Connect with us

ঘরদোর

বাড়ির টবে শীতের ফুল গাছ? দেখে নিন কার কী যত্ন

Published

on

flowers

ওয়েবডেস্ক: বছরের যে কোনো সময়ই যদি চোখের সামনে বা বাড়ির কোনো একটি জায়গায় সুন্দর সুন্দর ফুলের সমাহার থাকে তা হলে ভালো লাগে না এমন মানুষ হয়তো নেই। আর সেখানে ঋতু যদি শীতকাল হয় তা হলে তো কথাই নেই। নিজেদের সৌন্দর্যে ফুলেরা যেন হাত ছানি দিয়ে ডাকে। এমন সুন্দর ফুলের এক ফালি ছোট্টো বাগানের শখও প্রায় সকলেরই। তাই শীত কালে ঠিক কী কী ফুল বাড়িতে করা যায়, কী ভাবেই বা তার যত্ন নেওয়া যেতে পারে সে নিয়ে রইল কয়েকটা টিপস।

গোলাপ   

Loading videos...

বেশির ভাগ মানুষের প্রিয় ফুল গোলাপ। সারা বছর ধরে গাছে গোলাপ ফুটলেও শীতকালে এর ফলনও যেমন বৃদ্ধি পায় ঠিক তেমনই এর রূপও আরও খোলতাই হয়। গোলাপ যেমন বিভিন্ন রঙের হয়, তেমন এদের চেহারাও বিভিন্ন হয়। এদের মধ্যে রয়েছে, রানি এলিজাবেথ, এলিজাবেথ, ব্ল্যাক প্রিন্স, ইরান, রোজ গুজার্ড, জুলিয়াস রোজ ইত্যাদি।  গোলাপ গাছ বেশি রোদে ঠাণ্ডা আবহাওয়ায় ভালো হয়। এর জন্য ১২ ইঞ্চির টব উপযুক্ত। তবে গাছ ছোটো থাকলে ১০ ইঞ্চির টবও চলতে পারে। সাধারণ ভাবে ফুল হয়ে গেলে সেই ডাল কিছুটা কেটে দিলে আবার নতুন ডাল জন্মায় তাতে আবার ফুল ধরে। গাছের গোড়ায় যে আগাছা জন্মায়, সেগুলি পরিষ্কার করে দিতে হয় নিয়মত। গাছের গোড়ায় মাটি একটু কুপিয়ে আলগা করে দিতে হয়। তাতে সার দিয়ে মাটির সঙ্গে মিশিয়ে দিতে হয়। সারের মধ্যে দেওয়া যেতে পারে গোবর, খোল আর শুকনো চা পাতা।

গাঁদা

গাঁদা ফুলটি খুব জনপ্রিয়। শীতের সময় বেশিরভাগ বাড়ির টবে বা বাগানে এই ফুল দেখা যায়। বড়ো বড়ো থোকা গাঁদা এই সময় বেশি ফুটতে দেখা যায়। তবে শীত শুধু নয়, প্রায় সারা বছরই গাঁডা পাওয়া যায়। নানান রঙের গাঁডা হয়ে থাকে। লাল, হলুদ, কমলা রঙের। গাঁদা বিভিন্ন ধরনের হয়। যেমন – চায়না গাঁদা, রক্ত গাঁদা, দেশি গাঁদা, বড়ো ইনকা গাঁদা ইত্যাদি। গাঁদা গাছের জন্যও ভরপুর রোদের প্রয়োজন। টব মাঝারি মাপের হলেও চলে। গাঁদা ফুলের আকার বড়ো করতে চাইলে তার জন্য কুঁড়িগুলিকে নখের হালকা খোঁচায় অল্প করে ভেঙে দিতে হয়। তাতে ফুল ফুটলে আকার বেশ খানিকটা বড়ো হয়। ফুল যখন শুকিয়ে যায় তা ফেলে না রেখে ডাল থেকে কেটে দেওয়া উচিত। বলে রাখা ভালো, শুকনো গাঁদার পাপড়ি ভেজা মাটিতে ছড়িয়ে দিলেই চারা গাছ জন্মায়।

চন্দ্রমল্লিকা

শীতকাল মানেই যে ফুলটির নাম একডাকে মনে আসে তা হল ক্রিসেনথিমাম অর্থাৎ চন্দ্রমল্লিকা। এই ফুলটির শতাধিক প্রজাতি রয়েছে। তবে এ দেশে কয়েক রকমেরই পাওয়া যায়। বহু রঙের এবং মাপের চন্দ্রমল্লিকা হয়ে থাকে। গাছপ্রেমীদের বিশেষ পছন্দের হল এই চন্দ্রমল্লিকা। চন্দ্রমল্লিকা গাছের জন্য আট থেকে দশ ইঞ্চির টব উপযুক্ত। এই গাছও বড়ো গাছ থেকে ডাল কেটে বসালে শেকড় বিস্তার করে নিজে গাছে পরিণত হতে পারে। এই ফুলের জন্য দরকার ঝলমলে রোদ ও ঠাণ্ডা আবহাওয়া।  নিয়ম করে জল ও সার দিতে হয়। নীচের দিকের পাতা শুকিয়ে গেলে সেগুলি পরিষ্কার করে দিতে হয়।

ডালিয়া

চন্দ্রমল্লিকার মতোই আরও একটি জনপ্রিয় শীতকালীন ফুল হল ডালিয়া। এরও রঙের সংখ্যা অগুনতি। ভারী থোকা বড়ো মাপের ডালিয়া মানুষের মন কেড়ে নেয় অনায়াসেই। তা ছাড়াও বিভিন্নি মাপের চন্দ্রমল্লিকা ফুটতে দেখা যায়। ডালিয়ার লাল, চকোলেট, হলুদ, সাদা, গোলাপি, বেগুনি প্রভৃতি বর্ণের হয় ফুল। এর উল্লেখযোগ্য কয়েকটি জাত হল অ্যানিমোন, ডেকোরেটিভ, কলারেট, পিওনি, পমপন, মারলিন ইত্যাদি। এই ফুলের জন্য দরকার ঝলমলে রোদ ও ঠাণ্ডা আবহাওয়া। বড়ো টবে এই ফুল ভালো হয়। এই গাছে একটু যত্নের প্রয়োজন পরে। নিয়মিত জল দিতে হয়। সার দিলে এর ফলন ভালো হয়। শুকনো পাতা ফেলে দেওয়া ভালো।

ক্যামেলিয়া

ক্যামেলিয়া একটি বিদেশি ফুল। সাধারণত ফুলটি সাদা ও লাল রঙের হয়ে থাকে। দেখতে অনেকটা গোলাপের মতো। এক স্তর বা বহু স্তর পাপড়ি যুক্ত হয়ে থাকে। চা গাছের মতো এর পরিচর্যা করতে হয়। এই ফুলটি সাধারণত বছরে একবারই ফোটে।

কসমস

শীত কালের আরেক একটি রঙিন ফুল কসমস। বিদেশি ফুল হলেও আজকাল শীতকাল এলে এখানেও এর কদর বাড়ে। গাছটি ৯০ থেকে ১২০ সেমি লম্বা হয়। নানা রঙের হয় এই কসমস ফুলটি। তার মধ্যে রয়েছে সাদা, লাল, গোলাপি, হলুদ, কমলা ইত্যাদি বর্ণ। এই ফুল শুকিয়েই বীজ হয়। খুব দ্রুত এটি বড়ো হয় ও ফুল ধরে। শীতের শেষের দিকে তাই কয়েকটি ফুল গাছে রেখে শুকিয়ে নিলে বীজ তৈরি হয়ে যায়। পরবর্তী বছরে সেই বীজ মাটিতে ছড়িয়ে দিলে গাছ জন্মায়। এই গাছে রোজ জল দেওয়ার বা বিশেষ সার দেওয়ার দরকার পড়ে না। তবে বেশি রোদ থাকলে গাছটিতে ফুল ভালো হয়। মাঝারি মাপের টবেই কসমস গাছ হতে পারে।

সূর্যমুখী

সূর্যমখীও এটি শীতকালীন ফুল। সূর্যের দিকে মুখ করে থাকার জন্য এর নাম সূর্যমুখী। এর বীজ হাঁস, মুরগির খাদ্য হিসাবে ব্যবহার করা হয়। পৃথিবী বিভিন্ন দেশে এর ব্যাপক চাষ হয়। এর তেল অন্যান্য রান্নার তেলের তুলনায় ভালো। সূর্যমুখী তেল হৃদরোগের পক্ষে উপকারী। এই গাছ ৩০ সেন্টিমিটার পর্যন্ত হয়ে থাকে। মাঝারি টবে এই গাছ ভালো হয়, উপযুক্ত যত্ন করতে পারলে অনেক ফুল হয়।

কৃষ্ণকলি

দেশীর শীতকালীন ফুলের মধ্যে রয়েছে এই কৃষ্ণকলি ফুল। হাত দেড়েক উঁচু গাছে ফোটে ছোটো ছোটো ফুল, সাদা আর গোলাপি- এ দুই রঙের হয় ফুলটি। অনেক জায়গাউ আগাছার মতোও বেড়ে ওঠে। প্রচুর ফুল দেয়। আবার অনেকে ভালো বেশে বাগান বা টবেও একে রোপন করে থেকেন। একে সন্ধ্যামালতিও বলা হয়। কারণ এই ফুলটি সন্ধ্যা বেলায় ফোটে। 

প্যান্সি

শীতের আরও একটি সুন্দর ফুল হল প্যান্সি। এটি দেখতে অনেকটা প্রজাপতির মতো। এর নিচের দিকে তিনটি পাপড়ি থাকে আর উপরের দিকে দু’টি। নানান রঙের হয়। সাধারণত টবে এটি ভালো ফোটে।

গ্যাজানিয়া

আদি নিবাস দক্ষিণ আফ্রিকা হলেও এখানের শীতকালের একট জনপ্রিয় ফুল এই গ্যাজানিয়া। লতানো। ফুল অনেকটা সূর্যমুখীর মতো দেখতে। সাদা, লাল, কমলা, হলুদ রঙের ফুল হয়। পাহাড়ি এলাকায় এরা ভালো জন্মায়।

জিনিয়া

ধূসর সবুজ রঙের ক্ষুদ্রাকৃতি ফুল গাছটি বেশ নজরকাড়া। এই ফুলের গাছ ১০ থেকে ১২ সেন্টিমিটার হয়ে থাকে। লাল, গোলাপি, বেগুনি, সাদা রঙের ফুল হয়। মাঝারি ছোটো টবে এই গাছ ভালোই হয়।

পিটুনিয়া

আফ্রিকা ও আর্জেন্টিনার ফুল এই পিটুনিয়া। শীতকালে এ দেশেও বেশ ছেয়ে যায়। ঘণ্টাকৃতির এক একটি ফুল। সাদা, বেগুনি, গোলাপি, লাল নানান রঙের ফুল ফোটে। মাঝারি বা ছোটো টবে এই গাছ ভালোই হয়।

সব ক’টি গাছের ক্ষেত্রেই যে বিষয়টি দরকার তা হল দোঁয়াশ মাটি। এই মাটিতে তিনি ভাগের এক ভাগ পরিমাণের জৈব সার মেশাতে হবে। গাছে জল দেওয়ার সময় গাছের শুধু গোড়ায় নয়, পাতা ভিজিয়ে সুন্দর ভাবে জল দিলে গাছের ওপরের ধুলো-বালি ধুয়ে যাত্য ও গাছও সুস্থ এবং সতেজ থাকে। পাশাপাশি পোকা মাকড়ের আক্রমণও কম হয়।  

সূত্র- ইন্টারনেট

দেখে নিন – শীতকালে নবজাতকের যত্নে এই জরুরি বিষয়গুলি খেয়াল রাখুন

Advertisement
Click to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.

ঘরদোর

বাড়িতে ধনেপাতার চাষ করতে চান? দেখে নিন পদ্ধতি পদ্ধতি

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ধনেপাতার অনেক গুণ। খেতেও ভালো। তাই এর অনুরাগীর সংখ্যা অসংখ্য। কাঁচা, রান্না করা, বাটা – সব রকমেরই তুলনা নেই। কিন্তু মরশুম চলে গেলে দাম অনেকটাই বেড়ে যায়। তখন এটি খাওয়া ও ব্যবহার কমাতে বাধ্য হতে হয়। তাই যদি নিজের ছাদ বা বারান্দার বাগানে এটি সারা বছর চাষ করা যায় সুবিধে অনেক হয়।  

উপযুক্ত মরশুম – সেপ্টেম্বর থেকে ডিসেম্বর। তবে সারা বছরই টবে চাষ করতে পারেন।

Loading videos...

ধনেপাতা সব মাটিতেই হয়। তবে এঁটেল ও দো-আঁশ মাটি বেশি ভালো। মাটিতে গোবর সার, পাতা পচা সার, বা রান্নাঘরের ফেলে দেওয়া সবজির খোসাও সার হিসেবে দিতে পারেন।

দোকান বা কোনো নার্সারি থেকে ধনের বীজ কিনে রাত্রিবেলা জলে ভিজিয়ে রাখুন। পরের দিন বীজ মাটিতে ফেলুন। বলে রাখা ভালো, ট্রের মতো বা থালার মতো ছড়ানো টব হলে ভালো হয়।

বীজগুলি ছড়িয়ে হালকা মাটি চাপা দিয়ে দিন। জল ছিটিয়ে মাটি ভালো করে ভিজিয়ে দিন। খেয়াল রাখবেন যেন মাটিতে পিঁপড়ে না হয়। তার জন্য টবের চারপাশে পিঁপড়ের ওষুধ ছড়িয়ে দিন।

অল্প সময়ের মধ্যেই চারা জন্মাবে। একটি টবে অনেক গাছ হলে তা তুলে অন্য একটি টবে লাগান।

গাছের গোড়ায় আগাছা হলে পরিষ্কার করুন। বৃষ্টির দিনে বেশি জল না দেওয়াই ভালো। সব সময় খেয়াল রাখুন গোড়ায় যেন জল না দাঁড়ায়।  

আরও – ঘরের বায়ুদূষণ আটকাতে লাগান এই গাছগুলি

Continue Reading

ঘরদোর

এই ৭টি মিথ্যে বাঁচিয়ে দিতে পারে আপনার সম্পর্কটি

Published

on

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আমাদের চার পাশের প্রত্যেক মানুষই কোনো না কোনো সম্পর্কের ভিত্তিতেই আমাদের সঙ্গে জড়িয়ে আছে। এই সম্পর্ক টিকিয়ে রাখাটাই বড়ো কথা। তা যদি হয় স্বামী-স্ত্রী বা প্রেমিকপ্রেমিকার সম্পর্ক তা হলে তো আরও জটিল, আবার ভঙ্গুরও। তাই ভালোবাসার গভীরতা থাকা সত্ত্বেও সামান্য অভিমানের কারণে সম্পর্ক ভেঙে যায়।

তাই সম্পর্ক মজবুত করতে অনেক কিছুই করতে হয়, তেমনই একটি উপায় হল এক আধটা মিষ্টি মিথ্যে বলা। বিশেষ করে দাম্পত্য বা প্রেমের সম্পর্কে এই মিথ্যে বেশ উপকারী। তবে মনে রাখবেন মিথ্যে বলাটাও কিন্তু একটি আর্ট। মিথ্যে বলুন সত্যির মতো করেই –

Loading videos...

১। প্রশংসা শুনতে সকলেই ভালোবাসে। তাই সঙ্গী বা সঙ্গিনীর চেহারা বা সাজগোজ হাসি ইত্যাদি নিয়ে বেশি বেশি প্রশংসা করুন, দারুণ লাগছে বলুন।

২। রান্না খারাপ হলেও বলুন ভালো হয়েছে। সাধ করে রেঁধে খাওয়াচ্ছে যখন, মুখের ওপর খারাপ নাই বা বললেন। তাই প্রথম কয়েক বার মিথ্যে বলাই ভালো। তবে খারাপ রান্না সহ্যের বাইরে গেলে অন্য ভাবে বুঝিয়ে বলুন।

৩। অনেকেই উপহার দিতে এবং পেতে ভালোবাসেন। তেমন উপহার আপনি পেলে তা পছন্দ না হলেও বলুন সুন্দর হয়েছে, খুব পছন্দ হয়েছে। এতে তার মন খারাপ হবে না। ঝগড়াও এড়ানো যাবে। পারলে আপনিও মাঝে মধ্যে এক আধটা উপহার দিন।

৪। অনেকেই ঠিকমতো হাসাতে পারে না। আপনার সঙ্গের মানুষটি যদি রসিকতা করেন কিন্তু কারোর হাসি না পায় তা হলেও আপনি হাসুন। খুব মজা লেগেছে বলুন। তাতে তিনি খুশি হবেন। তাঁর বুদ্ধিমত্তাকেও আঘাত করা হবে না। তাই মিথ্যে মিথ্যে হলেও হাসুন।

৫। আপনার পছন্দের না হলেও সঙ্গী বা সঙ্গিনী কোনো ছবি এক সঙ্গে দেখার আবদার করলে দেখুন। বারণ করবেন না। বরং আগ্রহ দেখান।

৬। সকলের সব কথা সব সময় সঠিক হয় না। কিন্তু সেটি মুখের ওপর বলা সব সময় ঠিক হবে না। তাই কিছু ক্ষেত্রে বিষয়টি এড়িয়ে যান। কিছু ক্ষেত্রে হালকা ভাবে বুঝিয়ে মত পরিবর্তন করান। অথবা কিছু ক্ষেত্রে মনমতো না হলেও বিষয়ের গুরুত্ব বুঝে হ্যাঁয়ে হ্যাঁ মেলানোই ঠিক হবে।

৭। পরিবারের কাউকে পছন্দ না হলেও তাকে নিয়ে নিন্দে না করাই ভালো।  

আরও – সন্তানের সঙ্গে এই ৫টি ভুল কখনওই করবেন না

Continue Reading

ঘরদোর

ল্যাপটপ ব্যবহার করেন? তা হলে সাবধান হন

ল্যাপটপের পরিচর্যার ১০টি কৌশল, জেনে নিন এখানে…

Published

on

খবর অনলাইন ডেস্ক : কমবেশি অনেক বাড়িতেই ল্যাপটপ, কম্পিউটারের জনপ্রিয় তো ছিলই এখন ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোম’ ও অনলাইনে পড়াশোনা শুরু হওয়ার সুবাদে বাড়িতে এই সদস্যের জায়গাটা আরও পাকা হয়ে গিয়েছে। কেউ এগুলি বহুদিন ব্যবহার করতে করতে পক্ত হয়ে গিয়েছেন। কারোর বা হাতেখড়ি হয়েছে।

যাই হোক না কেন এর বাড়তি কিছু যত্নও পাওনা। কারণ কম্পিউটার ল্যাপটপের আয়ু বাড়াতে দরকার সঠিক পরিচর্যা। যা হোক তা হোক করে ব্যবহার করলে এগুলির ক্ষতি হয়।

Loading videos...

ল্যাপটপের পরিচর্যার ১০টি কৌশল

১। প্রথম কথাই হল ল্যাপটপ ব্যবহার করতে হবে খুব সাবধানে ধৈর্য্য ধরে। কারণ জিনিসটি খুবই পলকা ও সূক্ষ্ম যন্ত্রাংশ দিয়ে তৈরি।

২। জল হাতে ল্যাপটপ ব্যবহার করা চলবে না। তাতে ডিভাইসটি নষ্ট হয়ে যাবে।

৩। খেতে খেতে বা নোংরা হাতে ল্যাপটপ ব্যবহার করবেন না। ল্যাপটপের কি-প্যাড ও টাচ প্যাডে সেই নোংরা জমা হবে। তাই হাত পরিষ্কার করে এটি ব্যবহার করুন।

৪। বন্ধ ল্যাপটপের ওপর ভারি বস্তু রাখবেন না। তাতে মনিটরের পর্দার  ওপর কি প্যাডের চাপ পড়ে ক্ষতি হয়। সঙ্গে সিডির জায়গাটাও বেঁকে যেতে পারে।

৫। ল্যাপটপটি বন্ধ করার সময় একবার পরিষ্কার করে নিন। কারণ কোনো ছোটো কণা থেকে গেলেও তা এলসিডি স্ক্রিনের ক্ষতি করবে, দাগ সৃষ্টি করবে।

৬। অনেকেই খেতে খেতে ল্যাপটপ নিয়ে কাজ করেন। এতে অনেক সময়ই কি প্যাডের মধ্যে খাবারের ছোট্টো কণা ঢুকে যায়। তাতে জিনিসটি নোংরা যেমন হয়, নষ্টও হতে পারে।

৬। তরল পদার্থ চা, কফি, সফট ড্রিংস, জল, দুধ ইত্যাদি ল্যাপটপ থেকে দূরে রাখুন। ভুল বশত উলটে গেলে তা ডিভাইসটি নষ্ট করে দিতে পারে।

৭। নরম কাপড় দিয়ে পরিষ্কার করুন। কি প্যাডের জন্য নরম ব্রাশ ব্যবহার করুন।

৮। বন্ধ করার ও খোলার সময় মাথার মাঝখান ধরে বন্ধ করুন। শুধু দু’ পাশ ধরে বন্ধ করবেন না। বেঁকে যেতে পারে।

৯। আরাম করে  বিছানায় বসে বা শুয়ে ল্যাপটপ ব্যবহার করে থাকেন অনেকে। এই পদ্ধতিটি ঠিক নয়। এতে শরীর ও ল্যাপটপ দু’য়েরই ক্ষতি হয়।

১০। নজর রাখুন চার্জ আছে কি না। উপযুক্ত সময়ে চার্জ দিন না হলে অল্প দিনের মধ্যেই এর ক্ষতি অবশ্যম্ভাবী।

আরও – হেয়ার ড্রায়ার কেনার আগে দেখে নিন এই বিষয়গুলি

Continue Reading
Advertisement
Advertisement
বিদেশ48 mins ago

২৫ বার এভারেস্ট শীর্ষে, নিজের রেকর্ড ভেঙে ইতিহাস সৃষ্টি করলেন কামি রিটা শেরপা

ক্রিকেট2 hours ago

IPL 2021: বাকি ম্যাচগুলি আয়োজন করতে চেয়ে বিসিসিআইকে আবেদন জানাল শ্রীলঙ্কা ক্রিকেট বোর্ড

দেশ2 hours ago

Coronavirus Second Wave: এ বার সম্পূর্ণ লকডাউনের পথে হাঁটল তামিলনাড়ুও

রাজ্য3 hours ago

Bengal Corona Update: রাজ্যের ১৫ জেলায় মৃত্যুহার ১ শতাংশের কম

দেশ3 hours ago

Corona Update: দৈনিক সংক্রমণ কিছুটা কমলেও মৃতের সংখ্যায় রেকর্ড, তবুও মৃত্যুহার নিম্নমুখী

দেশ4 hours ago

Delhi Covid Crisis: অক্সিজেনের সংকট শেষ, তিন মাসের মধ্যে সব দিল্লিবাসীর টিকাকরণ হয়ে যাবে, জানালেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল

দেশ4 hours ago

Assam CM Dilema: ফলাফলের ছ’দিন পরেও মুখ্যমন্ত্রীর ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিতে পারল না বিজেপি

দেশ4 hours ago

Coronavirus Second Wave: করোনা মোকাবিলায় এ বার দু’ সপ্তাহের সম্পূর্ণ লকডাউন জারি হল কর্নাটকে

রাজ্য3 days ago

কমিশনের নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে পুনর্গণনার দাবিতে আদালতে যাওয়ার হুঁশিয়ারি শুভেন্দু অধিকারীর

রাজ্য3 days ago

বৃহস্পতিবার থেকে রাজ্যে লোকাল ট্রেন বন্ধ, মেট্রো ও সরকারি বাস অর্ধেক, এক গুচ্ছ ঘোষণা মুখ্যমন্ত্রীর

sourav ganguly
ক্রিকেট2 days ago

Covid Crisis in IPL: জৈব সুরক্ষা বলয়ে কোনো ফাঁক ছিল বলে মনে করেন না সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়

দেশ2 days ago

Corona Update: দু’তিনটে রাজ্যে সংক্রমণবৃদ্ধির জের, ভারতের দৈনিক সংক্রমণ ভেঙে দিল অতীতের রেকর্ড

রাজ্য3 days ago

Bengal Corona Update: দৈনিক সংক্রমণ ১৮ হাজারের গণ্ডি পেরোলেও কমল সংক্রমণের হার, পর পর ৪ দিন সুস্থতার হারে বৃদ্ধি

রাজ্য2 days ago

Post-Poll Violence: ইন্ডিয়া টুডে-র সাংবাদিকের ছবি পোস্ট করে হিংসায় মৃত হিসেবে বর্ণনা বিজেপির

ক্রিকেট3 days ago

অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন স্পিনার অপহৃত, পরে মুক্ত

রাজ্য2 days ago

Bengal Corona Update: দৈনিক সংক্রমণে স্থিতাবস্থা অব্যাহত, কলকাতায় সক্রিয় রোগীর সংখ্যায় বড়ো পতন

ভিডিও

কেনাকাটা

কেনাকাটা2 months ago

বাজেট কম? তা হলে ৮ হাজার টাকার নীচে এই ৫টি স্মার্টফোন দেখতে পারেন

আট হাজার টাকার মধ্যেই দেখে নিতে পারেন দুর্দান্ত কিছু ফিচারের স্মার্টফোনগুলি।

কেনাকাটা3 months ago

সরস্বতী পুজোর পোশাক, ছোটোদের জন্য কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সরস্বতী পুজোয় প্রায় সব ছোটো ছেলেমেয়েই হলুদ লাল ও অন্যান্য রঙের শাড়ি, পাঞ্জাবিতে সেজে ওঠে। তাই ছোটোদের জন্য...

কেনাকাটা3 months ago

সরস্বতী পুজো স্পেশাল হলুদ শাড়ির নতুন কালেকশন

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই সরস্বতী পুজো। এই দিন বয়স নির্বিশেষে সবাই হলুদ রঙের পোশাকের প্রতি বেশি আকর্ষিত হয়। তাই হলুদ রঙের...

কেনাকাটা3 months ago

বাসন্তী রঙের পোশাক খুঁজছেন?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: সামনেই আসছে সরস্বতী পুজো। সেই দিন হলুদ বা বাসন্তী রঙের পোশাক পরার একটা চল রয়েছে অনেকের মধ্যেই। ওই...

কেনাকাটা3 months ago

ঘরদোরের মেকওভার করতে চান? এগুলি খুবই উপযুক্ত

খবরঅনলাইন ডেস্ক: ঘরদোর সব একঘেয়ে লাগছে? মেকওভার করুন সাধ্যের মধ্যে। নাগালের মধ্যে থাকা কয়েকটি আইটেম রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার...

কেনাকাটা4 months ago

সিলিকন প্রোডাক্ট রোজের ব্যবহারের জন্য খুবই সুবিধেজনক

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যপ্রয়োজনীয় বিভিন্ন সামগ্রী এখন সিলিকনের। এগুলির ব্যবহার যেমন সুবিধের তেমনই পরিষ্কার করাও সহজ। তেমনই কয়েকটি কাজের সামগ্রীর খোঁজ...

কেনাকাটা4 months ago

আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: আজ রইল আরও কয়েকটি ব্র্যান্ডেড মেকআপ সামগ্রী ৯৯ টাকার মধ্যে অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদন লেখার সময় যে দাম ছিল...

কেনাকাটা4 months ago

রান্নাঘরের এই সামগ্রীগুলি কি আপনার সংগ্রহে আছে?

খবরঅনলাইন ডেস্ক: রান্নাঘরে বাসনপত্রের এমন অনেক সুবিধেজনক কালেকশন আছে যেগুলি থাকলে কাজ অনেক সহজ হয়ে যেতে পারে। এমনকি দেখতেও সুন্দর।...

কেনাকাটা4 months ago

৫০% পর্যন্ত ছাড় রয়েছে এই প্যান্ট্রি আইটেমগুলিতে

খবরঅনলাইন ডেস্ক: দৈনন্দিন জীবনের নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসগুলির মধ্যে বেশ কিছু এখন পাওয়া যাচ্ছে প্রায় ৫০% বা তার বেশি ছাড়ে। তার মধ্যে...

কেনাকাটা4 months ago

ঘরের জন্য কয়েকটি খুবই প্রয়োজনীয় সামগ্রী

খবরঅনলাইন ডেস্ক: নিত্যদিনের প্রয়োজনীয় ও সুবিধাজনক বেশ কয়েকটি সামগ্রীর খোঁজ রইল অ্যামাজন থেকে। প্রতিবেদনটি লেখার সময় যে দাম ছিল তা-ই...

নজরে