নিজেদের অবহেলিত মনে করলেই শিশুরা মিথ্যে বলে, বলছেন বিশেষজ্ঞরা

0
শিশুরা মিথ্যে বলে।

খবরঅনলাইন ডেস্ক: কথায় কথায় মিথ্যে বলছে আপনার সন্তান? বকাঝকায় কোনো কাজ হচ্ছে না? তা হলে সমস্যাটা অন্য জায়গায়। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যে সব  শিশু নিজেদের অবহেলিত বলে মনে করে, তারা মিথ্যের মাধ্যমে অন্যদের মনোযোগ কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। আত্মবিশ্বাসের অভাব ও অনিশ্চয়তার কারণেও অনেক সময় শিশুরা মিথ্যে বলে।

শিশুমন অনেক সময়েই কল্পনার জগৎ থেকে নানা রকম ধারণা করে বসে। সেটা যে আসলে মিথ্যে, সেই বোধও থাকে না। সন্তানরা অনেক সময় বুঝে বা না বুঝেই মিথ্যা কথা বলে ফেলে। আবার অনেক সময় শিশুরা বাবা-মায়ের মিথ্যে বলা থেকেও এই শিক্ষা লাভ করতে পারে। অনেক বড়ো মিথ্যা অভিভাবকরা ভুল করে হেসেই উড়িয়ে দেন। তখন শিশুর কোনো সংকোচ থাকে না।

শিশুর মিথ্যা বলার প্রবণতা বাড়ার আরও একটি বড়ো কারণ অভিভাবকের অতিকথন। কিন্তু সেই মিথ্যা কথা বলা যদি অভ্যাসে পরিণত হয়ে যায় তা হলে সেটা সব মা-বাবার জন্য চিন্তার বিষয় হয়ে দাঁড়ায়। তবে সন্তানের কয়েকটি লক্ষণ দেখেই আপনি বুঝতে পারবেন যে সন্তান মিথ্যা কথা বলছে।

কী ভাবে বুঝবেন

অস্থিরতা

অস্থিরতাও অন্যতম একটি লক্ষণ মিথ্যে বলার। শিশু মিথ্যে বললে তার মধ্যে অস্থির ভাব ফুটে উঠবে।

তোতলামি

আপনার বাচ্চা যখনই মিথ্যে বলবে সে স্বাভাবিক ভাবে কথা বলবে না, বরং তোতলাবে। কারণ মিথ্যা বলার সময় সে আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে বলতে পারবে না।

চোখে চোখ রেখে কথা বলছে না

এই বিষয়টা শুধু বাচ্চার ক্ষেত্রে নয়, যে কোনো মানুষ যদি আপনার চোখের দিকে তাকিয়ে কথা না বলতে পারেন, তা হলেই বুঝতে হবে, তার কোনো সমস্যা রয়েছে। একই বিষয় আপনার সন্তানের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। আপনার চোখের দিকে তাকিয়ে স্পষ্ট করে কথা না বলতে পারলেই বুঝবেন, কোনো কিছু আড়াল করার উদ্দেশ্যে মিথ্যের আশ্রয় নিতে হচ্ছে তাকে।

চিৎকার করে কথা বলা

যদি দেখেন হঠাৎই আপনার সন্তান সাধারণত যে গলায় কথা বলে, তার চেয়ে বেশি জোরে বা চিৎকার করে কথা বলছে, তখন বুঝতে হবে তার মধ্যে কোনো উদ্বেগ বা ভয় কাজ করছে। সে কারণেই বদলে যাচ্ছে আচরণ। ওই পরিস্থিতিতে নির্দিষ্ট কোনো বিষয়ে প্রশ্ন করলে মিথ্যে বলতে পারে সে। আর সেটা ঢাকা দেওয়ার জন্যই স্বরের তারতম্য হতে পারে।  

নির্দিষ্ট বিষয় এড়িয়ে যাওয়া

আপনি হয়তো একটি নির্দিষ্ট বিষয় নিয়ে সন্তানের সঙ্গে কথা বলছেন। কিন্তু সেটা নিয়ে তার বিশেষ কোনো আগ্রহ নেই। ক্রমাগত বিষয় পরিবর্তন করতে চাইছে। অথবা এমন কোনো প্রসঙ্গে কথা বলছে, আপনার বিষয়ের সঙ্গে যার কোনো মিল নেই। বিশেষজ্ঞদের একটা অংশের মতে, তখন বুঝতে হবে, হয়তো আপনার সন্তান কিছু লুকোতে চাইছে।

আত্মরক্ষামূলক  

আপনার সন্তান যদি মিথ্যে বলে তা হলে আত্মরক্ষামূলক বিভিন্ন কথা বলার চেষ্টা করবে। নিজেকে সত্য প্রমাণ করার চেষ্টা করবে।

আরও পড়ুন: মহিলাদের ৭টি চরম গোপনীয়তা, যা তাঁরা নিজের স্বামীকে বলতে পারেন না

খবরের সব আপডেট পড়ুন খবর অনলাইনে। লাইক করুন আমাদের ফেসবুক পেজ। সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের ইউটিউব চ্যানেল

বিজ্ঞাপন