Connect with us

জীবন যেমন

কনুইয়ের কালচে ভাব? রান্নার সামগ্রী দিয়ে দূর করার ৮টি টিপ

ত্বক

ওয়েবডেস্ক: লকডাউনে বাড়িতে বসে এখনই সময় ত্বকের ভালো করে যত্ন নেওয়ার। তাতে উপকারও যেমন হবে খানিকটা সময়ও কাটবে। বেশির ভাগ মানুষেরই একটা অভিন্ন সমস্যা তাহকে। তা হল ঘাড়, কনুই, হাঁটু কালো থাকা। শরীরের অন্য অংশের ত্বকের চেয়ে এই অংশের চামড়া বেশি পুরু। তাই সাধারণ ত্বকের যত্ন এখানে বিশেষ কাজে লাগে না। ফলে খুব তাড়াতাড়ি  শুকনো হয়ে যায়। আবার এই অংশে মেলানিন তৈরি হয় বেশি। ফলে কালচে ভাবও বেশি। তাই শরীরের এই সব অংশের কালচে আর শুকনো ভাব কমিয়ে স্বাভাবিক করতে চাইলে বিশেষ যত্ন নিতেই হবে

রান্নাঘরেই রয়েছে এমন কিছু উপাদান যা খুব সহজেই কনুই, হাঁটু ও ঘাড়ের কালো ছোপ কমিয়ে ত্বকের রং ধীরে ধীরে স্বাভাবিক করে তুলতে পারে, আর কোমলও রাখতে পারে! দরকার শুধু একটু নিয়মিত পরিচর্যা আর ধৈর্য। রইল টিপস –

১। লেবুর রস

পাতিলেবুর রসে ব্লিচিং এফেক্ট রয়েছে। তাই কনুইয়ের বিশ্রী কালো ছোপ তুলতে ভরসা করা যায় পাতিলেবুর ওপরে। একটা বড়ো আকারের পাতিলেবু আধখানা করে কেটে, রসটা ভালো ভাবে নিংড়ে একটি পাত্রে রাখতে হবে। এ বার একটি করে টুকরো নিয়ে কনুইয়ে খুব ভালো করে ঘষতে হবে।

২। লেবু চিনি

লেবুর সঙ্গে সামান্য চিনিও মাখিয়ে নেওয়া যায়। তাতে কনুইয়ের অংশটা এক্সফোলিয়েট করা হয়ে যাবে। এর পর আধ ঘণ্টা অপেক্ষা। তার পরে হালকা গরম জলে ধুয়ে ঘন ময়শ্চারাইজার লাগিয়ে নিলেই হল। প্রতি দিন নিয়ম করে এই ভাবে করলে কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই কনুইয়ের কালো ভাব দূর হবে।

৩। শশার রস

একটা শশা থেকে একটু মোটা করে দু’টো টুকরো কেটে নিয়ে তা কনুইয়ে মিনিট দশেক ঘষতে হবে। তার পর পাঁচ মিনিট রেখে ঠান্ডা জলে ধুয়ে ফেলতে হবে।

৪। শশা লেবুর রস

শশার রসের সঙ্গে লেবুর রস মিশিয়েও লাগানো যায়। এ ক্ষেত্রে দু’টো রসই সমপরিমাণে নিতে হবে। প্রতি দিন এই মিশ্রণটা মাখলে তফাত খুব তাড়াতাড়িই চোখে পড়বে

৫। দুধের সর আর হলুদ

দুধের সর আর হলুদ ব্যবহার করে দেখতে পারেন কালো ভাব হালকা করতে। লেবুর মতো হলুদও একটি ব্লিচিং এজেন্ট এবং এটি ত্বকের মেলানিন কমিয়ে দিতে সক্ষম। বেশ খানিকটা দুধের সর নিয়ে তার মধ্যে আধ চামচ হলুদ দিয়ে পেস্ট তৈরি করতে হবে। কাঁচা হলুদ বেটে নিতে পারলে খুব ভালো হয়। না হলে গুঁড়ো হলুদও নেওয়া যেতে পারে। এই পেস্টটি পুরো কনুই হাঁটু বা ঘাড়ের কালো জায়গায় বৃত্তাকারে ঘষে ঘষে মেখে  ১৫ মিনিট রেখে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।

৬। দই হলুদ

সরের বদলে দইও নেওয়া যায়। বেশ খানিকটা টক দই, তার মধ্যে আধ চামচ হলুদ দিয়ে পেস্ট তৈরি করতে হবে। কাঁচা হলুদ বেটে নিতে পারলে খুব ভালো হয়। না হলে গুঁড়ো হলুদ। এই পেস্টটি পুরো কনুই হাঁটু বা ঘাড়ের কালো জায়গায় বৃত্তাকারে ঘষে ঘষে মেখে  ১৫ মিনিট রেখে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে।

৭। দুধ আর বেকিং সোডা

দুধের ল্যাকটিক অ্যাসিড ত্বকের পিগমেন্টেশন কমায় আর বেকিং সোডা জমে থাকা মৃত কোষ তুলে ফেলতে সাহায্য করে। খানিকটা বেকিং সোডার সঙ্গে দুধ মিশিয়ে একটা থকথকে পেস্ট তৈরি করে কালো অংশে মেখে মিনিট তিনেক চক্রাকারে মাসাজ করতে হবে। ধীরে ধীরে কালচে ভাব কমে আসবে, দুধের ফ্যাট কনুইয়ের শুকনো ভাবও কমাবে।

করতে পারেন – মুখের অবাঞ্ছিত লোম বাড়িতে বসেই দূর করুন এই পদ্ধতিতে

৮। চিনি অলিভ অয়েল

অলিভ অয়েল না থাকলে নারকেল তেলও চলতে পারে। সমপরিমাণ চিনি আর অলিভ অয়েল বা নারকেল তেল মিশিয়ে পেস্ট তৈরি করে কালো জায়গায় লাগিয়ে মিনিট পাঁচেক বৃত্তাকারে মাসাজ করে আরও পাঁচ মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলতে হবে। নিয়ম করে সপ্তাহে দু’ দিন করলে উপকার হবে।

ময়শ্চারাইজার

এই প্যাকগুলি যে কোনোটিই লাগানো হোক না কেন, প্রতিবার প্যাক ধুয়ে এবং স্নানের পর ময়শ্চারাইজার মাখতে ভুললে হবে না। রাতেও ঘুমোতে যাওয়ার আগেও মুখ হাত পা এবং সঙ্গে সঙ্গে এই কালো অংশগুলিতে ঘন ক্রিম মাখতে হবে।

কী কী ময়শ্চারাইজার মাখবেন?

স্বাভাবিক ভাবেই পেট্রোলিয়াম জেলি, নারকেল তেল, কোকো বা শিয়া বাটার ময়শ্চারাইজার হিসেবে খুবই ভালো।

সানস্ক্রিন

রোদের দিনে বাড়ির বাইরে কেবল নয় বাড়ির ভিতরে থাকলেও সানস্ক্রিন মাখতেই হবে। পুরো হাতে কনুইয়ে ঘাড়ে ভালো করে সানস্ক্রিন মাখতে হবে।

অবশ্যই করে দেখুন – ত্বক ও চুলের যত্নে ঘিয়ের এই ব্যবহারগুলি কি জানেন

ঘরদোর

বর্ষাকালে পোকার হাত থেকে চাল বাঁচাতে হলে অবশ্যই করুন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: একে বর্ষাকাল তার ওপর লকডাউন। অনেকেই বেশি করে দোকান-বাজার করছেন, অন্ততপক্ষে চাল-আটা কিনে রেখেছেন জরুরি পরিস্থিতি সামাল দিতে। কিন্তু তা হলেও সমস্যা যেন পিছু ছাড়ে না। বর্ষাকালে এমনিতেই জিনিসপত্র নষ্ট হয় বেশি। তার ওপরে বেশি করে কিনে রাখা চালে পোকা ধরে গেলে মারাত্মক খারাপ অবস্থা। ভাত বসানোর আগে নিয়মিত চাল বেছে ভালো করে ধুয়ে রান্না করা একে তো সমস্যা বটেই তার ওপর চালে একটা পোকা হলেই তা অল্প দিনে পুরো চালটাই নষ্ট করে দেয়।

তাই চালে যাতে পোকা না ধরে তার জন্য আগাম কিছু ব্যবস্থা করতে হবে

১। অল্প করে রাখুন

প্রথম কথাই হল এক সঙ্গে অনেক চাল না রেখে ছোটো ছোটো ভাগে চাল রাখুন। তাতে পোকা হলেও সবটা এক সঙ্গে নষ্ট হবে না।

২। প্লাস্টিকের ব্যাগে রাখুন

পরিমাণ অনেক বেশি হলে প্লাস্টিকের ব্যাগে ভাগ করে রাখুন। এতে চাল অনেক দিন ভালো থাকে।

৩। এয়ারটাইট কৌটো

চাল রাখার জন্য অবশ্যই এয়ারটাইট ফুড কন্টেনার ব্যবহার করতে পারেন। চাল স্যাঁতস্যাঁতেও হয় না। পোকার আক্রমণও ঠেকানো যায়।

৪। তেজপাতা

চালে পোকা ধরার আগেই তাতে কয়েকটি তেজপাতা ধুয়ে ভালো করে শুকিয়ে গরম করে রেখে দিন। এতে পোকা ধরার ভয় থাকে না। যদি আগেই পোকা ধরে গিয়ে থাকে তা হলে দেরি না করে এই পদ্ধতিটি করা যেতে পারে। পোকা চলে যাবে।

৫। নিমপাতা

তেজপাতার মতো নিমপাতাও চালের মধ্যে দিয়ে রাখা যায়। পোকা ধরে গেলেও তাতে দিয়ে দেখুন, পোকা চলে যাবে।

আবার নিমপাতা তেজপাতা এক সঙ্গেও চালে দিয়ে রাখতে পারেন। তাতে কাজ ভালো হবে।

৬। শুকনো লঙ্কা

চালের পোকা ধরা আটকানো জন্য চালের মধ্যে বেশ খানিকটা শুকনো লঙ্কাও দিয়ে রাখা যায়।

৭। কর্পুর

চালের মধ্যে কর্পুরের কয়েকটি টুকরো দিয়ে রাখলে পোকা ধরা আটকানো যায়।

৮। ফ্রিজে রাখা

পোকা ধরলে কৌটো করে চাল ফ্রিজে রাখুন। ৪ থেকে ৫ দিন রাখার পর দেখবেন চালের সব পোকা মরে গেছে।

৯। রোদে দেওয়া

এ ক্ষেত্রে একটা কথা হল চালে পোকা ধরলে অনেকেই রোদে দেন। এতে পোকা মরে যায়।  ঠিক কথা। কিন্তু সেই চালে ভালো ভাত হয় না। তাই সরাসরি রোদে না রেখে, কৌটো করে রোদে দিন। রোদের তাপে পোকা মরে যাবে। তবে বর্ষার দিনে রোদে দেওয়া অবশ্যই একটি বড়ো সমস্যা।

১০। পরিচ্ছন্ন রাখা

যে জায়গায় চাল রাখছেন, সেই জায়গাটি নিয়মিত পরিষ্কার করতে হবে। তাতে পোকামাকড়ের আক্রমণ অনেক কম হয়।।

১১। কীটনাশক

চালের বস্তা বা কৌটো যেখানে রাখা সেখান পরিচ্ছন্ন করার পর তার চার পাশে কীটনাশক স্প্রে করে রাখা যেতে পারে। তা হলে পোকা ধরার ভয় থাকে না। তবে খেয়াল রাখবেন যেন চালের গায়ে সরাসরি স্প্রে না লাগে।

শিখে নিন- বাজে খেতে খাবারে মুহূর্তে স্বাদ ফেরাতে পারে এই ৭টি টিপ

Continue Reading

কেনাকাটা

ঘরের একঘেয়েমি আর ভালো লাগছে না? ঘরে বসেই ঘরের দেওয়ালকে বানান অন্য রকম

খবরঅনলাইন ডেস্ক : একে লকডাউন তার ওপর ঘরে থাকার একঘেয়েমি। মনটাকে বিষাদে ভরিয়ে দিচ্ছে। ঘরের রদবদল করুন। জিনিসপত্র এ-দিক থেকে ও-দিক আর এ-ঘর থেকে সে-ঘর করে ঘরের ভোল বদলে ফেলুন। মন ভালো লাগবে। ঘরের বড়ো বড়ো দেওয়াল, আলমারি, জানলা দরজার একঘেয়েমি কাটাতে বিনা ঝক্কিতেই বদলে ফেলুন চেহারা। কী ভাবে? অ্যামাজনের এই সমস্ত টাইল আর ওয়ালপেপার বা ওয়াল স্টিকারের ডিজাইনগুলি ব্যবহার করে। এখান থেকে পছন্দ করুন আর অর্ডার দিন এসে গেলেই দেওয়ালে লাগিয়ে ফেলুন আর নতুনত্বের স্বাদ উপভোগ করুন

দাম প্রতিবেদন লেখার সময় যা ছিল তাই দেওয়া হল –

১। ইন্ডিয়ান রয়্যাল উইন্ড ওয়ালপেপার

বেডরুম, লিভিংরুম, হল, কিচেন সব জায়গার দেওয়ালেই লাগানো যাবে। এর পেছন দিকে আঠা দেওয়াই আছে, কাগজ খুলে দেওয়ালে বা পছন্দের জায়গায় সাঁটিয়ে নেওয়ার অপেক্ষা। ওয়াটারপ্রুফ, হিটপ্রুফ ও ওয়েলপ্রুফ। এটি কিন্তু একাধিকবার ব্যবহার করা যাবে। মাপ ২০০ X ৪৫ সেমি। প্রায় ৯ বর্গফুটের মতো।

দাম – ৬০% ছাড়ে ৩৯৯ টাকা

২। রয়্যাল ব্রিক স্টোন

এটিও বাড়ির যে কোনো দেওয়ালে ব্যবহার করা যাবে। মাপ ২০০ X ৪৫ সেমি। প্রায় ৯ বর্গফুটের মতো। দীর্ঘ দিন চলে। একাধিকবার ব্যবহার করা যাবে। তবে খোলার সময় সাবধানে খুলতে হবে। দ্বিতীয় বারের সময় আঠা একটু কমে যেতে পারে। সে দিকে খেয়াল রেখতে হবে।

দাম – ৭০% ছাড়ে ২৯৯ টাকা

৩। উডেন স্ট্রাইপ ওয়ালপেপার

বেডরুম, লিভিংরুম, হল, কিচেন, আয়না, দরজা সব জায়গায় লাগানো যাবে। এর পেছন দিকে আঠা দেওয়াই আছে, কাগজ খুলে দেওয়ালে বা পছন্দের জায়গায় সাঁটিয়ে নেওয়ার অপেক্ষা। ওয়াটারপ্রুফ, হিটপ্রুফ ও ওয়েলপ্রুফ। এটি কিন্তু একাধিকবার ব্যবহার করা যাবে। পরিমাণ ২০০ X ৪৫ সেমি। প্রায় ৯ বর্গফুটের মতো।

দাম – ৬০% ছাড়ে ৩৯৯ টাকা

৪। উডেন ব্যাম্বু ওয়ালপেপার

এটি উপহার হিসাবেও কাউকে দেওয়া যেতে পারে। তবে তার জন্য কারো বাড়ি যাওয়ার অবশ্যই প্রয়োজন নেই। অর্ডার করার সময় সেখানকার ঠিকানা দিয়ে দিলেই পৌঁছে যাবে উপহার, সে কথা নিশ্চয়ই বলে দিতে হবে না। নিজের বাড়িতেও ব্যবহার করতে পারেন। এমনকি সিঁড়ির ধাপেও ব্যবহার করা যায়। মাপ ৯ বর্গ ফুট মতো।

দাম – ৬০% ছাড় দিয়ে ৩৯৯ টাকা

৫। রয়্যাল ওয়ালপেপার

একাধিক বার ব্যবহার করা যাবে। বাড়ি অফিস দোকান সব জায়গায় ব্যবহার করা যাবে, মেঝেতেও ব্যবহার করা যেতে পারে। এমনকি আলমারি বা সে কোনো সেলফের উপর ব্যবহার করা যাবে।

দাম – ৬০% ছাড়ে ৩৯৯ টাকা

৬। ওয়াল পোস্টার

নতুনত্বের জন্য এক দম আদর্শ একটি ওয়ালপেপার। যে কোনো জায়গায় ব্যবহার করা যেতে পারে। তবে বসার ঘর বা ডাইনিং অথবা অফিসের জন্য আদর্শ। একাধিক বার ব্যবহার করা যাবে। মাপ ৯ বর্গফুট মতো।

দাম – ৬০% ছাড়ে ৩৯৯ টাকা  

৭। রেট্রো উড গ্রেন

সম্পূর্ণ অন্য রকম লুক দিতে এই ওয়ালপেপারটি ব্যবহার করে দেখতে পারেন। কাঠের দেওয়ালের মতো দেখতে। দেওয়াল ছাড়াও আলমারি বা সেলফে ব্যবহার করা যায়।

দাম – ৬০% ছাড়ে ৩৯৯ টাকা

৮। রিমুভেবল ওয়ালপেপার

কচি বাঁশের দেওয়ালের চেহারা দিতে এটি খুব সুন্দর উপায়।

দাম- ৬০% ছাড়ে ৩৯৯ টাকা

৯। ওয়ালস্টিকার

নৃত্যরতা মহিলার স্টিকার। ফুলের নকশা কাটা। যে কোনো জায়গায় দেওয়ালে সাঁটানো যেতে পারে।

দাম – ৫৪% বাদে ২২৯ টাকা

১০। বেবি কৃষ্ণ ওয়ালস্টিকার

অস্থির আবহে মন শান্ত করতে ঘরে রাখতে পারেন বিশাল বড়ো মাখন চোরের ছবি।  ১৬০০ বর্গসেমি দেওয়াল ভরাট করবে একটি শিশু কৃষ্ণের ছবি। ওয়াটারপ্রুফ ও উচ্চ মানের। ৪ থেকে ৭ বছর টিকবে। এ ছাড়াও আরও অন্যান্য ছবিও আছে তবে দাম ও মাপ আলাদা।

দাম – ৬৯% ছাড়ে ২৪৯ টাকা

 ১১। ফেয়ারি প্রিন্সেস

ছোটোদের মনে একটু আনন্দ এনে দিতে তাঁদের ঘরের দেওয়াল ভরিয়ে দিতে পারেন রূপকথার গল্পের নানান চরিত্রদের দিয়ে। দেওয়াল বা আলমারি বা সেলফ যে কোনো জায়গায় সাঁটাতে পারেন। এইটি একটি ছোট্টো পরীর ছবি, সঙ্গে আরও নানান ছোটো স্টিকার। মাপ – ৬০ x ৪৫ সেমি। দেওয়ালে মোট জায়গা লাগবে ১০০ x ৭০ সেমি।

দাম – ৬৯% বাদ দিয়ে ১৭৫ টাকা

১২। সিলভার অ্যাক্রেলিক ৩ডি মিরার স্টিকার

পাঁচটির সেট। ৩ডি মিরার স্টিকার। এটিও ডু ইট ইওরসেলফ অর্থাৎ নিজে নিজে ঘর সাজানোর একটি উপকরণ।

দাম – ৭৪% ছাড়ে ২৭০ টাকা

১৩। আফ্রিকান ট্রাইবাল ওম্যান ওয়ালস্টিকার

৪০০টিরও বেশি ডিজাইন পাওয়া যায়। এক একটির মাপ ৫০ x ৭০ সেমি। দেওয়ালে মোট জায়গা লাগবে ৫০ x ৮০ সেমি।

দাম ৮৭% ছাড়ে ৮৯ টাকা

১৪। সানফ্লেম মিরর ডেকরেটিভ ওয়াল স্টিকার

একটি সূর্যের মতো ওয়ালস্টিকার। এটি ৩ডি অ্যাক্রেলিক স্টিকার। সঙ্গে ১০টি অতিরিক্ত প্রজাপতি। সূর্যের আয়তন ৪৫ x ৪৫ সেমি।

দাম -৭১% বাদে ২৭৯ টাকা

১৫। হ্যাপি ওয়ালস বাইসাইকেল

৪ থেকে ৫ বছর টিকবে। ওয়াটার প্রুফ ওয়াল স্টিকার।

দাম – ৬০% ছাড় দিয়ে ১৯৯ টাকা

https://www.khaboronline.com/life-style/diy-materials-from-amazon/দেখুন – সময় কাটছে না? ঘরে বসে এই সমস্ত সামগ্রী দিয়ে করুন ডিআইওয়াই আইটেম

Continue Reading

কেনাকাটা

বাচ্চার জন্য মাস্ক খুঁজছেন? এগুলোর মধ্যে একটা আপনার পছন্দ হবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিউ নর্মালে মাস্ক পরাটাই দস্তুর। তা সে ছোটো হোক বা বড়ো। বিরক্ত লাগলেও বড়োরা নিজেরাই নিজেদেরকে বোঝায়। কিন্তু ছোটোদের? একে তো মাস্ক পরে কষ্ট তার ওপর ওই একঘেয়ে মাস্ক তারা মোটেই পছন্দ করছে না। ওদের বরং দিন রংচঙে কার্টুন আঁকা মাস্ক, অথবা তাদেরই নিজেদের মুখের ছবি দেওয়া থ্রিডি মাস্ক। তাহ লে আর বিরক্তি থাকবে না, উলটে কারটা বেশি ভালো তা নিয়ে মেতে উঠবে।

অ্যামাজনেই পাওয়া যাচ্ছে এই কিডস ওয়্যার মাস্কগুলি। দেখে নিন। প্রতিবেদনটি লেখার সময় এই দামগুলিই দেওয়া ছিল অ্যামাজন পোর্টালে।

১। কিডস রিউইজেবল অ্যান্টিপলিউশন কার্টুন মাস্ক

১২ বছর বয়স পর্যন্ত ছেলেরা এটি পরতে পারবে।  ৩০ বারেরও বেশি বার ধোওয়া যাবে। 

দাম – ৫৫% ছাড় দিয়ে ১০টির সেট ৫৬০ টাকা।

২। হাই কোয়ালিটি ফেস মাস্ক ফর কিডস

৩ থেকে ৮ বছরের শিশু পরতে পারবে।

দাম – ৭০% ছাড় দিয়ে ২টির সেট ১৭৮ টাকা

৩। থ্রি লেয়ার কিডস ফেস মাক্স

পুরোপুরি সুতির কাপড়ের, ধোয়া যাবে।

দাম – ৩টির সেট ৩৪৯ টাকা

৪। কিড ফেস মাস্ক

ছোটোদের জন্য প্রিন্টেড, ধোয়ার উপযুক্ত। তিন লেয়ারের।

দাম – ১৩% ছাড় দিয়ে ৪টির সেট ২৮০ টাকা।

৫।  ডুয়ো সেফ কিডস ফেস মাস্ক

হ্যান্ড ওয়াশ দিয়ে ধোয়া যাবে। সম্পূর্ণ সুতির তৈরি। ২ থেকে ৪ বছরের শিশুর জন্য।

দাম – ২টির সেট ২০০ টাকা।

৬। অ্যান্টি পলিউশন ডাস্ট পলিয়েস্টার মাস্ক

ছোটো মেয়েদের জন্য কার্টুন আঁকা মাস্ক। ধোয়া যাবে।

দাম – ৮৩% ছাড় দিয়ে ৯৯ টাকা।

৭। থ্রি ডি ফেস মাস্ক

রিইউজেবল, ধোয়া যাবে। নিজের মুখের ছবি তুলে  9213271912 এই নম্বরে হোয়াটসঅ্যাপ করে দিলেই নিজের মুখের ছবি দেওয়া মাস্ক তৈরি।

দাম – ৫৩% ছাড় দিয়ে ১৪০ টাকা।

৮। প্রিন্টেড কিডস ফেস মাস্ক

২ লেয়ারের প্রিন্টেড মাস্ক, ছোটোদের জন্য, ছেলেমেয়ে উভয়ই পরতে পারবে।

দাম – ৫৭% ছাড় দিয়ে ৫টির সেট ৩৪০ টাকা।

 ৯। ডুয়েল লেয়ার মাস্ক

৫ থেকে ১২ বছরের জন্য। ধোয়া যাবে।

দাম – ৫৫% ছাড়ে ৫টির সেট ৪৯৯ টাকা।

১০। অ্যান্টিপলিউশন থ্রি লেয়ার মাস্ক

ফিলট্রেশন সিস্টেম আছে, ৩ থেকে ১২ বছরের ছেলে ও মেয়েদের জন্য, প্রিন্টেড মাস্ক। ধোয়া যাবে।

দাম ৬০% ছাড়ে ৪টির সেট ৩৯৯ টাকা।.

দেখুন – ১০টি ওয়াশেবল মাস্ক দেখে নিন

Continue Reading
Advertisement

কেনাকাটা

কেনাকাটা2 days ago

হ্যান্ডওয়াশ কিনবেন? নামী ব্র্যান্ডগুলিতে ৩৮% ছাড় দিচ্ছে অ্যামাজন

খবরঅনলাইন ডেস্ক : করোনাভাইরাস বা কোভিড ১৯ এর সঙ্গে লড়াই এখনও জারি আছে। তাই অবশ্যই চাই মাস্ক, স্যানিটাইজার ও হ্যান্ডওয়াশ।...

কেনাকাটা5 days ago

ঘরের একঘেয়েমি আর ভালো লাগছে না? ঘরে বসেই ঘরের দেওয়ালকে বানান অন্য রকম

খবরঅনলাইন ডেস্ক : একে লকডাউন তার ওপর ঘরে থাকার একঘেয়েমি। মনটাকে বিষাদে ভরিয়ে দিচ্ছে। ঘরের রদবদল করুন। জিনিসপত্র এ-দিক থেকে...

কেনাকাটা7 days ago

বাচ্চার জন্য মাস্ক খুঁজছেন? এগুলোর মধ্যে একটা আপনার পছন্দ হবেই

খবরঅনলাইন ডেস্ক : নিউ নর্মালে মাস্ক পরাটাই দস্তুর। তা সে ছোটো হোক বা বড়ো। বিরক্ত লাগলেও বড়োরা নিজেরাই নিজেদেরকে বোঝায়।...

কেনাকাটা1 week ago

রান্নাঘরের টুকিটাকি প্রয়োজনে এই ১০টি সামগ্রী খুবই কাজের

খবরঅনলাইন ডেস্ক : লকডাউনের মধ্যে আনলক হলেও খুব দরকার ছাড়া বাইরে না বেরোনোই ভালো। আর বাইরে বেরোলেও নিউ নর্মালের সব...

নজরে