ওয়েবডেস্ক: মনের শান্তিই আসল শান্তি। আর সেটা যদি না থাকে আপনার কাছে প্রচুর অর্থ থাকলেও দেখবেন কোনো না কোনো ভাবে মানসিক অবসাদ আপনাকে তাড়া করে বেড়াচ্ছে।

সবে দু’ বছর পেরিয়ে তিন বছরে পা দিয়েছেন। আর এর মধ্যেই এই অবস্থা। নিজের স্বামীর সঙ্গে কথোপকথনটুকুও হয় না। আগের মতো ফোন করে খোঁজ নেওয়া বা সময় পেলেই একটা মেসেজ করা, সবই ধীরে ধীরে বন্ধ হয়ে গেছে?

যখনই আপনার জন্য একটু সময় চান তখনই শুনতে হয় অফিসে কাজের চাপ, বাড়ি ফিরতে দেরি হবে। আর ছুটির দিনে যদিও বা বাড়িতে থাকেন নয় নিজের কাজ নিয়ে ব্যস্ত, না হলে মোবাইল বা ল্যাপটপে মুখ গুঁজে পড়ে আছে্ন।

নিজের মতো করে আপনার স্বামী জীবনটাকে আনন্দে কাটাচ্ছে। যখনই মনে হচ্ছে বাইরে লাঞ্চ বা ডিনারে বা অন্য কোথাও ঘুরতে চলে যাচ্ছে। অথচ আপনার কথা এক বারের জন্য মাথায় আনছেন না।

তবে অনেক সময়ই আপনাদের বিবাহিত জীবনের মধ্যে কোনো তৃতীয় ব্যক্তি ঢুকে পড়লে এই পরিবর্তনগুলি দেখা দেয়। কিন্তু বুঝবেন কী করে আপনার ধারণাগুলো একেবারে সঠিক? তবে এই সমস্যার কিছু সমাধান রয়েছে।

জেনে নেওয়া যাক কী সেই সমস্যার সমাধান- 

১। ফোনের পাসওয়ার্ড বদল

আপনার স্বামীর ফোনের পাসওয়ার্ড এত দিন আপনার কাছে ছিল জলভাত। কিন্তু এখন সেই পাসওয়ার্ডে ঘটেছে বদল। নতুন করে পাসওয়ার্ড দেওয়া এবং প্রতিটি অ্যাপে পাসওয়ার্ড দিয়ে রাখা – এগুলি কোনোটাই চোখ এড়িয়ে যাওয়ার বিষয় নয়। সব সময় আগলে নিজের কাছে ফোন রাখা এবং কেউ ফোন করলে আড়ালে গিয়ে মৃদু কণ্ঠে কথা বলছেন। এখান থেকেই বোঝা যায় আপনার স্বামী প্রতিনিয়তই আপনার থেকে কিছু গোপন করে চলেছে।

২। ব্যবহার ও কথায় অসঙ্গতি  

আপনার সঙ্গে আর আগের মতো ভালো ব্যবহার করেন না। হেসে একে অপরের মনের কথা শেয়ার করার মতো সময় এখন আপনার স্বামীর কাছে নেই। এখন কোনো বিষয়ে কিছু জানতে চাইলে সাত বার ঢোক গেলে উত্তর দিতে গিয়ে। সব সময় যেন পালাই পালাই ভাব। তা হলে কিন্তু সত্যিই বিষয়টি খুব চিন্তার।

৩। সাজগোজে এসেছে পরিবর্তন 

আগে যখন আপনারা দু’জনে ছিলেন সুখী দম্পতি তখনও এত আপনার স্বামীর সাজের বহর ছিল না। কিন্তু তা এখন রীতিমতো বাড়াবাড়ির পর্যায়ে চলে গেছে। নিত্যনতুন দামি দামি পোশাকে নিজেকে সাজিয়ে তুলছেন। কিন্তু কার জন্য? আপনাকেই বুদ্ধি দিয়ে এই রহস্যের উদঘাটন করতে হবে। সব সময় নজরে নজরে রাখতে হবে।

৪। যৌনতায় অনীহা

যদি মন পড়ে যায় অন্য কোথাও তা হলে কি আর আপনার সঙ্গে কেন যৌনতায় লিপ্ত হবে? তাঁর মন তখন চাইবে নতুনত্বের স্বাদ পেতে। তাই বাড়িতে সময় দেওয়ার থেকে যেখানে সময় দিলে বা যার কাছে সময় দিলে আপনার স্বামী যৌনতার আনন্দ উপভোগ করতে পারবেন সেটাকেই আগে বেছে নেবেন। কিন্তু এটা তো আপনার জন্য মোটেই ভালো কথা নয়। কোথায় গিয়ে কী করছে্ন বা কার সঙ্গে আপনার স্বামী সময় কাটাচ্ছেন। চেষ্টা করুন এগুলি সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য কী ভাবে জানা যায়।

মন্তব্য করুন

Please enter your comment!
Please enter your name here