভাবে সেটিং করলে আপনার আলাপচারিতা কেউ দেখতে পাবে না এবং তথ্যও থাকবে নিরাপদে

শরীরস্বাস্থ্য3 days ago

কেন খাবেন মেথি?

election commission of india
রাজ্য3 days ago

ভোট প্রস্তুতি তুঙ্গে! রাজ্যে আসছে নির্বাচন কমিশনের ফুল বেঞ্চ

বিদেশ2 days ago

ফাইজারের করোনা ভ্যাকসিন নেওয়ার পরে নরওয়েতে মৃত ২৩, শুরু তদন্ত

রাজ্য3 days ago

রাজ্যে আরও কমল দৈনিক সংক্রমণের হার, ১৩ জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা এক অঙ্কে

রাজ্য3 days ago

শতাব্দী রায়ের ‘মানভঞ্জনে’ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়

কেনাকাটা

কেনাকাটা7 hours ago

ঘরের জন্য কয়েকটি খুবই প্রয়োজনীয় সামগ্রী

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় ও সুবিধাজনক বেশ কয়েকটি সামগ্রীর খোঁজ রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদনটি লেখার সময় যে দাম ছিল তা-ই...

কেনাকাটা6 days ago

৯৯ টাকার মধ্যে ব্র্যান্ডেড মেকআপের সামগ্রী

খবর অনলাইন ডেস্ক : ব্র্যান্ডেড সামগ্রী যদি নাগালের মধ্যে এসে যায় তা হলে তো কোনো কথাই নেই। তেমনই বেশ কিছু...

কেনাকাটা1 week ago

কয়েকটি ফোল্ডিং আইটেম খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক: এমন অনেক কিছুই থাকে যেগুলি সঙ্গে থাকলে অনেক সুবিধে হত বলে মনে হয়, কিন্তু সব সময় তা পাওয়া...

কেনাকাটা2 weeks ago

রান্নাঘরের কাজ এগুলি সহজ করে দেবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরের কাজ অনেক বেশি সহজ করে দিতে পারে যে সমস্ত জিনিস, তারই কয়েকটির খোঁজ রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন...

কেনাকাটা2 weeks ago

ম্যাক্সিড্রেসের নতুন কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সুন্দর ম্যাক্সিড্রেসের চাহিদা এখন তুঙ্গে। সামনেই কোনো আনন্দ অনুষ্ঠানের নিমন্ত্রণ থাকলে ম্যাক্সি পরতে পারেন। বাছাই করা কয়েকটি ড্রেসের...

কেনাকাটা2 weeks ago

রকমারি ডিজাইনের ৯টি পুঁটলি ব্যাগের কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: বিয়ের মরশুমে নিমন্ত্রণে যেতে সাজের সঙ্গে মিলিয়ে ব্যাগ নেওয়ার চল রয়েছে। অনেকেই ডিজাইনার ব্যাগ পছন্দ করেন। তেমনই কয়েকটি...

কেনাকাটা2 weeks ago

কস্টিউম জুয়েলারির দারুণ কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: বিয়ের মরশুম আসছে। নিমন্ত্রণবাড়ি তো লেগেই থাকে। সেখানে আজকাল সোনার গয়নার থেকে কস্টিউম বা জাঙ্ক জুয়েলারি পরে যাওয়ার...

কেনাকাটা3 weeks ago

রুম হিটারের কালেকশন, ৬৫০ থেকে শুরু

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ভালোই শীত চলছে। এই সময় রুম হিটারের প্রয়োজনীয়তা খুবই। তা সে ঘরের জন্যই হোক বা অফিস, বা কোথাও...

কেনাকাটা3 weeks ago

চোখের যত্ন নিতে কিনুন এগুলি, খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক: অনেকেই আছেন সারা দিনের ব্যস্ততার মাঝে যদিও বা পা, হাত বা মুখের টুকটাক যত্ন নেন, কিন্তু চোখের বিশেষ...

কেনাকাটা4 weeks ago

ফিলগুড প্রোডাক্ট! পছন্দ হবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দিনের মধ্যে কিছু সময় যদি নিজের মতো করে নিজের জন্য দেওয়া যায় তা হলে মন যেমন ভালো থাকে...

নজরে