রূপচর্চায় কমলালেবুর খোসা, পর্ব ১

0

খবরঅনলাইন ডেস্ক : কমলালেবুর উপকারিতা কী কী তা আমরা জেনেছি। কিন্তু কমলালেবু খেতে গেলে প্রথমেই যে কাজটি করি তা হল এর খোসাটি ছাড়িয়ে ফেলে দিই। কিন্তু জানেন কি, এই খোলা হল ত্বক ও চুলের জন্য মহৌষধি। ত্বক ও চুলের উজ্জ্বলতা বাড়াতে এটি একটি অত্যাশ্চর্য উপকরণ।

জানব কী ভাবে ব্যবহার করা যায় এই খোসা।

১। খোসা ভালো করে ফুটিয়ে রস বের করে নিন। এই রস তেলের সঙ্গে মিশিয়ে স্নানের আগে ভালো করে গায়ে হাতে পায়ে মালিশ করুন। তার পর স্নান করে নিন। ত্বক মসৃণ হবে।  

Loading videos...

২। কমলালেবুর খোসা রোদে শুকিয়ে গুঁড়িয়ে পাউডার করে নিন। এই পাউডার বিভিন্ন ভাবে ব্যবহার করতে পারেন, প্যাকের সঙ্গে বা তেলের সঙ্গে বা গোলাপ জলের সঙ্গে। এটি খুব ভালো স্ক্রাবার।

৩। টকদইয়ের সঙ্গে খোসাগুঁড়ো মিশিয়ে ত্বকে লাগিয়ে রাখুন। ১৫ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। নিয়মিত করুন উজ্জ্বলতা বাড়বে।

৪। কমলালেবুর খোসা বেটে পেস্ট বানিয়ে ব্রণের ওপর দিলে কমে যায়।

৫। স্ক্রাবার হিসেবে কমলার খোসা ব্যবহার করুন, মরা চামড়া দূর হবে, ত্বক নরম হবে।

৬। স্ক্রাবার তৈরির জন্য চালের গুঁড়ো, টক দই ও কমলালেবুর খোসা মিশিয়ে নিন। এই মিশ্রণ দিয়ে মালিশ করলে ব্ল্যাকহেডস চলে যাবে।

এই খোসা ব্যবহারের আগে কয়েকটি বিষয় অবশ্যই মনে রাখতে হবে।

১। ফ্রিজে রেখে কমলালেবুর খোসা ব্যবহার করা যাবে না। এতে কোনো ফল হবে না।

২। কমলার খোসা শুকিয়ে বেশি দিন রেখে দেবেন না। শুকোনোর পরই গুঁড়িয়ে নেবেন। তা না হলে ছত্রাক জন্মে যাবে। ব্যবহার করা যাবে না।

৩। গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল, সংবেদনশীল ত্বক হলে কমলালেবুর খোসা ব্যবহার না করা বা খুবই সামান্য ব্যবহার করা উচিত।

পরের পর্বে কমলালেবুর খোসার আরও বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ অথচ সহজ ব্যবহার নিয়ে আলোচনা করব।

আরও – বাড়ির যত্নে মখমলি চুল পান এই পদ্ধতিতে

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন