ওয়েবডেস্ক: আজ যে ভ্যালেন্টাইন’স ডে! দীর্ঘ ১টা বছরের প্রতীক্ষার পর প্রায় প্রতিটি প্রেমিক-প্রেমিকাই এই দিনটির জন্য অপেক্ষা করে থাকেন। কিন্তু “ভালোবাসি”-চার অক্ষরের এই ছোটো শব্দটি বলতে কত না ভয়, কত না সংশয়। শব্দটি ছোটো হলেও এর ব্যাপ্তি, গভীরতা অনেক।

অনেক দিন ধরেই আপনাদের মধ্যে খুব ভালো বন্ধুত্ব রয়েছে। দু’জনেই দু’জনের মনের কথা মোটামুটি জানেন। কে কী পছন্দ করেন তাও অজানা নয়। কিন্তু  হঠাৎই ভালোলাগাটা এখন ভালোবাসায় এসে দাঁড়িয়েছে। উল্টো দিক থেকে আপনার মনে হয়, হয়তো আপনার প্রেমিকাও আপনাকে পছন্দ করেন।

তখন তাকে বলে দেবেন, না কি অপেক্ষা করবেন আপনার প্রিয় মানুষটির কাছ থেকে ভালোবাসার প্রস্তাব পাওয়ার। আর অপেক্ষা না করে মনের কথাটি জানিয়ে দিন এই ভ্যালেন্টাইন’স ডে-তে। কিন্তু মনের কথা জানানোর পরে, নতুন এই সম্পর্কের ভীতটাকে কী ভাবে আরও মজবুত করবেন আসুন জেনে নেওয়া যাক সেই সম্বন্ধে।

১। পছন্দের স্থান

আপনার মনের মানুষটির সঙ্গে যখন এতদিন মেলামেশা করেছেন তখন তাঁকে কোথায় নিয়ে গেলে সে আনন্দ পাবে তা নিশ্চই আপনার অজানা নয়। এ বার এত দিনের না বলা কথাটা বলে ফেলুন আপনার পছন্দের মানুষটিকে।

২। পছন্দ মতো সিনেমা

প্রেমিকা কি একটু বেশি রোম্যান্টিক মুভি দেখতে ভালোবাসে? একে তো ভ্যালেন্টাইন’স ডে আর এই দিনে যদি একটি রোম্যান্টিক মুভি দেখেন তাতে ক্ষতি কি? নতুন এই সম্পর্কের ভীতকে মজবুত করতে না হয় আপনার প্রেমিকার একটু আবদার মেনেই নিলেন।

৩। চিঠি লিখুন

হতে পারে এখন সোশাল মিডিয়ার যুগ। কিন্তু আপনার এতদিনের পরিচিত বন্ধুটিকে যদি করতে চান আপনার মনের মানুষ তা হলে নিশ্চই জানেন সে কি পছন্দ করে। যাকে আপনি ভালোবাসেন তার জন্য সুন্দর করে একটি চিঠি লিখুন। আপনার মনের কথা আরও স্পষ্ট করে জানাতে ভ্যালেন্টাইন’স ডে-তে  চিঠিটি দিন আপনার প্রিয় মানুষটির হাতে।

৪। গান

সম্পর্কের ভীতকে যদি মজবুত করতে চান, এই ভ্যালেন্টাইন’স ডে-তে তা হলে একটি সুন্দর গান গেয়েও আপনার মনের কথা জানাতে পারেন। ঠিক যেই গানটি গাইলে আপনার প্রেমিকা খুশি হবে।

৫। গিফট

যেই রকম গিফট আপনার মনের মানুষটি পছন্দ করে ঠিক সেই ধরনের গিফট কিনে ভ্যালেন্টাইন’স ডে-তে একেবারে তাঁকে চমকে দিন।

আরও পড়ুন: ভ্যালেন্টাইন’স ডে-তে গিফট কিনবেন? রইল গিফট কেনার ৬টি আইডিয়া

৬। পছন্দের ডিস

ভ্যালেন্টাইন’স ডে মানেই কি শুধু গিফট দেওয়া-নেওয়া? পেটের দিকেও তো খেয়াল রাখতে হবে। ভ্যালেন্টাইন’স ডে-তে খাওয়ার সময়ের একটু অদল-বদল হতে পারে। কিন্তু আবার বেশি দেরি না করে ঢুকে পড়ুন আপনার মনের মানুষটির পছন্দ মতো রেস্তোঁরায়। এ বার আপনার প্রেমিকা যে ডিস খেতে পছন্দ করে, সেই ভাবেই অর্ডার দিন।

সম্পর্কের গভীরতাকে আরও মজবুত করতে এই উপায়গুলি করেই দেখুন। এতে যেমন আপনার প্রেমিকা আপনার প্রতি আকর্ষিত হবে। ঠিক তেমনই আপনাদের ভালোবাসাও অটুট থাকবে।

একটি উত্তর ত্যাগ

Please enter your comment!
Please enter your name here