Connect with us

সম্পর্ক

দাম্পত্য জীবনের আলগা বাঁধনকে মজবুত করতে সেক্সের বদলে মেনে চলুন এই ৫টি টিপস

Published

on

relationship

ওয়েবডেস্ক: বিয়ে মানেই দাম্পত্য জীবন সুখের হয়ে উঠবে, তেমনটা নয়। প্রকৃত একটি দাম্পত্য জীবন সুখের করতে হলে দু’জনের সহযোগিতা একান্ত ভাবে প্রয়োজন। শুধু ভালোবাসা ও সেক্স করে একটি সম্পর্ককে সুখী ও সুন্দর করা যায় না। তখন জীবন আরও জটিল হয়ে পড়ে। দাম্পত্য জীবনে কী ভাবে সুখী থাকা যায় তেমনই কিছু টিপস জেনে নেওয়া যাক।

১। বিশ্বাস ও স্বচ্ছতা-

যে কোনো সম্পর্কে বিশ্বাসই হল মূল ভিত্তি। এর মাধ্যমেই সম্পর্ক আরো মজবুত হয়। বিশ্বাস তখনই আসে যখন সম্পর্কে একে অপরের প্রতি স্বচ্ছতার সৃষ্টি হয়। যেখানে বিশ্বাস ও স্বচ্ছতা দু’টোই থাকবে সেখানে সম্পর্ক সফল ও দীর্ঘস্থায়ী হতে বাধ্য।

২। পরস্পরকে সম্মান ও শ্রদ্ধা করা-

দাম্পত্য জীবনের সুখি হওয়ার জন্য একে অপরকে সম্মান ও শ্রদ্ধা করা খুবই জরুরি। একে অপরের মতামত ও ইচ্ছা অনিচ্ছার বিষয়গুলোকে গুরুত্ব দিতে হবে। এতে সম্পর্কে গভীরতা আসে এবং দীর্ঘস্থায়ী হয়।

৩। ভুল বোঝাবুঝির অবসান-  

দাম্পত্য জীবনে এক সঙ্গে থাকতে গেলে সামান্য কারণে ভুল বোঝাবুঝি হতেই পারে। অনেক সময় তা সম্পর্ক ভাঙা পর্যন্তও গড়ায়। তাই সম্পর্ক টিকিয়ে রাখতে চাইলে সঙ্গীর সঙ্গে কথা বলে ভুল বোঝাবুঝি দূর করুন। এতে একে অপরের সম্পর্কে শুধু ভালো ধারণাই তৈরি হবে না, বরং সম্পর্কেও মধুরতা আসবে।

৪। সহনশীলতা ও সহানুভূতির মনোভাব-

সম্পর্ককে দীর্ঘস্থায়ী করতে দু’পক্ষেরই সহনশীলতা ও সহানুভূতির মনোভাবের প্রয়োজন রয়েছে। কারণ এই মনোভাবের কারণেই দু’জনের মধ্যে যে পারস্পরিক সমঝোতার সৃষ্টি হয়, সেটিই দীর্ঘস্থায়ী সফল বৈবাহিক সম্পর্কের মূলমন্ত্র।

৫। সম্পর্কে মধুরতা ধরে রাখা-

দাম্পত্য জীবনে পরিবারের প্রতি দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে অনেক সময় সম্পর্কের মধুরতা হারিয়ে যায়। এতে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে দূরত্বের সৃষ্টি হয়। সম্পর্ক সফল ও দীর্ঘস্থায়ী করতে সম্পর্কে যে কোনো মূল্যে মধুরতা ধরে রাখা জরুরি। এ ক্ষেত্রে মাঝেমাঝে কোথাও বেড়াতে যেতে পারেন, ডিনারে নিয়ে গেলেন কিংবা তাকে আগের মতোই ভালোবাসার কথা বলতে পারেন, ছোটখাটো বিষয়ে তার প্রশংসা করেও সম্পর্কে মধুরতা ফিরিয়ে আনতে পারেন। তবেই সম্পর্ক সফল ও দীর্ঘস্থায়ী হবে।

সম্পর্ক

নিউ নর্মালে প্রেম? কী করছেন যুগলরা?

Published

on

নিউ নর্মালে প্রেম

খবরঅনলাইন ডেস্ক: করোনার ত্রাসে গোটা দেশ। দীর্ঘ সাড়ে পাঁচ মাস ধরে গৃহবন্দি মানুষ। এর মধ্যে অনেককেই অবশ্য পেটের দায়ে বেরোতে হচ্ছে কাজে।

বন্ধ স্কুল-কলেজ। খুলছে না পার্ক, হচ্ছে না কোনো জমায়েত বা সমাবেশ। প্রতিটি বড়ো বড়ো নামজাদা মলে ফুডকোর্টগুলিও বন্ধ।

শপিং মল খুললেও মানতে হচ্ছে শারীরিক দূরত্ববিধি, পরতে হচ্ছে মাস্ক। ভিড় এড়াতে মল কর্তৃপক্ষ অবাধ প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। সিনেমা হল খোলার কথাবার্তা চললেও, সেখানেও জারি করা হবে কঠোর স্বাস্থ্যবিধি।

এত সব কিছুর মধ্যে সমস্ত নির্দেশিকা মেনে অনলাইনে খাবার অর্ডার করছে একাধিক মানুষ। নানান অ্যাপের মাধ্যমে কেনাকাটা করতেও অসুবিধা নেই। খাবারের প্যাকেট হোক বা মদের বোতল সব কিছুই বাড়িতে পাঠিয়ে দিচ্ছে বিভিন্ন সংস্থা। অর্থাৎ করোনা আবহে বন্ধ নেই অনলাইনে কেনাকাটা।

সব তো হল। কিন্তু দীর্ঘ পাঁচ মাস জুড়ে এই অদর্শনে কী ভাবে কাটাচ্ছেন প্রেমিক-প্রেমিকারা?

মার্চ মাস থেকে বন্ধ সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, প্রাইভেট কোচিং। পার্কে বা দু’ দণ্ড লেকের ধারে বসা – সবই তো বন্ধ। কেমন ভাবে কাটছে তাঁদের জীবন?

বর্তমানে রাজ্য আনলক প্রক্রিয়ায় থাকলেও, স্কুল-কলেজের পড়ুয়াদের বাড়ি থেকে বেরোনোর কোনো বিশেষ কারণ নেই। ফলত মা-বাবা তাঁদের বাইরে বেরোতে দিতে নারাজ।

জুলাই মাসের এক সমীক্ষায় উঠে এসেছিল, লকডাউনের মধ্যে সার্চ ইঞ্জিনে তিন বার ট্রেন্ডিং ছিল ‘Breakup Quotes’।

এক মজার ভিডিও ভাইরাল হয় লকডাউনের মাঝামাঝি সময়ে। সেই ভিডিওতে দেখা গিয়েছিল একটি মেয়েকে, সে বলছে – “মোদীজি লকডাউন তুলে নিন, আমাদের তো একটাই বয়ফ্রেন্ড”।

বোঝাই যাচ্ছে দেশ জুড়ে প্রেমিক-প্রেমিকারা ভীষণ চড়াই-উতরাইয়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছেন।

কথা হচ্ছিল দমদম লেকটাউনের বাসিন্দা পল্লবীর সঙ্গে। তাঁর কথায়, “আমার তো লকডাউনেই প্রেম শুরু হয়েছে। আগে তো সময় পেতাম না ফেসবুক করার। এখন লকডাউনে বাড়িতেই রয়েছি, আর ফেসবুক করছি। ফেসবুকে প্রেম শুরু হয়েছিল, এখন তাতেই চুটিয়ে প্রেম করছি।”

love in the time of corona
অনলাইনেই চলছে প্রেম। ছবি টাইমস অফ ইন্ডিয়ার থেকে নেওয়া

পল্লবী নিশ্চিন্ত থাকলেও, সুস্মিতা কিন্তু হতাশ। কলকাতার বাসিন্দা সুস্মিতা সেনগুপ্ত খবরঅনলাইনকে এ বিষয়ে বলেন, “প্রেমের তো বারোটা বেজেছে। এখন তো সংক্রমণের ভয়ে বেরোতেই পাচ্ছি না। আর বেরিয়ে যাব কোথায়? রাস্তায় রাস্তায় পুলিশ টহল দেয়, আর জিজ্ঞেস করে কী কারণে বেরিয়েছি।”

২৮ বছরের শান্তনু অবশ্য ফোনেই প্রেম করেন। এ ব্যাপারে তিনি অবশ্য বেশ কনফিডেন্ট। বললেন, “আনলক হতেই তো ভিড় শুরু হয়েছে। কিন্তু এখন এ ভাবে বিপদ মাথায় নিয়ে দেখা করা উচিত নয়। তাই ফোন করেই কথা বলি। পাঁচ বছরের সম্পর্ক আমাদের। পাঁচ মাসে কি কেটে যাবে নাকি?”

নভেম্বর বিয়ে হওয়ার কথা বেহালার কৃশানু বোসের। কিছুটা ভেঙে পড়েছেন কৃশানু। বললেন, বহু ঝামেলার পর বাড়িতে রাজি করিয়েছেন। আর এখন করোনা তাঁদের দু’ জনের পথে কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছে।

লকডাউনে অনলাইনে পড়াশোনা চলতে পারে, খাবার বরাত দেওয়া যেতে পারে, কেনাকাটা করাও যেতে পারে। কিন্তু প্রেম? সেটা যে একটু কষ্টকর তা বোঝাই যাচ্ছে। তার ওপর শারীরিক বিধির নিয়ম তো আছেই। দূরত্ব মেনে কি প্রেম হয়? বলছেন অনেকেই।

আরও পড়তে পারেন

সুখী সম্পর্কের চাবিকাঠি হল এই ১০টি বিষয়

Continue Reading

জীবন যেমন

শিশুসন্তানের সঙ্গে বাবা-মায়েরা কী রকম আচরণ করবেন

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: শৈশব কথাটি বেশ মধুর। কোনো কিছুর সঙ্গেই এই শৈশবের আনন্দের দিনগুলির তুলনা বোধহয় চলে না। একটা সময় ছিল যখন ‘শৈশব ভেসে বেড়াত রূপকথার পক্ষীরাজে চড়ে মাঠঘাট বন প্রান্তর একাকার করে। শৈশবের গায়ে মাখা থাকত ঘাসফুল আর বৃষ্টি কাদার গন্ধ, শৈশবের হাতে থাকত ড্যাঙ্গুলি আর কাঁচের গুলির রঙের খেলা। কিন্তু এখনকার শৈশবের কাছে সে সব দিন কল্পনাতীত। কেবল মুঠো ফোন আর বৈদ্যুতিক স্বয়ংক্রিয় যন্ত্রই সঙ্গী’।

এমন দিন যা ফল বয়ে আনছে তা সব ক্ষেত্রেই যে আশাব্যঞ্জক তা কিন্তু নয়। পরিবারের থেকে সময় না পাওয়া তাদের মধ্যে অনেক সময়ই মানসিক সমস্যা ডেকে আনে। তাই শিশুর শৈশবকালীন বিকাশ যেন সঠিক ভাবে হয় তার দায়িত্ব পরিবারকেই নিতে হবে। সে ক্ষেত্রে খেয়াল রাখতে হবে বেশ কয়েকটি বিষয়ে –

১। ইচ্ছেপূরণ

শিশুদের মনে অনেক ইচ্ছাই চাপা থাকে। তাদের ইচ্ছেগুলো মনোযোগ দিয়ে শুনুন। সব না হলেও বিশেষ কিছু ইচ্ছে পূরণ করুন।

২। পছন্দের কাজ

কোনো কিছুতে বাধ্য না করে তাদের পছন্দের কাজগুলি করতে উৎসাহিত করুন। কাজগুলি করতে দিন।

৩। ছুটির দিন

ছুটির দিনগুলোতে শিশুকে নিয়ে চিড়িয়াখানা, শিশু পার্ক, জাদুঘর ইত্যাদি এমন মজার জায়গায় বেড়াতে যেতে পারেন, এখানে সে আনন্দ পাবে।

৪। অবসর সময়ে

ব্যস্ততার মাঝেও অবসর খুঁজে নিন। সেই সময়টা শিশুর সঙ্গে গল্প, খেলা করে কাটান।

৫। জোর করা

সব সময় পড়াশোনার বিষয়ে জোর করবেন না। বরং পড়াশোনা করার সুফলটি তাকে বোঝান। সে যাতে নিজে থেকে আগ্রহী হয় সে বিষয়ে খেয়াল রাখুন।

৬। ভিডিও গেমস

অতিরিক্ত কোনো কিছুই ভালো না। তাই দীর্ঘ সময় ধরে ভিডিও গেমস খেলার অভ্যাস বন্ধ করতে হবে। তা-ও অন্য ভালো অভ্যাসের পরিবর্তে।

৭। কার্টুন দেখা

দীর্ঘ সময় কার্টুন দেখাও শিশুর মানসিক ও শারীরিক স্বাস্থ্যের বিকাশের পথে বাধা হয়ে ওঠে। তাদের কল্পনার জগৎটা বড়ো হয়ে ওঠে। তাতে বাস্তবের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিতে সমস্যা হয়। তাই নিজেদের কাজের সুবিধের স্বার্থে সেই অভ্যাসও করতে দেওয়া যাবে না। ঘণ্টার পর ঘণ্টা ভিডিও গেম ও কার্টুনের অভ্যাস তাদের দৃষ্টিশক্তি ক্ষতিগ্রস্ত করে। শুধু তা-ই ,নয় তাদের শারীরিক স্থূলতা বাড়ায়, মাথা ব্যথা, অকারণ অস্থিরতা ইত্যাদি নানান জটিলতা সৃষ্টি করে।

৮। শুধু পড়ার বই নয়

শুধু পড়ার বই নয়, বিভিন্ন নীতি কথার বই, শিক্ষামুলক গল্পের বই পড়ার অভ্যাস তৈরি করান। সামাজিক মূল্যবোধ গড়ে উঠবে।

৯। সমাজ ও মানবসেবা

বিভিন্ন ভাবে সমাজ ও মানবসেবামূলক কাজে ছোটো থেকেই শিশুকে অভ্যস্ত করুন। আপনিও তেমন কিছু কাজ ওকে সঙ্গে নিয়ে করুন। তাতে সামাজিক দায়িত্ববোধ গড়ে উঠবে।

১০। সুঅভ্যাস

বিভিন্ন সুঅভ্যাস যেমন, গুরুজনদের সম্মান, ছোটোদের প্রতি স্নেহ, সব মানুষ ও প্রাণীর প্রতি ভালোবাসা, সময় ও নিয়মানুবর্তিতা,অধ্যবসায় ইত্যাদিতে শিশুকে ছোটো থেকেই শিক্ষা দিন।

১১। নেতিবাচক বিষয়

শিশুর মধ্যে যদি কোনো রকম নেতিবাচক বিষয় বা হিংসা ভাব গড়ে ওঠে তা হলে তাকে বোঝাতে হবে। বকাবকি নয়।

১২। শারীরিক অনুশীলন

শারীরিক অনুশীলনে খেলাধুলোয় আগ্রহী করে তুলুন। প্রতি দিন ৩০ মিনিট পার্কে, মাঠে বা বাড়ির ছাদে তাকে খেলাধূলা ও দৌড়াদৌড়ি করতে দিন। শরীর ও মন সুস্থ থাকবে।

১৩। বন্ধুত্বপূর্ণ আচরণ

তার সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ আচরণ শুরু থেকেই করুন, যাতে বাবা-মায়ের সঙ্গে তার একটা সহজ সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এতে জীবনের পরবর্তী ধাপে সে নির্দ্বিধায় মনের কথা খুলে বলতে পারবে।

১৪। বকাবকি নয়

কথায় কথায় তাকে বকাবকি না করাই শ্রেয়। তাতে মনের ওপর বিপরীত প্রভাব পড়ে। তারা জেদি ও একরোখা হয়ে যায়।

১৫। ঝগড়া করবেন না

অবশ্যই তার সামনে ঝগড়া করবেন না। তাতে তারা বিষণ্ণতায় ভোগে। এর কুফল সুদূরপ্রসারী।

১৬। সুন্দর আচরণ করুন

পরিবারকে বলা হয়ে থাকে প্রাথমিক পাঠশালা। অভিভাবককে দেখে তারা শেখে। তাই তাদের মধ্যে সুঅভ্যাস গড়ে তুলতে তাদের সামনে সুন্দর আচরণ করুন।

আরও দেখুন – বাবা হিসাবে আপনিও এই কাজগুলি করছেন তো?

Continue Reading

জীবন যেমন

বাচ্চাদের ত্বকের যত্নে এই ৬টি ভুল একদম করবেন না

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক : শিশুদের ত্বক খুব বেশি নরম এবং কোমল হয়। তাদের ত্বকের বিশেষ যত্নের প্রয়োজন। ঠিক ভাবে যত্ন নিতে না পারলে শিশুর ত্বক ও স্বাস্থ্য দুই খারাপ হয়। শিশুদের ত্বকের যত্ন নিতে গেলে অনেকেই সাধারণ কিছু ভুল করে থাকেন। সেগুলি শুধরে নেওয়া জরুরি। যেমন –

নিয়মিত স্নান করানো

রোজ সাবান দিয়েও স্নান। কিন্তু এতে শিশুর উপকারের বদলে ক্ষতি বেশি হয়। অতিরিক্ত সাবান জল শিশুর ত্বকের পাতলা তেলের স্তরকে নষ্ট করে দেয়। তাই তারা হামাগুড়ি দিয়ে খেলতে শেখার আগে পর্যন্ত তাদের সপ্তাহে মাত্র দুই অথবা তিন দিন স্নান করানো উচিত বলে অনেকেই মনে করেন। বাকি দিনগুলোতে উষ্ণ গরম জলে নরম কাপড় ভিজিয়ে গা স্পঞ্জ করান।

২। নিয়মিত রোদ লাগানো

খুব কমন ভুল হল সরষের তেল মাখিয়ে রোদে শুইয়ে রাখা। এতে তাদের ত্বক পুড়ে যায় খুব তাড়াতাড়ি। কারণ তাদের ত্বক খুবই নরম। তাই খুব দ্রুত পুড়ে কালো হয়ে যায়। তবে হ্যাঁ তাদের গায়ে রোদ লাগানোও খুবই জরুরি একটি বিষয়। অবশ্যই রোদ লাগাতে হবে। তার জন্য সঠিক সময় নির্বাচন এবং সঠিক পরিমাণ নির্ধারণ করা দরকার। সে ক্ষেত্রে বিশেষজ্ঞরা বলেন, সকালে সূর্য ওঠার পরেই যে নরম রোদ থাকে সেই সময়ই হল আদর্শ। এ সময় সূর্যের তেজ তেমন থাকে না। ফলে হালকা নরম রোদে তারা আরাম পায়। তাঁদের মতে, সপ্তাহে দুই তিন দিন সকালের নরম রোদে ১৫ থেকে ২০ মিনিট রাখলেই যথেষ্ট।

ডায়পার এরিয়ার যত্ন

প্রথম কথা হল বাচ্চাদের অতিরিক্ত সময়ে ডায়পার না পরানোই শ্রেয়। অনেকই একটা ডায়পার খুলে সঙ্গে সঙ্গেই আর একটা ডায়পার পরিয়ে দেন। এটা মস্ত ভুল। এর ফলে ডায়পার ঢাকা জায়গাটা শুকোনোর সময় পায় না এবং সেখানে র‍্যাশ বেরোতে থেকে। ডায়পার খোলার পর ত্বক পরিষ্কার করে শুকনো টিস্যু বা নরম কাপড় দিয়ে শুকনো করে মুছে কিছুক্ষণ হাওয়া খাওয়ান। আরও একটি বিষয় হল অবশ্যই সময় মতো ডায়পার বদলান।

গুঁড়ো সাবানে ব্যবহার

যে সব গুঁড়ো সাবানে সুগন্ধ ও রঙ থাকে সেগুলো শিশুর ত্বকের জন্য ক্ষতিকর। তাই তাদের যে কোনো কিছু ধুতে হলে হালকা ধরনের গুঁড়ো সাবান ব্যবহার করুন।

৫। জীবাণু নাশকের ব্যবহার

শিশুদের কাপড় পরিষ্কার করার সময় অবশ্যই সামান্য স্যাভলন বা ডেটল ব্যাবহার করুন। তাতে যে কোনো রকমের জীবাণু নষ্ট হয়ে যায়।

৬। অবশ্যই বেবি প্রোডাক্ট

শিশুদের ত্বক, চুল, মুখ, ঠোঁট ইত্যাদি সব কিছুই বড়োদের থেকে আলাদ। তাই তাদের জন্য অবশ্যই বেবি প্রোডাক্ট ব্যবহার করুন। বড়োদের কোনো প্রোডাক্টই তাদের জন্য উপযুক্ত নয়।

আরও পড়ুন – বাবা হিসাবে আপনিও এই কাজগুলি করছেন তো?

Continue Reading
Advertisement
bangladesh foreign minister
বাংলাদেশ1 hour ago

সৌদিতে অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের পাসপোর্ট দিতে বাংলাদেশকে চাপ

ক্রিকেট1 hour ago

বুমরাহ-বোল্টের দাপটে বিধ্বস্ত কেকেআর, লজ্জার হার দিয়ে আইপিএল যাত্রা শুরু

দেশ3 hours ago

বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্ক মজবুত গাঁথুনির উপরে দাঁড়িয়ে, বললেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান

রাজ্য5 hours ago

দৈনিক সংক্রমণ, মৃতের সংখ্যা প্রায় অপরিবর্তিত, সার্বিক ভাবে আশাপ্রদ রাজ্যের করোনা-পরিস্থিতি

কলকাতা5 hours ago

কলকাতার সিংহভাগ অভিভাবক চাইছেন না এখনই স্কুল খুলুক: অনলাইন সমীক্ষা

Currency
রাজ্য6 hours ago

রাজ্য সরকারি কর্মীদের বকেয়া ডিএ মেটাতে ফের সময়সীমা বেঁধে দিল স্যাট

LPG
দেশ7 hours ago

বিনামূল্যে এলপিজি সিলিন্ডার খুঁজছেন? মাত্র এক সপ্তাহ বাকি! প্রধানমন্ত্রী উজ্জ্বলা যোজনার আওতায় কী ভাবে পাবেন, জেনে নিন

দঃ ২৪ পরগনা7 hours ago

সুন্দরবনে ম্যানগ্রোভ রোপণে এ বার পরিবেশ-বান্ধব ‘জিও-জুট’ পদ্ধতি

কেনাকাটা

কেনাকাটা1 day ago

মহিলাদের পোশাকের পুজোর ১০টি কালেকশন, দাম ৮০০ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পুজো তো এসে গেল। অন্যান্য বছরের মতো না হলেও পুজো তো পুজোই। তাই কিছু হলেও তো নতুন...

কেনাকাটা4 days ago

সংসারের খুঁটিনাটি সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে এই জিনিসগুলির তুলনা নেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিজের ও ঘরের প্রয়োজনে এমন অনেক কিছুই থাকে যেগুলি না থাকলে প্রতি দিনের জীবনে বেশ কিছু সমস্যার...

কেনাকাটা1 week ago

ঘরের জায়গা বাঁচাতে চান? এই জিনিসগুলি খুবই কাজে লাগবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ঘরের মধ্যে অল্প জায়গায় সব জিনিস অগোছালো হয়ে থাকে। এই নিয়ে বারে বারেই নিজেদের মধ্যে ঝগড়া লেগে...

কেনাকাটা2 weeks ago

রান্নাঘরের জনপ্রিয় কয়েকটি জরুরি সামগ্রী, আপনার কাছেও আছে তো?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরের এমন কিছু সামগ্রী আছে যেগুলি থাকলে কাজ করাও যেমন সহজ হয়ে যায়, তেমন সময়ও অনেক কম খরচ...

কেনাকাটা2 weeks ago

ওজন কমাতে ও রোগ প্রতিরোধশক্তি বাড়াতে গ্রিন টি

খবরঅনলাইন ডেস্ক : ওজন কমাতে, ত্বকের জেল্লা বাড়াতে ও করোনা আবহে যেটি সব থেকে বেশি দরকার সেই রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা...

কেনাকাটা2 weeks ago

ইউটিউব চ্যানেল করবেন? এই ৮টি সামগ্রী খুবই কাজের

বহু মানুষকে স্বাবলম্বী করতে ইউটিউব খুব বড়ো একটি প্ল্যাটফর্ম।

কেনাকাটা4 weeks ago

ঘর সাজানোর ও ব্যবহারের জন্য সেরামিকের ১৯টি দারুণ আইটেম, দাম সাধ্যের মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘর সাজাতে কার না ভালো লাগে। কিন্তু তার জন্য বাড়ির বাইরে বেরিয়ে এ দোকান সে দোকান ঘুরে উপযুক্ত...

কেনাকাটা1 month ago

শোওয়ার ঘরকে আরও আরামদায়ক করবে এই ৮টি সামগ্রী

খবর অনলাইন ডেস্ক : সারা দিনের কাজের পরে ঘুমের জায়গাটা পরিপাটি হলে সকল ক্লান্তি দূর হয়ে যায়। সুন্দর মনোরম পরিবেশে...

kitchen kitchen
কেনাকাটা1 month ago

রান্নাঘরের এই ৮টি জিনিস কাজ অনেক সহজ করে দেবে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আজকাল রান্নাঘরের প্রত্যেকটি কাজ সহজ করার জন্য অনেক উন্নত ব্যবস্থা এসে গিয়েছে। তা হলে ঘণ্টার পর ঘণ্টা কষ্ট...

care care
কেনাকাটা1 month ago

চুল ও ত্বকের বিশেষ যত্নের জন্য ১০০০ টাকার মধ্যে এই জিনিসগুলি ঘরে রাখা খুবই ভালো

খবরঅনলাইন ডেস্ক : পার্লার গিয়ে ত্বকের যত্ন নেওয়ার সময় অনেকেরই নেই। সেই ক্ষেত্রে বাড়িতে ঘরোয়া পদ্ধতি অনেকেই অবলম্বন করেন। বাড়িতে...

নজরে